সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাণিজ্য সময়
৩ টা ৮ মিঃ, ২২ মে, ২০২০

চীনের বিনিয়োগ টানতে কতটুকু প্রস্তুত বাংলাদেশ?

করোনা পরবর্তী সময়ে চীনের হাতছাড়া হওয়া বিনিয়োগ টানতে নানা প্রণোদনা ও কৌশলী পদক্ষেপ নিচ্ছে ভারত, ভিয়েতনামসহ উন্নয়নশীল বিভিন্ন দেশ। এই সুযোগ গ্রহণে কতটুকু প্রস্তুত বাংলাদেশ? এমন প্রশ্ন স্বয়ং মন্ত্রীদের।
হাজেরা শিউলি

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বিনিয়োগ টানতে ব্যবসা শুরুর প্রক্রিয়া যেমন সহজ করতে হবে তেমনি নীতির ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে।

করোনা মহামারীর মধ্যেই চলছে অর্থনৈতিক নানা হিসাব নিকাশ। কৌশলগত কারণে কোভিড নাইনটিনের উৎপত্তিস্থল চীন থেকে বিনিয়োগ সরিয়ে নিচ্ছে বিভিন্ন দেশের বহুজাতিক কোম্পানি। এসব বিনিয়োগ টানতে রীতিমতো প্রতিযোগিতায় নেমেছে ভারত, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া,থাইল্যান্ড, মিয়ানমারসহ প্রতিযোগী দেশগুলো।

তৎপরতা শুরু করেছে বাংলাদেশও। তবে, চীন ফেরত বিদেশি বিনিয়োগ কি টানতে পারবে বাংলাদেশ? সন্দিহান মন্ত্রী নিজেই।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, 'আমরা মুখে বেশ কথা বলতে পারি। কিন্তু কাজ করতে আসলে ১ দিনের কাজ একমাসেও হয় না।'

বিশ্লেষকদের মতে, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলাসহ বিনিয়োগের দ্বার খোলা থাকলেও হয়রানিমুক্ত, দীর্ঘ মেয়াদী নীতি কৌশলের অভাবে হোঁচট খাচ্ছে বিদেশি বিনিয়োগ।

বিআইডিএস জ্যৈষ্ঠ গবেষক নাজনিন আমাদের দেশে নিয়মগুলো খুব ঘন ঘন পরিবর্তন হয়। ভ্যাট, ট্যাক্স, এগুলোর নিয়মগুলো। এগুলো কিন্তু ব্যবসা চলাকালীন কি পরিমাণ লাভ হবে তার উপর প্রভাব ফেলে। তা কিন্তু যে কোনো ব্যবসায়ীকে হতাশ করে।'

সিপিডি রিসার্স ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, 'বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে হলে আমাদের কর কাঠামোর মধ্যে একটা স্থিতিশীল আনতে হবে। যারা বিনিয়োগ করতে আসেন তারাতো ১-২ বছরের জন্য বিনিয়োগ করতে আসে না।'

বিদেশি বিনিয়োগে আকর্ষণে বিরোধ নিস্পত্তি এবং অর্থ বা সম্পদ স্থানান্তরের জটিলতাও দূর করতে হবে বলে মনে করেন বিআইডিএস জ্যৈষ্ঠ গবেষক নাজনিন।

কোভিড পরবর্তী সময়ে বেকারত্বের ধাক্কা সামাল দিতে নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে হলে বিনিয়োগ বাড়ানো ছাড়া কোনো বিকল্প নেই বলে মনে করেন ব্যবসায়ী ও অর্থনীতিবিদরা।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়