SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ০৫-১২-২০১৭ ০৩:৩৭:০৫

উপকূলীয় বন উজাড়ে হুমকির মুখে প্রাণীজগৎ, হারাচ্ছে জীববৈচিত্র

patua-climate

জলবায়ু পরিবর্তন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আর সংরক্ষণের অভাবে দিন দিন উজাড় হয়ে যাচ্ছে সংরক্ষিত উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী। ফলে হুমকির মুখে পড়ছে প্রাণিজগৎ, হারিয়ে যাচ্ছে জীববৈচিত্র। পরিবেশবাদীরা মনে করেন তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে দিন দিন প্রাকৃতিক দুর্যোগ বেড়ে চলেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে পুরো দক্ষিণাঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও করছেন তারা।

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে সিডর, আইলা, মহাসেন কোমেনসহ নানা ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ এখন আমাদের দেশের প্রতিবছরের নিত্য ঘটনা।এসব প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে দ্রুত প্রকৃতির পরিবর্তনের ফলশ্রুতিতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটাসহ উপকূলীয় অঞ্চলের সংরক্ষিত সবুজ বেষ্টনী। হারিয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, হুমকির মুখে পড়েছে জৈববৈচিত্র। আর এভাবে চলতে থাকলে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ অঞ্চল প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয় এক নাগরিক বলেন, 'এখানে পর্যটকরা এসে আগের মতো সৌন্দর্য্য খুঁজে পাচ্ছেন না। বহু গাছ পালা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।'

পরিবেশের তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে ক্রমাগতভাবে ভূমি ক্ষয় হতে থাকায় পুরো দক্ষিণাঞ্চল হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন পবিপ্রবির পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অনুষদের সহকারী অধ্যাপক মো. নুরুল আমিন।

তিনি বলেন, 'আমাদের তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণটা খুবই বেশি। এরফলে যাদের (গাছ) কাজ ছিলো মূলত এই তাপমাত্রা রক্ষা করা তারাই হারিয়ে যাচ্ছে ধারাবাহিক নিম্নচাপের কারণে।'

তবে উপকূলীয় অঞ্চল রক্ষায় নতুন নতুন স্থানে বনায়নের কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।

পটুয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা অজিত কুমার রুদ্র বলেন, 'প্রকৃতিকে সবসময় প্রকৃতি দিয়েই মোকাবেলা করতে হয়। তাই যেসব স্থানে উপকূলবেষ্টনী সমুদ্রে বিলীন হচ্ছে সেখানে আমরা নতুন করে বনায়নের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি।'

বন বিভাগের তথ্য মতে, পটুয়াখালী জেলায় বনাঞ্চল রয়েছে ৩৫ হাজার হেক্টর এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নষ্ট হয়ে গেছে ১৩শ' হেক্টর জমির বনাঞ্চল।

/এসএম