SomoyNews.TV

শিক্ষা সময়

আপডেট- ০৯-১১-২০১৯ ১৮:৪০:৪৮

‘জাবির উপাচার্যের বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির অভিযোগ অবান্তর’

nowfel00

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উন্নয়ন প্রকল্পে বরাদ্দ নেই এবং অর্থ ছাড় হয়নি। কাজেই দুর্নীতির অভিযোগ অবান্তর বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে জাবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলন নিয়ে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। বলেন, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে ক্যাম্পাসকে ব্যবহারের চেষ্টা চলছে।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মন্ত্রী বলেন, ‘যদি কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকে সেই অভিযোগগুলো সঠিকভাবে উপস্থাপন না করে, আমরা দেখতে পাচ্ছি শুধুমাত্র রাজনীতির মাঠ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাস্পাসগুলো ব্যবহার করার  জন্য এখানে একটা হীন প্রচেষ্টা করা হচ্ছে। আজকে যে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়ন কাজে এখন পর্যন্ত সরকারের একটি টাকাও খরচ হয়নি, সেখানে কিভাবে আমরা বলতে পারি যে, অর্থ অবৈধভাবে একজন ব্যক্তি বা উপাচার্য অবৈধভাবে অর্থ লাভ করেছেন।

এদিকে, জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতির নানা প্রমাণাদি জমা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষক। শুক্রবার (৮ নভেম্বর) রাতে শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত সচিব আব্দুল আলীম খানের বনশ্রীর বসভবনে এসব প্রমাণাদি জমা দেন শিক্ষক প্রতিনিধিদল।

এ বিষয়ে সময় নিউজকে জাবির বাংলা বিভাগের অধ্যাপক তারেক রেজা জানান, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির সকল কাগজ, অডিও-ভিডিও আমরা শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত সচিবের কাছে জমা দিয়েছি। আশা করছি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা বড় পরিবর্তন আসবে।

প্রসঙ্গত, অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ২০১৪ সালের মার্চে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নারী উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান। গত বছর তাকে দ্বিতীয় দফায় নিয়োগ দেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজে দুর্নীতির অভিযোগে তার বিরুদ্ধে গত তিন মাস ধরে আন্দোলন চলছে। এ কাজে চাঁদাবাজির ঘটনায় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে শোভন- রাব্বানীকে সরিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রামাণের কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুর্নীতি প্রমাণ দিতে না পারলে তাদের শাস্তি পেতে হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারি দেন।