সম্পূর্ণ নিউজ সময়
মহানগর সময়
২২ টা ১ মিঃ, ১০ জুলাই, ২০১৮

রংপুরে অবৈধ ইটভাটার গ্যাসে নষ্ট হচ্ছে ফসল

রংপুরে ইটভাটা স্থাপনের হিড়িক পড়েছে। অবৈধভাবে গড়ে ওঠা শত শত ভাটা থেকে নির্গত গ্রিনহাউস গ্যাসের ঝুঁকিতে পড়েছে জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশ। ক্ষতিগ্রস্তরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দিকে আঙুল তুলে বলছেন, এই ধ্বংসযজ্ঞ চলছে তাদের নজিরবিহীন নীরবতায়।
রতন সরকার


কৃষিজমি ধ্বংস করে স্থাপিত একেকটি ইটভাটায় প্রতিদিন পুড়ছে শত শত গাছ। আগুনের উত্তাপ আর নির্গত গ্যাসে জ্বলে যাচ্ছে আশেপাশের ফসলের জমি। ইট তৈরি জন্য উপরিভাগ থেকে মাটি সংগ্রহ করায় উর্বরা হারাচ্ছে জমি। ক্ষতির বাইরে নয় জনস্বাস্থ্য।

বারবার আকুতি জানিয়েও প্রতিকার নাই। তাই ক্ষেতের কৃষক নামে রাজপথে। কর্তৃপক্ষের নীরবতা ভাঙতে তাদের যত ক্ষোভ।  

স্থানীয়রা বলেন, 'একটি ওয়ার্ডে  ৫০টি ভাটা আছে। ডিসি সাহেব কিভাবে এটার অনুমতি দিচ্ছেন। কালো ধোয়ার জন্য ধান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমাদের দাবি হচ্ছে, ভাটার সংখ্যা কমানো হোক।’

ভাটা স্থাপনে পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রত্যয়নই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অবাক করা কথা শুনিয়েছেন রংপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মেজবাবুল আলম। তিনি বলেন, ‘এই অফিসে আসার পরে আমি কোনো তালিকা পায় নি। তালিকা প্রস্তুতির কাজ চলছে।’

সদ্য যোগ দেয়া জেলা প্রশাসক বাস্তবতা স্বীকার করে বরাবরের মতো শিগগিরই ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেন রংপুরের জেলা প্রশাসক এনামুল হাবিব। তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি কিছু ইটভাটার কোনো বৈধ কাগজ নেই। আমরা সেই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

আবাদী জমি, জনস্বাস্থ্য, বন ও পরিবেশ রক্ষায় ২০১৩ সালের ইটভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইনে প্রতিটি শর্তভঙ্গের জন্য কারা ও অর্থদণ্ডের বিধান আছে। আইনের প্রয়োগ নাই বলে কেবল এই জেলাতেই সকল শর্ত ভঙ্গ করে চলছে ২৮৩টি ইটভাটা। জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী এসব ভাটার মাত্র ৫১টির অনুমোদন ছিলো এক সময়।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়