সম্পূর্ণ নিউজ সময়
আন্তর্জাতিক সময়
১০ টা ৫৭ মিঃ, ১৬ জানুয়ারী, ২০২০

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিনেটে উঠল অভিশংসন প্রস্তাব

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। একে নতুন ইতিহাস আখ্যা দিয়ে সিনেটে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রতিনিধি পরিষদ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। অভিশংসন প্রক্রিয়াকে নগ্ন পক্ষপাত বলে কটাক্ষ করেছেন সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকান দলের নেতা মিচ ম্যাককোনেল। এরমধ্যেই হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, বেআইনি পদক্ষেপ মোকাবিলায় প্রস্তুত ট্রাম্পের আইনজীবীরা।
ওয়েব ডেস্ক

১৮ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে অভিশংসন প্রস্তাব পাস করে প্রতিনিধি পরিষদ। বুধবার সেই প্রস্তাব মার্কিন সিনেটে পাঠানোর জন্য ভোট অনুষ্ঠিত হয়। ২২৮ জন আইনপ্রণেতা পক্ষে রায় দেন। বিপক্ষে দেন ১৯৩ জন। অভিশংসন প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেন প্রতিনিধি পরিষদ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাব পরিচালনার জন্য হাউস ইন্টেলিজেন্স কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডাম স্কিফকে প্রধান করে সাত সদস্যের দলও নির্বাচন করে প্রতিনিধি পরিষদ।

এদিনই আনুষ্ঠানিকভাবে অভিশংসনের প্রস্তাব সিনেটে পৌঁছে দেয়া হয়। ট্রাম্পের পক্ষে নেতৃত্ব দেবেন হোয়াইট হাউসের আইনজীবী প্যাট সিপোলনি এবং জ্যা সেকোলৌ। প্রেসিডেন্টের আইনজীবী প্যানেলে আর কারা থাকছেন, সে বিষয়ে জানা যায়নি। মঙ্গলবার থেকে শুনানি শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছেন সিনেটে রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককোনেল।

মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অভিশংসন প্রক্রিয়া তত্ত্বাবধান করবেন। নিরপেক্ষ বিচার পরিচালনার জন্য সিনেটের ১শ’ সদস্যকেও শপথ পড়াবেন তিনি। রিপাবলিক সংখ্যাগরিষ্ঠ মার্কিন সিনেট ঠিক করবে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দোষী, নাকি ক্ষমতায় বহাল থাকবেন। অভিশংসনকে শুরু থেকেই ধাপ্পাবাজি বলে আসছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

গেলো ২৫ জুলাই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং আসন্ন নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন, তার ছেলে হান্টার বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি তদন্তের জন্য চাপ দেন ট্রাম্প। এ খবর ফাঁস হলে তোলপাড় শুরু হয় মার্কিন রাজনীতিতে। প্রতিনিধি পরিষদ তদন্ত শুরু করলে তাতে বাধা দেয় হোয়াইট হাউস। পরে ট্রাম্পকে অভিশংসন করার জন্য ক্ষমতার অপব্যবহার এবং তদন্তে বাধা দেয়ার অভিযোগ এনে দুটি প্রস্তাব পাস করে প্রতিনিধি পরিষদ। যা মার্কিন ইতিহাসে তৃতীয় অভিশংনের ঘটনা। তবে চূড়ান্তভাবে সিনেট কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টেই ক্ষমতাচ্যুত করেনি।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়