SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ০৮-১১-২০১৯ ০৩:৩৫:৩৭

ছিঁচকে চোর থেকে বড় সন্ত্রাসী, হাত বাড়ালেই অবৈধ অস্ত্র

arms-copy

আইনশৃঙ্খলা কড়াকড়ির মধ্যেই দেশে ঢুকছে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র। চলে যাচ্ছে নানা সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর হাতে। এক অবৈধ অস্ত্র কারবারি জানান, এখন অবৈধ অস্ত্রের চাহিদা কিছুটা কম থাকলেও নির্বাচনসহ বিভিন্ন উপলক্ষে কখনো কখনো বাড়ে। পুলিশ বলছে, অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার রোধ করতে না পারার বিষয়টি ভাবাচ্ছে তাদেরকেও। তবে নজরদারি অব্যাহত আছে।

ছিঁচকে চোর থেকে বড় সন্ত্রাসী-অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র সবার হাতেই। যেগুলোর বেশির ভাগই বিদেশি। সূত্র বলছে, সীমান্তে কড়াকড়ির পরও প্রতিবেশী দেশ থেকে ঢুকে যাচ্ছে আগ্নেয়াস্ত্র। সময় সংবাদের কথা হয় এমন এক অবৈধ অস্ত্র কারবারির সঙ্গে। সীমান্তবর্তী যশোরের পুটখালির ছোট্ট ইছামতি নদী দিয়ে কীভাবে আসে অস্ত্রের চালান। কীভাবে আসে রাজধানী পর্যন্ত- পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বিস্তারিত তুলে ধরেন তিনি। জানান, এক সময় সীমান্তে গরু ব্যবসা করতেন। সেই সূত্রে পরিচয় হয় কয়েকজন ভারতীয়ের সঙ্গে। এক সময় পুটখালির এক প্রভাবশালী ব্যক্তির মাধ্যমে প্রস্তাব পান অবৈধ অস্ত্র ব্যবসার।

পরিচয় গোপন রাখার শর্তে ওই ব্যবসায়ী আরও বলেন, ঢাকা থেকে পিস্তল কেনার অফার পাই। প্রথমে আমি রাজি হয়নি। কিন্তু টাকা বেশি দেওয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে অস্ত্র নেয়।

প্রতিটি ছোট আগ্নেয়াস্ত্র ৩০-৩৫ হাজার টাকায় কিনে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন। টাকার লেনদেন হয়েছে স্থানীয় মানি এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে।

নদীর এপার বাংলাদেশ, ওপারে ইন্ডিয়া। সেখানে গাছের পাতার নিচে অস্ত্র আছে। সেখান থেকে আনা-নেওয়া শুরু।

পুলিশ বলছে, অবৈধ অস্ত্রের বাজার বিষয়ে সতর্ক তারা। সম্প্রতি এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। প্রয়োজনে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে তথ্য বিনিময়ের কথাও জানালেন।

গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগের উপ কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, ভারত থেকে নিয়ে আসা। টাকা-পয়সা দেওয়া, পরিবহন করে নেওয়া বেশকিছু মানুষ জড়িত আছে। আমরা তাদের গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চালাব।

পুলিশ আরও বলছে, অবৈধ অস্ত্র একদিকে যেমন জননিরাপত্তার জন্য হুমকি অপরদিকে এসবের ব্যবহারে অপরাধীরা নষ্ট করছে সামাজিক স্থিতি। তাই এ ব্যাপারে ছাড় দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।