সম্পূর্ণ নিউজ সময়
মহানগর সময়
১১ টা ৩৩ মিঃ, ২২ আগস্ট, ২০১৯

দূতাবাসে নারী কেলেঙ্কারি, তদন্ত ছাড়াই নির্যাতিতাকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত!

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ছাড়াই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্যাতিত এক নারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ছাড়াই বরখাস্তের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রিট করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ল-ইয়ারর্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএলএ)।
শতরূপা দত্ত

তদন্তাধীন বিষয়ের তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত বিভাগীয় মামলার পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ না করার আবেদন জানিয়ে ১৯ আগস্ট রিটটি করা হয়। বাংলাদেশ ন্যাশনাল ল-ইয়ারর্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএলএ)-এর পক্ষে রিটটি (রিট নং: ৯০৭৯) করেন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফউজিয়া করিম ফিরোজ।

এর আগে, সময় সংবাদের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে উঠে আসে ওই নারী কর্মকর্তার ওপর নির্যাতনের ধারাবাহিক কাহিনী। মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ নুরে আলম যখন টোকিওতে কর্মরত ছিলেন তখন দূতাবাসের ওই নারী কর্মকর্তাকে যৌন হয়রানি করেছিলেন। ২০১৫ সালে ওই নারী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরে আলমের বিরুদ্ধে পররাষ্ট্র সচিবের কাছে লিখিত অভিযোগও করেছিলেন।

জানা যায়, ১২ জুন ২০১৫ তারিখে ওই নারীকে গর্ভকালীন অবস্থায় শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার হুমকি দেন মোহাম্মদ নুরে আলম। সে সময় ওই নারী কর্মকর্তা পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকের কাছে লিখিত অভিযোগও করেন। কিন্তু সেই অভিযোগের কোনো তদন্ত হয়নি বলে জানায় মন্ত্রণালয় সূত্র। পরবর্তীতে ওই নারীকে টোকিও মিশন থেকে মুম্বাই মিশনে বদলী করে দেয়া হয়।

আরো জানা যায়, সেখানে তৎকালীন ডেপুটি হাইকমিশনার সামিনা নাজ ও তার পৃষ্ঠপোষকতাকারী একটি পক্ষের অঙ্গুলী-হেলনে তাকে মিশন কক্ষে আটকে রেখে শারীরিক-মানসিক নির্যাতন করা হয়। নির্যাতনের শিকার হয়ে ওই নারীকে গুরুতর অবস্থায় মুম্বাই হাসপাতালের আইসিইউতে ৫ দিন ভর্তি থাকতে হয় বলে জানায় সূত্রটি। পরে অসুস্থ অবস্থাতেই নিজের চেষ্টায় দেশে ফিরে আসেন তিনি।

১৮ জুলাই এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন সময় সংবাদে প্রকাশিত হয়। তাতে জানা যায়, এই নির্যাতনের ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য সামিনা নাজের সহযোগী একটি পক্ষ ওই নারী কর্মকর্তাকে মানসিক ভারসাম্যহীন প্রমাণ করার চেষ্টা করে। এজন্য তারা নকল মেডিকেল সার্টিফিকেটও প্রস্তুত করে। পরে নির্যাতিতার মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। নিরপেক্ষ মেডিকেল বোর্ড তাকে মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ বলে প্রতিবেদন দেন।

সূত্র জানায়, পরে ওই নারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে একটি হয়রানিমূলক বিভাগীয় মামলা শুরু করা হয় যে মামলার কোনো অভিযোগকারী নেই। এছাড়াও তদন্তকারী কর্মকর্তা কর্তৃক প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ না করার নির্দেশ, নির্যাতিতার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের হুমকি, মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে পারিবারিক জীবন ধ্বংসের হুমকি দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়। পরে তাকে চাকরি থেকে অপসারণের সাময়িক সিদ্ধান্ত নিয়ে চিঠিও দেয়া হয়। পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে না পারলেও ওই নারী কর্মকর্তার পোস্টিং ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বন্ধ রাখা হয়।

আরেকটি সূত্র থেকে জানা যায়, গত ২৩ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে হাইকোর্টের নির্দেশনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ কমিটি গঠিত হওয়ার পর ওই নারী কর্মকর্তা এই কমিটির কাছে নুরে আলমের হয়রানির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

সূত্রটি জানায়, অভিযোগ কমিটি যখন তদন্ত শেষ করে এনেছে তখনই নুরে আলমের পক্ষ থেকে কমিটি প্রধানের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হয় তদন্ত বন্ধ করার জন্য। কমিটি প্রধান অসম্মত হলে গত ২৭ জুন ২০১৯ তারিখে রাতারাতি কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। অভিযোগ রয়েছে, নতুন তদন্ত কমিটি গঠন করার সময় হাইকোর্টের ৮টি নির্দেশনাকে পরিবর্তন এবং ৫ টি নির্দেশনাকে অগ্রাহ্য করা হয়েছে।

এছাড়াও, ভারতের আসামে একজন ভারতীয় নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে অ্যাসিস্টেন্ট হাইকমিশনার কাজী মুনতাসির মোর্শেদ। এ বিষয়ে গত ১৫ জুন সময় সংবাদে একটি প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়েছিল। মন্ত্রণালয়ের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মোহাম্মদ নুরে আলম ও কাজী মুনতাসীর মুর্শেদের নারী কেলেঙ্কারি কথা জানা সত্ত্বেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কিছু ব্যক্তি তাদের পক্ষ নিচ্ছেন। নারী নির্যাতনকারীর পক্ষ নিয়ে তারা তাদের বাঁচানোর এবং এসব ঘটনা ধামাচাপা দেবার চেষ্টা করছেন বলে জানান এই কর্মকর্তারা।

জানা যায়, সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশের পর ওই নারী কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করতে উঠে-পড়ে লেগেছে নারী নির্যাতনকারীদের পক্ষ নেয়া ওই গোষ্ঠীটি। তাকে বরখাস্ত করতে আবারো চিঠি পাঠিয়েছে তারা। এই পরিস্থিতিতে নির্যাতিতা ওই নারী কর্মকর্তা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও জানিয়েছে সূত্র।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়