মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
শাশ্বত সত্য
আপডেট
২৩-০৪-২০১৮, ১৪:০৮

ধান ক্ষেতে মাছ চাষ, দুই ফসলেই অর্থপ্রাপ্তি

ধান ক্ষেতে মাছ চাষ, দুই ফসলেই অর্থপ্রাপ্তি
কৃষি প্রযুক্তি দিন দিন উন্নত হচ্ছে। এখন কেউ এক ফসল ঘরে তোলে না। সাথী ফসল চাষ করে দুই ফসল বা তিন ফসলের লাভ পায় কৃষকেরা। ঠিক তেমনই একটি নতুন পদ্ধতি ধান ক্ষেতে মাছ চাষ। জমিতে ধান চাষ করতে গেলে পানি লাগেই। আর এই পানি ব্যবহার করে মাছ চাষ সম্ভব। শুধু মানতে কিছু নিয়ম। আর এই প্রতিবেদনটি তাদের জন্যে যারা ধানের পাশাপাশি মাছ চাষ করে বাড়তি আয় করতে চান। সেই সঙ্গে নিজের মাছ উৎপাদন করার ভাল লাগাটায় আলাদা কিছু। আমন ও বোরো মৌসুমে ধানের সাথে কার্প জাতীয় মাছ ও গলদা চিংড়ি চাষ করা যায়। বছরে এ চাষ দুইবার করা সম্ভব। হাওড় অথবা নিচু জমিতে বোরো মৌসুমে ধানের সাথে মাছ চাষের যথেষ্ট সুযোগ আছে। সেচ ব্যবস্থা থাকলে উঁচু জমিতেও ধানের সাথে চাষ করা যায়। 
 


জমি নির্বাচন : যেসব জমিতে সারা বছর কিংবা কমপক্ষে ৪ থেকে ৬ মাস পানি থাকে বা ধরে রাখা যায় সেসব জমিতে ধানের সাথে অথবা ধানের পরে মাছ চাষের উপযোগী। জমির অংশ বিশেষ একটু বেশি নিচু অথবা জমির ভেতরে নালা কিংবা গর্ত আছে সেসব জমি গলদা চাষের জন্য বেশি উপযোগী। এঁটেল বা দো-আঁশ মাটির ধানক্ষেত সবচেয়ে ভালো। জমি বন্যামুক্ত হতে হবে। ধানক্ষেতের কাছাকাছি পানি সরবরাহ ও নির্গমন ব্যবস্থা থাকতে হবে। 


 জমির আইল তৈরি বা মেরামত : জমির আইল শক্ত, মজবুত ও উঁচু করতে হবে। আগে থেকে আইল বাঁধা থাকলে তা মেরামত করে নিতে হবে। জমির-তলা সমতল করতে হবে। সাধারণ বন্যায় যে পরিমাণ পানি হয় তার চেয়ে ৫০-৬০ সেন্টিমিটার উঁচু করে আইল তৈরি করা উচিত। মাছ ও গলদা চাষের জন্য পানির গভীরতা চাষ এলাকায় কমপক্ষে ১ মিটার হলে ভালো হয়। আইলের পাশে গোড়ার দিকে ৫০ সেন্টিমিটার এবং ওপরের দিকে ৩০ সেন্টিমিটার।


গর্ত বা নালা বা খাল খনন : ধানক্ষেতে মাছ ও গলদা চাষের জন্য আইল বা বাঁধের চারপাশে ভেতরের দিকে খাল অথবা সুবিধাজনক স্থানে এক বা একাধিক ডোবা বা গর্ত নির্মাণ করতে হবে।
 


জমির ঢালুর দিকে গর্ত বা ডোবা খনন করা উত্তম। মোট জমির শতকরা ১৫ ভাগ এলাকায় ডোবা ও নালা করতে হয়। ডোবা বা নালার গভীরতা ৫০-৬০ সেন্টিমিটার হলে ভালো হয়। ডোবার সাথে নালার সংযোগ থাকতে হবে। আইল থেকে নালা ১২০ সেন্টিমিটার দূরে থাকবে। নালা প্রশস্থ এবং হেলানোভাবে/ঢালু করে কাটতে হবে। মাছ বেশিরভাগ সময় এসব নিচু এলাকায় থাকবে এবং রাতে খাদ্য গ্রহণকালে কম পানি এলাকায় চলে আসবে। এ সব নিচু এলাকায় বা খালে পর্যাপ্ত পরিমাণে আশ্রয় স্থান তৈরি করে দিতে হবে। বর্ষার সময় ক্ষেত থেকে অতিরিক্ত পানি বের করার জন্য আইলের এক বা একাধিক স্থানে নির্গমন নালা রাখতে হবে। তলা থেকে ৩৫ সেন্টিমিটার উঁচুতে এ নালা করলে ক্ষেতে প্রয়োজন পরিমাণ পানি থাকবে। নির্গমন নালায় ৫ ইঞ্চি প্লাস্টিকের পাইপ বসিয়ে পাইপের মুখে তারের জাল দিতে হবে যাতে মাছ ও চিংড়ি বের না হতে পারে। 


৪. জমি তৈরি মাছের জন্য : ধানক্ষেতের উঁচু এলাকা ধানের জন্য এবং নিচু এলাকা গলদার জন্য উপযুক্তভাবে তৈরি করতে হবে। ধানের পরে গলদা চাষ করলে একইভাবে জমি তৈরি করতে হয়। প্রথমে জমির পানি নিকাশ করে শুকাতে হয়। প্রতি শতকে ১ কেজি হারে চুন প্রয়োগ করতে হবে। প্রয়োজনে হালকা সেচ দেয়া যেতে পারে। প্রতি শতকে ৫ কেজি হারে জৈব সার প্রয়োগ করতে হবে। ধাপে ধাপে পানি সরবরাহ করা। প্ল্যাঙ্কটন উৎপাদনের জন্য নিয়মিত সার প্রয়োগ করতে হবে।


জমি তৈরি ধানের জন্য : জমিতে প্রয়োজনমতো পানি দিয়ে ৩-৪টি চাষ ও মই দিয়ে মাটি থকথকে কাদাময় করতে হবে। জমি মই দিয়ে সমতল করতে হবে। ময়লা আবর্জনা আগাছা পরিষ্কার করতে হবে।



সার প্রয়োগ : সারের পরিমাণ ধানের জাতের ওপর নির্ভরশীল। উফশী জাতে যে পরিমাণ সার দিতে হয় গলদা চাষের জন্য এর চেয়ে ১৫% বেশি সার দিলে ভালো হয়।
 

সারণি : প্রতি হেক্টরে সারের পরিমাণ (কেজি)

সারের নাম  অনুমোদিত মাত্রা     ১৫% বাড়তি        মোট পরিমাণ       প্রয়োগ সময়

ইউরিয়া         ২০০                 ৩০                  ২৩০             তিন কিস্তিতে

টিএসপি        ১২০                  ১৮                  ১৩৮              শেষ চাষ

এমওপি         ৮০                   ১২                   ৯২               শেষ চাষ

জিপসাম        ৬০                    ৯                    ৬৯               শেষ চাষ


 ইউরিয়া ছাড়া অন্য সব সার সম্পূর্ণ জমি তৈরির শেষ চাষের সময় মাটিতে মিশিয়ে দিতে হয়। ইউরিয়া সমান তিনভাগ করে ধান রোপণের ১৫, ৩০ ও ৫৫ দিন পর ছিটিয়ে দিতে হবে। উপরি-প্রয়োগের সময় চিংড়িগুলো গর্ত ও নালায় নিয়ে যাওয়া প্রয়োজন।


ধানের জাত নির্বাচন : বোরো মৌসুমের জন্যÑ বিআর-১, বিআর-২, বিআর-৩, বিআর-৭, বিআর-৮, বিআর-৯, বিআর-১২, বিআর-১৪, বিআর-১৮, ব্রিধান-৩৫, ব্রিধান-৪৭ ও ব্রিধান-৫৫। আমন মৌসুমের জন্যÑ বিআর-৩, বিআর-৪, বিআর-১০, বিআর-১১, বিআর-২২, বিআর-২৩, ব্রিধান৪০, ব্রিধান৪১, ব্রিধান৪৪ ও ব্রিধান৫৬।
 

চারা রোপণ : কমপক্ষে এক মাস বয়সের চারা লাগানো দরকার। ধানের লাইন থেকে লাইনের দূরত্ব প্রায় ২৫ সেন্টিমিটার এবং লাইনে গোছার দূরত্ব প্রায় ১৫ সেন্টিমিটার হয়ে থাকে। এরূপ ২/৩টি করে চারা-মুক্ত গোছাগুলো রোপণ করা যেতে পারে; তবে আরও ভালো হয় জোড়ায় জোড়ায় সারিগুলো স্থাপন করলে। জোড়ার ভেতরে সারি দুটির দূরত্ব কমিয়ে বা ১৫ সেন্টিমিটার করে, এক জোড়া থেকে অপর জোড়ার দূরত্ব বাড়িয়ে ৩৫ সেন্টিমিটার করা যায়। এতে মাছ ও চিংড়ির চলাফেরা সুবিধা হবে এবং পানিতে প্রচুর সূর্যালোক পড়বে। এভাবে মাছ ও চিংড়ির খাদ্য দ্রুত বৃদ্ধি পেয়ে তার দৈহিক বৃদ্ধি দ্রুততর হবে।


পানি সরবরাহ : নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাঁওড় থেকে ছেঁকে পানি সরবরাহ করলে ভালো হয়। প্রথম অবস্থায় ৫-৬ সেন্টিমিটার পানি সরবরাহ করতে হয়। পরে ধান বৃদ্ধির অবস্থা অনুসারে পানি সরবরাহ করতে হয়। চারা রোপণের ১০-১৫ দিন পর ১০-১৫ সেন্টিমিটার পানি সরবরাহ করে মাছ ও চিংড়ির পোনা ছাড়তে হবে।


পোনা মজুদ : মাছ ও চিংড়ির পোনা ধানক্ষেতে ছাড়ার জন্য যেসব বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে-
পোনা ছাড়া ও মজুদের হার : ধানক্ষেতে শুধু চিংড়ির চাষ করতে হেক্টর-প্রতি ১০-১৫ হাজার পোনা ছাড়া যেতে পারে। প্রতি শতকে ৫০-৬০টি পোনা ছাড়তে হয়। পোনা কমপক্ষে ৫ সেন্টিমিটার লম্বা হওয়া উচিত। মাছ চাষের ক্ষেত্রে প্রতি শতকে রাজপুটি, নাইলোটিকা ও মিররকাপ ১০-১৫টি পোনা ছাড়তে হয়।


পোনা ছাড়ার নিয়ম : ক্ষেতে ধান রোপণের ২০-২৫ দিন পর চিংড়ির পোনা ছাড়া হয়। জমিতে ধানের চারা লেগে গিয়ে বেশ কিছুটা বেড়েছে এমন পর্যায়ই পোনা ছাড়া উপযুক্ত। কারণ খালি বা খোলা জমিতে পোনা না ছাড়াই ভালো। জমিতে পোনা ছাড়ার সবচেয়ে ভালো সময় সকাল ও বিকাল বেলা। যে পাত্রে পোনা আনা হয় তা ক্ষেতের পানিতে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখার পর যখন ক্ষেতের ও পাত্রের পানির তাপমাত্রা সমান হয় তখন পাত্রটি কাত করে আস্তে আস্তে পোনা ছাড়তে হবে। তাহলে পোনাগুলো তাপে কোনো আকস্মিক পরিবর্তনের শিকার হবে না।


পরিচর্যা : ধানক্ষেতে মাছ ও চিংড়ি চাষে কোনো বাড়তি খাবার না দিয়েও মাছ ও চিংড়ি উৎপাদন হতে পারে। মাছ ও চিংড়ি ধানক্ষেতের শ্যাওলা, পোকামাকড়, কিড়া ও পচনশীল দ্রব্যাদি খেয়ে থাকে। তবে কিছু খাবার প্রয়োগ করলে উৎপাদন বৃদ্ধি পায়। এর জন্য শুরুতে চালের কুঁড়া ও গোবর ১ঃ৩ অনুপাত মিশিয়ে বল আকারে হেক্টর-প্রতি ১০ কেজি পরিমাণে প্রতি ৭ দিন পরপর গর্তে দিতে হবে। মাছ ও চিংড়ি ছাড়ার মাস খানেক পর থেকে, মোট মাছ ও চিংড়ির ওজন অনুমান করে ওজনের ৩-৫% হারে খৈল ও ভুসি বা কুঁড়া ১ঃ১ অনুপাতে মিশিয়ে একদিন পরপর গর্তে প্রয়োগ করতে হবে। এ উদ্দেশ্যে খৈল একরাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে গমের ভুসি বা চালের কুঁড়ার সাথে মিশিয়ে বল আকারে বিকালে কয়েকটি নির্দিষ্ট স্থানে রাখতে হবে।


ধানের পরিচর্যা : ধানক্ষেতের বিভিন্ন পরিচর্যা, যেমন- আগাছা দমন, ইউরিয়া উপরি-প্রয়োগ, পর্যায়ক্রমে জমি শুকানো ও ভিজানো কাজগুলো প্রচলিত পদ্ধতিতে করা যায়। সারের উপরি-প্রয়োগের সময় যেন পরিখা বা গর্তে পানি থাকে, কিন্তু জমিতে বেশি পানি না থাকে এটা খেয়াল রাখতে হবে।


ধানের পোকা ও রোগ দমনের জন্যে কীটনাশক প্রয়োগ না করে জৈবিক দমন, বালাই-সহনশীল জাতের চাষ, আধুনিক চাষ পদ্ধতি ও যান্ত্রিক পদ্ধতি প্রয়োগ করতে হবে। পোকা দ্বারা আক্রান্ত হলে হাতজাল, আলোর ফাঁদ, সেক্স ফেরোমেন ফাঁদ, কঞ্চি পুঁতে পাখি বসতে দেয়া, ডিমের গাদা নষ্ট করা যান্ত্রিক পদ্ধতি প্রয়োগ করা যেতে যায়।


মাছ ও চিংড়ি ধরা : ধান পাকা শুরু হলে ক্ষেতের পানি ধীরে ধীরে কমাতে হবে। এতে মাছ ও চিংড়িগুলো পরিখা বা গর্তে গিয়ে আশ্রয় নেবে। তখন প্রথমে ধান কেটে পরে চিংড়ি ধরতে হবে। কোনো কারণে ধান পাকার আগেই পানি শুকাতে শুরু করলে, ধান কাটার আগেও মাছ ও চিংড়ি ধরা যায়। আবার সুযোগ থাকলে এবং মাছ ও চিংড়ি বিক্রির আকারে না পৌঁছলে অর্থাৎ প্রতিটি যথাক্রমে ১০০ ও ৩৫ গ্রাম ওজনের না হলে ধান কাটার পরও মাছ ও চিংড়ি ক্ষেতে রেখে বড় করে নেয়া যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে আবার পানি দিতে হবে।


মাছ ও চিংড়ির ফলন : বোরো ধান ক্ষেতে মাছ ও চিংড়ি চাষ করলে, বাড়তি খাবার ছাড়াই এর উৎপাদন হেক্টর-প্রতি প্রায় ২৮০ কেজি চিংড়ি হয়। খাবার দিলে উৎপাদন প্রায় ৪০০ কেজি পর্যন্ত হয়। আমন ধান ক্ষেতে বাড়তি খাবার ছাড়া চিংড়ি হেক্টর-প্রতি ১০০-১৫০ কেজি হয়। খাবার দিলে উৎপাদন ২০০-৩০০ কেজি হতে পারে। মাছ হেক্টর-প্রতি ২৫০-৩০০ কেজি হয়।
 

ধানের পর মাছ ও গলদা চিংড়ি চাষ : জমি থেকে বোরো  আমন ধান কাটার পর জমিতে পানি থাকলে অথবা পানি সরবরাহ করে মাছ ও চিংড়ি চাষ করা যায়। যেসব জমি ধান কাটার পর ১-২ মাস পতিত থাকার সম্ভাবনা থাকে সেসব জমিতে মাছ ও চিংড়ি চাষ করা যায়। ধানের পর মাছ ও চিংড়ি চাষের পদ্ধতি কিছু কিছু অংশ ধানের সাথে মাছ ও চিংড়ি চাষের মতো। সম্পূর্ণ কাজ কর্মগুলোকে তিনটি প্রধান অংশে বিভক্ত করা যায়। এগুলো হচ্ছে-
 

গর্ত ও নালা তৈরি : মাছ ও চিংড়ি উৎপাদনকালে এসব জমিতে প্রচুর পানি থাকে, আবার মাছ ও চিংড়ির সাথে ধান থাকে না সেজন্য এ জমিতে পরিখা বা গর্ত খননের প্রয়োজন নেই তবে মাছ ও চিংড়ি ধরার সুবিধার জন্য জমির নিচু স্থানে গর্ত খুঁড়ে রাখলে ভালো হয়।
 

সার প্রয়োগ : ধানের জন্য অনুমোদিত সার ধান চাষেই ব্যবহার করতে হবে। মাছ ও চিংড়ি চাষের জন্য অতিরিক্ত ১৫% হারে সার চিংড়ি চাষে প্রয়োগ করতে হবে।
সাবধানতা
 

ধানক্ষেতের পানি যেন শুকিয়ে না যায়, কিংবা এত কমে না যায় যে পানি বেশ গরম হয়ে উঠে। উভয় অবস্থায়ই চিংড়ি মারা যেতে পারে। ২. অতি বৃষ্টি অথবা অন্য কোনো কারণে যেন পানি জমে আইল উপচে না যায়। পানি উপচে পড়লে পানির সাথে চিংড়ি বের হয়ে যাবে। ৩. পানি নির্গমন পথে যেন তারের জাল বা বাঁশের বানা দৃঢ়ভাবে আটকে থাকে। অন্যথায় মাছ ও চিংড়ি পানির সাথে চলে যেতে পারে। ৪. ক্ষেতের পানি কমে গেলে সাপ, বড় ব্যাঙ, ইঁদুর ও শিয়াল ইত্যাদি প্রাণী মাছ ও চিংড়ি খেয়ে ফেলার আশংকা থাকে।


সূত্র: বাংলাদেশ সরকার কৃষি তথ্য সার্ভিস




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
করোনা ভাইরাস লাইভ আপডেট
আক্রান্ত চিকিৎসাধীন সুস্থ মৃত্যু কোয়া:
৩৬৭৫১ ২৬২২৯ ৭৫৭৯ ৫২২ ৪২৫২৯
বিস্তারিত
জয়পুরহাটে দেয়ালচাপায় মা ও দুই শিশুপুত্রের মৃত্যু ছুটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসতে পারে বৃহস্পতিবার করোনার টিকা তৈরির তথ্য হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টায় হ্যাকাররা! চীনের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্ক ছিন্ন করতে বলল যুক্তরাষ্ট্র হাসপাতালে নেয়ার পথেই করোনা আক্রান্ত মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু ‘লকডাউনে কাজ নেই’ হতাশায় অভিনেত্রীর আত্মহত্যা সংক্রমণের হটস্পট চট্টগ্রাম, অবাধে ঢুকছেন আক্রান্তরা রাত থেকে তীব্র ঝড়-বৃষ্টি রাজধানীতে, ভেঙে পড়েছে গাছ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৫ বছর পূর্ণ করলেন 'মিঃ ডিপেন্ডেবল' মাংস নরম করবেন যেভাবে করোনায় মৃত্যু মালিকের, তবুও হাসপাতালে তিন মাস অপেক্ষায় পোষা কুকুর সিলেটে দুর্বৃত্তের হাতে যুবক খুন চাঁপাইনবাবগঞ্জে বজ্রপাতে গৃহবধূসহ নিহত ৩ ছেলেদের সঙ্গে নিয়ে আপন ভাইকে বেধড়ক মারপিট, ভেঙে দিলেন দুই পা বরিশালে পুলিশ সদস্যসহ আরও ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত, সুস্থ ৪৫ মোটর সাইকেল-ইজিবাইকের সংঘর্ষে নিহত ২ করোনার কাছে হার মানলেন মুক্তিযোদ্ধা লকডাউন শিথিল হচ্ছে দুবাইয়ে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করলেন স্বামী মোংলায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন উর্ধ্বতনদের নারী ফুটবলারদের ধর্ষণের অভিযোগে হাইতির ফুটবল প্রধান নিষিদ্ধ সীমান্তে চরম উত্তেজনা, ভারতের কাছাকাছি বিমানঘাঁটিতে শক্তি বাড়াচ্ছে চীন হবিগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে প্রাণ গেল বৃদ্ধের করোনায় মৃত সদস্যের সংস্পর্শে আসায় ১৮ পুলিশ কোয়ারেন্টাইনে চোখ দিয়ে ঢুকতে পারে করোনাভাইরাস? করোনায় দেশে প্রতি ঘণ্টায় মৃত ১, আক্রান্ত ৪৮ ও সুস্থ ১০ জন চাঁপাইনবাবগঞ্জে বজ্রপাতে গৃহবধূসহ নিহত ২ ঈদ আনন্দে মদ খেয়ে ৫ জনের মৃত্যু ডা. জাফরুল্লাহর জন্য ফল পাঠালেন খালেদা জিয়া প্লাজমা থেরাপি নিলেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই যমুনার তীরে আনন্দভ্রমণ রাজধানীতে ঝড়ো বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টি খাগড়াছড়িতে করোনা উপসর্গ নিয়ে পোশাক শ্রমিকের মৃত্যু মালদ্বীপ থেকে দেশে ফিরলেন ১২০০ বাংলাদেশি করোনা প্রতিহত করার ওষুধগুলো কী কী হতে পারে? সীমানা অতিক্রম করেছে চীনা সেনারা, উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে মোদী অবৈধভাবে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ২ পুকুর নিয়ে বিরোধের জেরে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা গ্রাম পুলিশের বিরুদ্ধে বিধবাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তীব্র উত্তেজনা, মুখোমুখি চীন-ভারতের সেনাবাহিনী চাটখিলে সরকারি সহায়তার তালিকায় উচ্চবিত্তদের নাম মসজিদে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া টাকা আত্মসাৎ করায় ইমামের কারাদণ্ড জনসমাগম করে সালিশ চেয়ারম্যানের, উপস্থিত একজনের করোনা সনাক্ত ভাইদের সাথে গোসলে গিয়ে আর ফিরলো না লাবিব ফুটবল খেলতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলো মোহন ট্রাম্পকে বিশ্বাস করে পস্তালেন নারী বুধবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল সিলেট ছাড়লেন আরও ২৭২ ব্রিটিশ নাগরিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি চালের বস্তায় 'বিশেষ সিল' মেয়ের মরদেহ নদীতে গেল কি করে, জানেন না বাবা এ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় ২ জন নিহত, কাঁচপুরের রাস্তা রক্তে রঞ্জিত মঙ্গলবারও জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা, ৩ নম্বর সংকেত জারি 'পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যা' করে মাটিচাপা, ৩ মাস পর উদ্ধার করোনা: স্পেনে ১০ দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা ভারতে বিরুদ্ধে যুদ্ধের হুঙ্কার নেপালের! ভারতের একাধিক রাজ্যে ঢুকে পড়েছে পঙ্গপালের ঝাঁক (ভিডিও) নওগাঁয় ৬৮ কেজি গাঁজাসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক ‘ভেনিজুয়েলার স্বাধীন লেনদেনে হস্তক্ষেপ করার অধিকার যুক্তরাষ্ট্রের নেই’ এক খুন ঢাকতে আরো ৯ খুন! বাংলাদেশসহ ১১ দেশ থেকে জাপান ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা হাজীগঞ্জে চিরনিদ্রায় শায়িত মতিন স্যার মাস্ক পরে বোলিংয়ের পরামর্শ মিসবাহর উদ্দেশ্যমূলকভাবে গণস্বাস্থ্যের কিট পরীক্ষা করা হচ্ছে না: ফখরুল করোনায় আক্রান্ত নোবেলের বাবা করোনার নতুন টিকার পরীক্ষা শুরু শত মানুষের সামনে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা, এগিয়ে এলো না কেউ (ভিডিও) করোনা চিকিৎসায় নতুন পথের সন্ধান চরিত্র গঠনের জন্য তুর্কি সিরিজের প্রশংসায় ইমরান খান বাংলাদেশের যে এলাকায় যতো করোনা আক্রান্ত শনাক্ত একদিনে মৃত্যু ও সুস্থের রেকর্ড রাশিয়ায় ডেপুটি স্পিকারের স্ত্রীর মৃত্যুতে গাইবান্ধার চার এমপি ও হুইপের শোক টিকা না এলে বন্ধই থাকবে ফিলিপাইনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মুন্সিগঞ্জে নতুন ৩৫ জনের করোনা সনাক্ত এবার পাবনায় মিলল বিলুপ্তপ্রায় বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’ করোনা: ৬০০ কর্মীকে চাকরিচ্যুত করল উবার অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে যমুনায় নৌকাডুবি, ৩ মরদেহ উদ্ধার সাত মাস আগে বিয়ে করেছেন নোবেল! সিরাজগঞ্জে অগ্নিদগ্ধ হয়ে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হংকংয়ের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাবেন না: ক্যারি লাম স্মার্টফোনেই ১ মিনিটে করা যাবে করোনা পরীক্ষা! হবিগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে বৃদ্ধ নিহত, আটক ৫ সামনে কঠিন সময় আসছে: কাদের লাখ ছুঁতে চলল যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃতের সংখ্যা নেত্রকোনায় বিদ্যুৎ বিভ্রাট, ভোগান্তিতে মানুষ নাটোরে আ.লীগের দু'গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ভাংচুর করোনা: পাকিস্তানের গন্তব্য কোন দিকে? হিলিতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামি আটক দলগত অনুশীলনে ফিরেছেন ফুটবলাররা খাগড়াছড়ির পর্যটন শিল্পে করোনার হানা শিমুলিয়ায় মানুষের ঢল, যানজট রাশিয়ায় করোনায় মৃত্যু বাড়ছে লিগ বন্ধ, বিপাকে নারী ফুটবলাররা দেশে একদিনে করোনা সনাক্তের হার ২১ শতাংশের বেশি জামালপুরে দলীয় এমপির সাথে আ.লীগ নেতার ফাঁস হওয়া ফোনালাপে তোলপাড় টোকিওসহ ৪ শহর থেকে জরুরি অবস্থা তুলল জাপান করোনা: রোগীদের উপসর্গ অবাক করছে চিকিৎসকদের আম্পানে কলকাতা মেয়রের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন রাজশাহীর শিরোইল পুলিশ ফাঁড়ি ‘লকডাউন’ বেগমগঞ্জে আ’লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ৩, আটক ৩
আরও সংবাদ...
করোনার প্রাদুর্ভাব অব্যাহত থাকলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ 'লকডাউনে' যাচ্ছে সূর্য, সতর্কতা জারি নাসার করোনায় আক্রান্ত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী অসুস্থ বাচ্চাকে নিয়ে হাসপাতালে হাজির বিড়াল মঙ্গলবার থেকে ইফতার বিক্রি হবে রেস্তোরাঁগুলোতে দেশের সব মসজিদ খুলে দেয়া হচ্ছে যে ওষুধে ‘করোনায় সুস্থের হার বাড়ছে’ বাংলাদেশে চুরি দেখে ফেলায় এলোপাথাড়ি কোপ, দুই বোনকে ধর্ষণের পর চারজনকেই জবাই ভারতকে নেপালের 'হুমকি', সীমান্তে সেনা মোতায়েন শনাক্ত মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড আজ চিকিৎসক পরিবারে ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত, বাড়িতে স্থানীয়দের ইট নিক্ষেপ দেশে প্লাজমা থেরাপিতে একদিনেই বিস্ময়কর সাফল্য ৩৬ দিন রোজা হবে ২০৩০ সালে! ৯ বছরের সংসার ভাঙল অভিনেতা অপূর্ব-অদিতির জনপ্রিয় অভিনেতা ইরফান খান মারা গেছেন লকডাউনে বাবাকে রোগী সাজিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে বিয়ে! দাজ্জালের সঙ্গে ইহুদিদের যোগাযোগ শুরু! শরীরে লালচে র‌্যাশ, করোনার নতুন উপসর্গ! কোনো হাসপাতাল নিল না, কুর্মিটোলায় ভর্তির পর অতিরিক্ত সচিবের মৃত্যু ভুল নম্বরে টাকা চলে গেলে ফেরত পাবেন যেভাবে সহকর্মীরাই হত্যা করেন গাজীপুরের সেই প্রকৌশলীকে 'পদত্যাগ করলেন' বিদ্যানন্দের প্রতিষ্ঠাতা করোনা: এক বাড়িতেই ৩১ লাশ! শাশুড়ির জন্য ১৫ বছর পর নাচলেন মিথিলা! (ভিডিও) দেশে সর্বোচ্চ আক্রান্তের দিনে ১৪ জনের মৃত্যু চারদিনেই সারবে করোনা, গবেষণায় সাফল্যের দাবি বাংলাদেশের আজও শনাক্ত সহস্রাধিক, মৃত্যু ২১ জনের আম্পানের তাণ্ডব শুরু, সক্রিয় হতে পারে শনিবার সাধারণ ছুটি আরও বাড়ছে ১৫ জুলাই করোনামুক্ত হবে বাংলাদেশ! এসএসসি’র ফল-এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী আম্পানের পর আসছে ঘূর্ণিঝড় 'নিসর্গ' একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত, মৃত্যু ১৪ জনের আক্রান্ত ছাড়াল ১৮ হাজার, মৃত্যু বেড়ে ২৮৩ নতুন আরো ৭০৬ জন করোনায় আক্রান্ত একদিনে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, মৃত্যু বেড়ে ১৮৬ একদিনে বাংলাদেশে করোনা শনাক্তের রেকর্ড ৭৮৬ দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হতে পারে জুনে স্ত্রী-মেয়ের কান্না শুনেও এগিয়ে এল না কেউ, সিঁড়িতেই পড়ে রইল লাশ একদিনে আক্রান্ত ৯৬৯, মোট মৃত্যু ২৫০ একদিনে সর্বাধিক রোগী শনাক্ত, মৃত্যু বেড়ে ১৫৫ রেকর্ড শনাক্তের দিন ২০ জনের মৃত্যু করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩০০ ছাড়াল বাংলাদেশে, নতুন আক্রান্ত ৯৩০ একদিনে নতুন আক্রান্ত ৫৬৪, মৃত্যু বেড়ে ১৬৮ আক্রান্ত ছাড়াল ১০ হাজার, মৃত্যু বেড়ে ১৮২ ঢাকায় যেসব মার্কেট খোলা থাকবে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চরম আকার ধারণ করবে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ করোনা সন্দেহে ছাদ থেকে লাফিয়ে কনস্টেবলের আত্মহত্যা মধ্যরাতে করোনা রোগীকে মারধর করে তাড়িয়ে দিল বাড়িওয়ালা করোনার মধ্যে টেকনাফে দেখা মিলল ‘পঙ্গপাল’ প্রজাতির পতঙ্গ
আরও সংবাদ...


মেনে চলি

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TVEnglish DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে