rab-montu

আশকোনায় র‍্যাবের ব্যারাকে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আটকের পর মারা যাওয়া হানিফ মৃধার সঙ্গে মন্টু নামে আরো একজনকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো বলে দাবি করেছে স্বজনরা। মন্টুর পরিবার বলছে, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ভোরে কাচঁপুর ব্রিজের নিচ থেকে হানিফের সঙ্গে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় তাকেও।

স্বজনদের অভিযোগ, ঘটনার দিন চরমোনাইয়ের পিরের মাহফিলে যোগদান শেষে ভাড়া করা একটি লঞ্চে কাচঁপুর ব্রিজের নিচে এসে নামেন তারা। সেখানে অপেক্ষমাণ ছিলো হানিফের গাড়ি। কিন্তু লঞ্চ থেকে নামার পরপরই সাদা পোশাকের লোকজন হানিফসহ মন্টুকে সাদা রংয়ের একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। এরপর আর কোনো খোঁজ মেলেনি তার।

এখবর হানিফের গাড়ির চালকের মাধ্যমে পায় মন্টুর পরিবার। পরে হানিফের পরিবারের সঙ্গে তারাও চৌঠা মার্চ সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় জিডি করেন। পরিবার বলছে, মন্টু ঢাকার গুলশানে পুরাতন ফার্নিচারের ব্যবসা করতেন।

en.Somoynews.tv