মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
ফাতেমা এ্যানি
আপডেট
০১-১১-২০১৯, ০৬:৫৪

সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ : কোন অপরাধে কী শাস্তি বিস্তারিত

সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ :  কোন অপরাধে কী শাস্তি বিস্তারিত
সর্বোচ্চ ৫ বছর জেল ও ৫ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে শুক্রবার (১ নভেম্বর) থেকে কার্যকর হচ্ছে বহুল আলোচিত সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮। নিয়ম লঙ্ঘনে নতুন আইনের প্রায় সব ধারায় বাড়ানো হয়েছে চালক ও পথচারীদের জেল-জরিমানার পরিমাণ। নতুন আইনে সব ধারায় আগের চেয়ে সাজা বাড়ানো হয়েছে। ফলে আইনটি কার্যকর হলে সড়কে বিশৃঙ্খলা ও দুর্ঘটনা কমে আসবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, আইনে আপাতত কোনো পরিবর্তন বা সংশোধন নেই। সংশোধনের বিষয়টি পরে বিবেচনায় নেওয়া হতে পারে। তবে প্রজ্ঞাপনে সংশোধনের সুযোগ রাখায় আইন কার্যকর নিয়ে সাধারণ মানুষ সন্দিহান রয়েছে। তারা বলছেন, এ সুযোগ রেখে আইন সংশোধন করার পথ রেখে দিল সরকার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, আইনটি কার্যকর করতে শুক্রবার থেকে মাঠে থাকবে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি গাড়ির কাগজপত্র ও ড্রাইভিং লাইসেন্সসহ অন্য সব কাগজপত্র যাচাইয়ে পুলিশেরও তৎপরতা আগের চেয়ে বাড়ানো হবে।

সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮  যে অপরাধে, যে শাস্তি :


ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত মোটরযান ও গণপরিবহন চালনার বিধি-নিষেধ সংক্রান্ত ধারা ৪ এবং ৫ এর লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪ এবং ৫ এর বিধান লঙ্ঘন করেন এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

ড্রাইভিং লাইসেন্স হস্তান্তর সংক্রান্ত ধারা ৬ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৬ এর উপ-ধারা (৫) এর বিধান লঙ্ঘন করেন এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

বিদেশি নাগরিকের এ আইন, বিধি বা প্রবিধানের কোনো বিধান বা লাইসেন্সে প্রদত্ত শর্ত অমান্য সংক্রান্ত ধারা ৯ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো বিদেশি নাগরিক ধারা ৯ এর উপ-ধারা (৩) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

কর্তৃপক্ষ ছাড়া ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রস্তুত, প্রদান বা নবায়নে বিধি-নিষেধ সংক্রান্ত ধারা ১০ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১০ এর বিধান লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ দুই বছর তবে কমপক্ষে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা তবে কমপক্ষে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।


ড্রাইভিং লাইসেন্স স্থগিত, প্রত্যাহার বা বাতিল করা হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির মোটরযান চালানোর ওপর বিধি-নিষেধ সংক্রান্ত ধারা ১২ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১২ এর উপ-ধারা (৩) এর বিধান লঙ্ঘন করেন তাহলে তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

কন্ডাক্টর লাইসেন্স ছাড়া কোনো গণপরিবহণে কন্ডাক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন সংক্রান্ত ধারা ১৪ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১৪ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

মোটরযান রেজিস্ট্রেশন ছাড়া মোটরযান চালনা সংক্রান্ত ধারা ১৬ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১৬ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

ভুয়া রেজিস্ট্রেশন নম্বর ব্যবহার ও প্রদর্শনে বিধি-নিষেধ সংক্রান্ত ধারা ১৭ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১৭ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ দুই বছর তবে কমপক্ষে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা তবে কমপক্ষে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তন বা হস্তান্তরের কারণে হস্তান্তর গ্রহীতার রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত ধারা ২১ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো হস্তান্তর গ্রহীতা ধারা ২১ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাস কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

মোটরযানের ফিটনেস সনদ ছাড়া বা মেয়াদোত্তীর্ণ ফিটনেস সনদ ব্যবহার করে বা ইকোনমিক লাইফ অতিক্রান্ত বা ফিটনেসের অনুপযোগী, ঝুঁকিপূর্ণ মোটরযান চালনা সংক্রান্ত ধারা ২৫ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ২৫ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

ট্যাক্স-টোকেন ছাড়া বা মেয়াদোত্তীর্ণ ট্যাক্স-টোকেন ব্যবহার করে মোটরযান চালনা সংক্রান্ত ধারা ২৬ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ২৬ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

রুট পারমিট ছাড়া পাবলিক প্লেসে পরিবহন যান ব্যবহার সংক্রান্ত ধারা ২৮ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ২৮ এর উপ-ধারা (১) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

বিদেশি নাগরিকের বাংলাদেশে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিজ দেশের মোটরযান/গণপরিবহণের রুট পারমিট গ্রহণ না করা সংক্রান্ত ধারা ২৯ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো বিদেশি নাগরিক ধারা ২৯ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এজন্য তিনি সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

মোটরযানের বাণিজ্যিক ব্যবহার সংক্রান্ত ধারা ৩১ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৩১ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

গণপরিবহনে ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ও নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া দাবি বা আদায় সংক্রান্ত ধারা ৩৪ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৩৪ এর উপ-ধারা (৩) ও (৪) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

কনট্রাক্ট ক্যারিজের মিটার অবৈধভাবে পরিবর্তন বা অতিরিক্ত ভাড়া দাবি বা আদায় সংক্রান্ত ধারা ৩৫ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৩৫ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

মহাসড়কের পার্শ্ববর্তী অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ তাৎক্ষণিক অপসারণ সংক্রান্ত ধারা ৩৭ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৩৭ এর উপ-ধারা (১) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড, বা স্থায়ী স্থাপনার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা এবং অস্থায়ী স্থাপনার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

চাঁদাবাজি নিষিদ্ধকরণ সংক্রান্ত ধারা ৩৮ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৩৮ এর উপ-ধারা (৩) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, তা হলে ওই অপরাধ পেনাল কোড, ১৮৬০ (অ্যাক্ট নম্বর এক্সএলভি অব ১৮৬০) এর অধ্যায়-১৭ এর অধীন চাঁদাবাজি সংক্রান্ত শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হবে।

কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত কোনো মোটরযানের কারিগরি বিনির্দেশ অমান্য সংক্রান্ত ধারা ৪০ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪০ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদণ্ড তবে কমপক্ষে এক বছর বা সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

ট্রাফিক সাইন ও সংকেতের ব্যবহার মেনে চলা সংক্রান্ত ধারা ৪২ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪২ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এজন্য তিনি সর্বোচ্চ ১ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসাবে দোষসূচক ১ (এক) পয়েন্ট কাটা হবে।

অতিরিক্ত ওজন বহন করে মোটরযান চালানো সংক্রান্ত ধারা ৪৩ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৩ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসাবে দোষসূচক ২ পয়েন্ট কাটা হবে।

মোটরযানের গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত ধারা ৪৪ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৪ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

নির্ধারিত শব্দমাত্রার অতিরিক্ত উচ্চমাত্রার কোনোরূপ শব্দ সৃষ্টি বা হর্ন বাজানো বা কোনো যন্ত্র, যন্ত্রাংশ বা হর্ন মোটরযানে স্থাপন সংক্রান্ত ধারা ৪৫ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৫ এর উপ-ধারা (২), (৩) ও (৪) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসাবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

পরিবেশ দূষণকারী, ঝুঁকিপূর্ণ ইত্যাদি মোটরযান চালনার বিধি-নিষেধ সংক্রান্ত ধারা ৪৬ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৬ এর উপ-ধারা (২) ও (৩) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৬ এর উপ-ধারা (৪) এর বিধান লঙ্ঘন (ত্রুটি, ঝুঁকিপূর্ণ ও নিষিদ্ধ যানচালানো) করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

মোটরযান পার্কিং এবং যাত্রী বা পণ্য ওঠানামার নির্ধারিত স্থান ব্যবহার সংক্রান্ত ধারা ৪৭ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৭ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

দ্রুতগতির মোটরযান প্রবেশের ক্ষেত্রে মহাসড়কের ব্যবহার সংক্রান্ত ধারা ৪৮ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৮ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

মোটরযান চলাচলের সাধারণ নির্দেশাবলি সংক্রান্ত ধারা ৪৯ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৯ এর উপ-ধারা (১) এ উল্লিখিত সাধারণ নির্দেশাবলির প্রথম অংশের কোনো বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে, অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৪৯ এর উপ-ধারা (১) এ উল্লিখিত সাধারণ নির্দেশাবলির দ্বিতীয় অংশের কোনো বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

বিস্ফোরক বা দাহ্য পদার্থ মোটরযানে পরিবহন সংক্রান্ত ধারা ৫১ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৫১ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

মোটরযানের মালিক বা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আর্থিক সহায়তা তহবিলে বাৎসরিক বা এককালীন চাঁদা প্রদানের বাধ্যবাধকতা সংক্রান্ত ধারা ৫৩ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৫৩ এর উপ-ধারা (৩) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য কর্তৃপক্ষ তার গণপরিবহণ চালনার অনুমতিপত্র ও রুট পারমিট বাতিল করিতে বা ক্ষেত্রমতে রেজিস্ট্রেশন, ফিটনেস সনদ বা উহার নবায়ন করিতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করতে পারবে এবং তদোতিরিক্ত নির্ধারিত হারে জরিমানা আরোপ করা যাবে।

সড়ক দুর্ঘটনায় আঘাতপ্রাপ্ত ব্যক্তির চিকিৎসা সংক্রান্ত ধারা ৬২ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৬২ এর উপ-ধারা (১) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং চালকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত হিসেবে দোষসূচক ১ পয়েন্ট কাটা হবে।

মোটর ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ স্কুল প্রতিষ্ঠা বা পরিচালনা সংক্রান্ত ধারা ৬৩ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৬৩ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে ওই ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ স্কুল বন্ধ করিতে পারিবে।

মোটরযান মেরামত কারখানা স্থাপন বা পরিচালনা সংক্রান্ত ধারা ৬৪ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ৬৪ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি কমপক্ষে ২৫ হাজার টাকা এবং সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন এবং কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে ওই মোটরযান মেরামত কারখানা সিলগালা করে বন্ধ করতে পারবে।

ওভারলোডিং বা নিয়ন্ত্রণহীনভাবে মোটরযান চালনার ফলে দুর্ঘটনায় জীবন ও সম্পত্তির ক্ষতিসাধনের দণ্ড- যদি নির্ধারিত গতিসীমার অতিরিক্ত গতিতে বা বেপরোয়াভাবে বা ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেকিং বা ওভারলোডিং বা নিয়ন্ত্রণহীনভাবে মোটরযান চালনার ফলে কোনো দুর্ঘটনায় জীবন ও সম্পত্তির ক্ষতিসাধিত হয়, তা হলে সংশ্লিষ্ট মোটরযানের চালক বা কন্ডাক্টর বা সহায়তাকারী ব্যক্তির অনুরূপ মোটরযান চালনা হবে একটি অপরাধ, এবং এজন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন বছর কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। আদালত অর্থদণ্ডের সম্পূর্ণ বা অংশবিশেষ ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে দেয়ার নির্দেশ দিতে পারবেন।

অপরাধ সংঘটনে সহায়তা, প্ররোচনা ও ষড়যন্ত্রের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি এই আইনের অধীন কোনো অপরাধ সংঘটনে সহায়তা করেন বা প্ররোচনা প্রদান করেন বা ষড়যন্ত্র করেন এবং যার ফলে সংশ্লিষ্ট অপরাধটি সংঘটিত হয়, তা হলে ওই সহায়তাকারী, যড়যন্ত্রকারী বা প্ররোচনা প্রদানকারী ব্যক্তি ওই অপরাধ সংঘটনের জন্য নির্ধারিত দণ্ডের সমপরিমাণ দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

একই অপরাধ আবার করার দণ্ড- এই আইনে উল্লিখিত কোনো অপরাধের জন্য দণ্ডভোগকারী একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি করলে, ওই ব্যক্তিকে সংঘটিত অপরাধের জন্য নির্ধারিত সর্বোচ্চ দণ্ডের দ্বিগুণ দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে এবং এটা কোনোক্রমে আগে দেয়া দণ্ডের দ্বিগুণের কম হবে না।

পরিদর্শনে বাধা প্রদান বা প্রদত্ত নির্দেশনা অমান্য সংক্রান্ত ধারা ১১৬ এর উপ-ধারা (২) এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১১৬ এর উপ-ধারা (২) এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

আদেশ পালন ও তথ্য প্রদানে বাধ্যবাধকতা সংক্রান্ত ধারা ১১৮ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১১৮ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

আক্রমণাত্মক আচরণ ও জনরোষ নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত ধারা ১১৯ এর বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১১৯ এর বিধান লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

সরকারের দেয়া আদেশ ও নির্দেশনা সংক্রান্ত ধারা ১২৪ এর অধীন প্রণীত বিধান লঙ্ঘনের দণ্ড- যদি কোনো ব্যক্তি ধারা ১২৪ এর অধীন সরকারের দেয়া কোনো আদেশ বা নির্দেশনা এবং প্রণীত নীতিমালায় দেয়া নির্দেশনা লঙ্ঘন করেন, এ জন্য তিনি সর্বোচ্চ তিন মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

দুর্ঘটনা সংক্রান্ত অপরাধ- এই আইনে যাহা কিছুই থাকুক না কেন, মোটরযান চালনাজনিত কোনো দুর্ঘটনায় গুরুতরভাবে কোনো ব্যক্তি আহত হলে বা তার প্রাণহানি ঘটিলে, তৎসংক্রান্ত অপরাধসমূহ পেনাল কোড, ১৮৬০ এর এ সংশ্লিষ্ট বিধান অনুযায়ী অপরাধ বলে গণ্য হবে-

তবে শর্ত থাকে যে, পেনাল কোড, ১৮৬০ এর ধারা ৩০৪-বি এ যাহা কিছুই থাকুক না কেন, কোনো ব্যক্তির বেপরোয়া বা অবহেলাজনিত মোটরযান চালনার কারণে সংঘটিত দুর্ঘটনায় কোনো ব্যক্তি গুরুতরভাবে আহত হলে বা তার প্রাণহানি ঘটলে, ওই ব্যক্তি সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

কোম্পানি অপরাধ সংঘটন- কোনো কোম্পানি এই আইনের অধীন কোনো অপরাধ করলে ওই অপরাধের সঙ্গে প্রত্যক্ষ সংশ্লিষ্টতা রয়েছে ওই কোম্পানির এমন মালিক, পরিচালক, নির্বাহী কর্মকর্তা, ব্যবস্থাপক, সচিব, অন্য যেকোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারী ওই অপরাধ সংঘটন করেছেন বলে গণ্য হবেন। যদি না তিনি প্রমাণ করিতে পারেন যে, ওই অপরাধ তার অজ্ঞাতসারে হয়েছে এবং এটা রোধ করার জন্য তিনি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
পারিবারিক কলহের জেরেই জার্মানীতে এক পরিবারের ৬ জনকে হত্যা জমে উঠেছে লা লিগার শিরোপার লড়াই টানা জয়ে ইতিহাস গড়লো লিভারপুল সাকিব-জামাল ভূঁইয়াকে পেছনে ফেলে বিএসপিএ বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ রোমান সানা অ্যাথলেটিক্সে সফলতা না আসার পেছনে দায়ী পরিকল্পনার অভাব পাকিস্তান টেস্ট সিরিজে ভালো করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন পেসাররা লাহোর উইকেট নিয়ে অসন্তোষ মাহমুদউল্লাহর দাফনের ৭ দিন পর কবর থেকে দুই শিশুর মৃতদেহ উত্তোলন ট্রাকের মধ্য থেকে দুই যুবকের রহস্যময় লাশ উদ্ধার কুড়িগ্রামে ২২ দিনব্যাপী প্রগতি ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতা আবারও মা হচ্ছেন ঐশ্বরিয়া? খালিয়াজুরীতে হামলার ঘটনায় আগ্নেয়াস্ত্রসহ আটক ১ মোবাইল ফোনে পদ্মা সেতুর ভিডিও করলেন প্রধানমন্ত্রী (ভিডিও) চুল কাটার সিরিয়ালের জেরে ব্যবসায়ীকে হত্যা করলো যু্বলীগ সভাপতি ‘সৈকত সাংস্কৃতিক উৎসব ২০২০’ শরণখোলায় ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা টাঙ্গাইলে ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব তৃণমূলের নতুন কর্মসূচি, ১৮ দিনের গণআন্দোলন অব্যহত জার্মানিতে বন্দুকের গুলিতে একই পরিবারের ৬ জন নিহত চেনা উপসর্গের আড়ালে হানা দিচ্ছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মালয়েশিয়ায় ‘প্রবাসী গাও জীবনের গান’র গ্র্যান্ড ফিনালে রোববার জাহাজে চাপা পড়া ২ শ্রমিকের মরদেহ ২৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকলে বিনিয়োগে আগ্রহী জাপান ও থাইল্যান্ডের ব্যাংক কিশোরগঞ্জে ২০ রত্নগর্ভা মা’কে সম্মাননা প্রদান সেই মঞ্জুর শাহরিয়ার এবার ধারাবাহিক নাটকে বন্দুকযুদ্ধে নাটোর ও কক্সবাজারে নিহত ২ ‘কোন সিপাহির বাঁশির হুইসেলে এ দেশ স্বাধীন হয়নি’ রেলওয়েতে যুক্ত হচ্ছে ৬৪ কিলোমিটার নতুন লাইন হত্যার সুষ্ঠু বিচারের পাশাপাশি দ্রুত লাশ ফেরত দেয়ার দাবি স্বজনদের শেষ ওভারে জয় তুলে নিলো পাকিস্তান বান্দরবানে ৪টি পপি ক্ষেত ধ্বংস, ৬০ কেজি রস উদ্ধার একলগে পাঁচজনের লগে প্রেম কইরো না: রাষ্ট্রপতি কুষ্টিয়ায় একইস্থানে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সমাবেশ, ১৪৪ ধারা জারি পুড়ে যাওয়া স্কুলে বই-পেন্সিল খুঁজছে চলন্তিকা বস্তির শিশুরা এহসান আলীকে ফেরালেন বিপ্লব ২৭ জানুয়ারি ইশতেহার ঘোষণা করবেন ইশরাক ৩১ জানুয়ারি বাংলাদেশে ‘রবিবার’ শৈশবে ধর্ষণের শিকার হয়েছি: রাহুল রামকৃষ্ণ শুরুতে শফিউলের আঘাত আবারো আসছে বৃষ্টি, কমবে তাপমাত্রা ভারতকে ‘ধোলাই’র স্মৃতিচারণ ইমরান খানের ‘খালেদা জিয়া অসুস্থ, বমি করছেন’ সিরিয়ায় ৪০ সেনাকে হত্যা বড় স্কোর গড়তে ব্যর্থ বাংলাদেশ ইরাকে বিক্ষোভ অব্যহত সন্তান জন্ম দিতে যাওয়া যাবে না যুক্তরাষ্ট্রে মানিকগঞ্জে রাস্তা ভরাটের দাবিতে মানববন্ধন বিলম্বিত ব্রেক্সিট বিলে অনুমোদন দিয়েছেন রানি ট্রাম্পের অপকর্মের প্রমাণ উপস্থাপন নিজের ‘নীল ছবি’ শেয়ার করলেন পরিণীতি পার্ক সার্কাসে আন্দোলনের ১৭ দিন, কমেনি উত্তেজনা মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশের ঘোষণা ট্রাম্পের ‘সাত দশক পর উপলব্ধি করলাম ভারতে মুসলিম হিসেবে থাকতে পারি না’ কাসেম সোলাইমানির উত্তরসূরিকেও হত্যা করবে যুক্তরাষ্ট্র ন্যায়বিচারের জন্য আরও অনেক দূর যেতে হবে : গাম্বিয়া ঈদের আগেই হাজির হচ্ছেন ববি দুই রানআউটে বিপদে বাংলাদেশ চট্টগ্রামে বস্তিতে আগুন, পুড়ে গেছে আড়াইশো ঘর স্মরণশক্তি বাড়ানোর উপায় আদা-রসুন-মধু গরম পানির সঙ্গে খেলে কী হয়? ধীরগতি ব্যাটিংয়ে টাইগারদের অর্ধশতক বিএনপির কারণেই ইভিএম আনা হয়েছে : আইনমন্ত্রী নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই অপপ্রচার চালাচ্ছে বিএনপি যখন তখন চলতো গৃহকর্ত্রীর অমানুষিক নির্যাতন, দাবী গৃহকর্মীদের অস্ট্রেলিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত: ৩ মার্কিনি নিহত যে একাদশ নিয়ে মুখোমুখি বাংলাদেশ-পাকিস্তান প্রার্থীদের শারীরিকভাবেও আক্রমণ করা হচ্ছে: ফখরুল টস জিতল বাংলাদেশ সোলাইমানি হত্যার নিন্দা জানানোয় কসভোতে মুসলিম নারীর কারাদণ্ড ছুটির দিনেও চলছে প্রচারণা সিরিজটা পাকিস্তানের জন্য কঠিন হবে: বাবর আজম কেন বাড়ছে সীমান্ত হত্যা? করোনা ভাইরাস ঠেকাতে বেনাপোলে সতর্কতা গোল মিসের খেসারত দিতে হয়েছে বাংলাদেশকে: জেমি ডে সিলেটগামী পারাবত ট্রেনের বগিতে আগুন ইতিহাসের ব্যর্থ রাজনৈতিক দল বিএনপি: কাদের পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজ জিতবে বাংলাদেশ: সুজন নতুন রেল স্টেশন পরিদর্শন করলেন রেলমন্ত্রী বাগেরহাটে সন্তানের বিরুদ্ধে মা-বাবার সংবাদ সম্মেলন টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা মার্চে বাগেরহাটের প্রাথমিক শিক্ষকদের পেনশন হবে অনলাইনে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ আনিুসল হকের কবর জিয়ারত করলেন তাবিথ-ইশরাক টাইগারদের গাড়িকে পাহার দিল ১০ হাজারের বেশি পুলিশ অষ্টম শ্রেণী পাসে বাংলাদেশ পুলিশে চাকরি গ্যালারিতে বান্ধবীকে চুম্বন, স্ক্রীনে দেখাতেই স্ত্রীর কাছে ধরা স্বামীর পরকীয়া খাসির কেজি ৯০০ টাকা বাহুবলে বাস উল্টে প্রাণ গেল ৩ জনের অস্বচ্ছতা-বিশৃঙ্খলাই পুঁজিবাজারের দুরবস্থার কারণ পর্যটনের অপার সম্ভাবনা চর কুকরী-মুকরী ফাইভ-জি বহুদূর... গানপাউডার ও ককটেলসহ জামায়াত-শিবিরের ১৬ কর্মী আটক টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী ছবিতে কেওক্রাডংয়ের পপিক্ষেতে র‍্যাবের অভিযান গুলিতে তিন বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ এমন নিরাপত্তা কখনও দেখেননি মাহমুদউল্লাহ ফেসবুকে স্ত্রীর জনপ্রিয়তা বেশি, তাই পাথর দিয়ে থেঁতলে হত্যা করোনা ভাইরাসে জনশূন্য উহান, আতঙ্কে বিশ্ব ধর্ষকদের সঙ্গে ইন্দিরাকে চার দিন জেলে রাখা উচিত: কঙ্গনা
আরও সংবাদ...
ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার আলমকে শোকজ আসছে আরো শক্তিশালী শৈত্যপ্রবাহ দীর্ঘতম রাত আজ ইরানের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রকে কড়া হুঁশিয়ারি রাশিয়ার এবার দুবাইয়ে হামলা করবে ইরান! ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কুয়েত ছাড়ছে মার্কিন সেনাবাহিনী আমার বয়স ৩৭ বছর: জয়া আহসান ইয়াবা সেবনে স্বর্ণার মৃত্যু, ধর্ষণের আলামতও সংগ্রহ বাড়ি ফেরার পথে স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ অতিরিক্ত ডিম খাওয়া ধূমপানের চেয়েও ক্ষতিকর! প্রধানমন্ত্রীর ফুফার নামও রাজাকারের তালিকায় বাবা তাহসানকে চিনতে ভুল করল না আইরা মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের হামলায় ১১ দেশের প্রতিক্রিয়া ১৩ কোম্পানির ১৫ পণ্য নিষিদ্ধ, উৎপাদন-মজুদও বন্ধ আকাশে গায়েব হয়ে গেলা বিপিএলের ড্রোন! ছাগলে খেয়েছে ডেসটিনির ৩৫ লাখ গাছ! ফেসবুক তৈরি করাটাই ছিল ‘ভয়ংকর ভুল’: জাকারবার্গ ব্যাপক হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইরান, যুদ্ধের দামামা শীতে বিয়ের ৭ সুবিধা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার ইরান সীমান্তবর্তী আফগান প্রদেশে যুক্তরাষ্ট্রের হামলা, নিহত ৬০ নষ্ট মোবাইল সেট জমা দিলেই পাবেন টাকা! সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনার ভিডিও প্রকাশ যেসব ফোনে বন্ধ হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ পেনড্রাইভ থেকে সরাসরি প্রকাশ করায় তালিকায় ভুল: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ারিং পড়েও খামারি আতিকুল, মাসে আয় ১০ লাখ টাকা মায়ের সামনেই তরুণীর ওড়না ধরে টানলেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি ভিপি নুরের উপর হামলা অস্ট্রেলিয়ায় ১০ হাজারেরও বেশি উট গুলি করে মারার সিদ্ধান্ত গ্রেফতার ব্যক্তিই ‘ধর্ষক’, শনাক্ত সেই ঢাবি শিক্ষার্থীর অপহরণের পর পিস্তল ঠেকিয়ে যুবককে বিয়ে করলেন তরুণী শিক্ষার্থী ধর্ষণের সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়া গেছে : ডিসি গুলশান জোন স্নাইপার দিয়ে ট্রাম্পকে হত্যার চেষ্টা, ভিডিও প্রকাশ তালিকাটি রাজাকারের নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ২৬ ডিসেম্বর বিরল সূর্যগ্রহণ দেখবে বিশ্ববাসী মহাকাশে পাওয়া গেলো এলিয়েনের লাইভ ভিডিও নুর আহত নাকি নিহত ডাজেন্ট ম্যাটার: রাব্বানী (ভিডিও) মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কোনো কাজেই আসেনি এক নজরে আওয়ামী লীগের নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটি ইতালি ছাড়ছে দৈনিক ৫০০ প্রবাসী, রয়েছে বাংলাদেশিরাও নুসরাত ফারিয়ার ভিডিও ভাইরাল স্বামী-স্ত্রীর পরকীয়া ধরা পড়ল কক্সবাজারে (ভিডিও) ইতালিতে অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হবার সুযোগ শীঘ্রই যেকোনো পরিস্থিতিতে ইরানের পাশে আছে তুরস্ক: এরদোয়ান ঢামেকে নেওয়া হয়েছে ভিপি নুরসহ ২২ শিক্ষার্থীকে মিসাইল হামলায় ৮০ মার্কিন সেনা হত্যার দাবি ইরানের কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের গুলিতে র‌্যাবের ২ সদস্য গুলিবিদ্ধ ইরানের পক্ষে-বিপক্ষে যেসব দেশ শিক্ষার্থীকে আটকে রেখে গণর্ধষণ: ছাত্রলীগের সহ-সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩ ইরা‌নি হামলা নি‌য়ে সংবাদ স‌ম্মেল‌নে ট্রা‌ম্পের গলা কাঁপ‌ছি‌লো!
আরও সংবাদ...


Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TVEnglish DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে