সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাণিজ্য সময়
৩ টা ২৮ মিঃ, ১৩ জানুয়ারী, ২০২০

বগুড়ায় পাইকারিতে কমেছে সবজির দাম

বগুড়ায় পাইকারি বাজারে কমে গেছে সব ধরনের সবজির দাম। সরবরাহ বাড়ায় দাম কমেছে বলে মনে করেন ক্রেতারা। কৃষক বলছেন, আগে দাম ভালো পেলেও এখন এত কম দামে সবজি বিক্রি করলে লোকসানে পড়বেন তারা। কৃষকের ন্যায্য দাম নিশ্চিত করতে হলে এলাকায় সবজির কোল্ড স্টোরেজ করা দরকার বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।
Somoy News
মাজেদুর রহমান

বগুড়ায় মহাস্থান সবজির পাইকারি বাজারে আজ মূলা বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩ টাকায়, নতুন আলু ১৫ টাকায়। কয়েকদিনের ব্যবধানে সব ধরনের সবজির দামও কমেছে কেজি প্রতি প্রকার ভেদে ১০ থেকে ১৫ টাকা। কৃষকের দাবি, কম দামে সবজি বিক্রি করে লোকসান গুনছেন তারা।

এক কৃষক বলেন, আলুর দাম ১৫ টাকা। আর একটা লোক নিতে গেলে তাকে দিতে হয় ৩০০ টাকা। সবকিছু মিলিয়ে লোকসান গুনতে হচ্ছে আমাদের।

বাজারে সবজির সরবরাহ বাড়ায় এমন কম দাম বলে মনে করেন পাইকারি ক্রেতারা।

এক পাইকার বলেন, ফুলকপি কিনেছি ১৫ টাকা পিস এবং শিম এবং আলু কিনেছি ১৫ টাকা কেজি দরে।

আরেকজন বলেন, মৌসুম আসলে দাম তো একটু কমবেই। এখন সব জায়গায় আলু উঠে গেছে।

এ অবস্থায় সবজির কোল্ড স্টোরেজের দাবি কৃষক এবং ক্রেতা উভয়েরই।

এক ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের এখানে একটা ভালো কোল্ডস্টোর হলে আমরা কাঁচামাল কিছু কিনে রেখে দিতাম। তাহলে কৃষকের যেমন লাভ হতো, আমরা ব্যবসায়ীরাও লাভবান হতাম।

জেলার বড় সবজির পাইকারি বাজার মহাস্থান, সুলতানগঞ্জ ও রাজাবাজারে প্রতি কেজি ফুলকপি ১২ টাকা, মূলা ৩, বেগুন ১০, শিম ১২, কাঁচা মরিচ ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে এসব সবজি কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।

© ২০২১ সময় মিডিয়া লিমিটেড
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়