SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৩-১০-২০১৯ ০২:০৩:১৯

জনপ্রতিনিধির পকেটে ৫০০ টাকা দিয়েও চাল পাচ্ছেন না জেলেরা!

fisher-rice

২০ কেজি সরকারি সহায়তার চাল পেতে জেলেদের ৫শ’ টাকা দিতে হয় জনপ্রতিনিধিদের হাতে। তারপরও নির্ধারিত চাল নয়, পাচ্ছেন ১২ থেকে ১৫ কেজি। ইলিশ প্রজনন মৌসুম উপলক্ষে মাছ ধরার ওপর নিষধাজ্ঞার কারণে জেলেদের দেয়া চাল সহায়তায় এমন অনিয়ম চলছে বরগুনায়। অবশ্য জনপ্রতিনিধিদের রয়েছে নানা অজুহাত। আর প্রশাসন বলছে, তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

মাছ ধরার ওপর নিষধাজ্ঞা চলায় রোববার সকাল থেকে বরগুনার পাথরঘাটা খাদ্য গুদাম এলাকায় জেলেদেরকে চাল বিতরণ শুরু করেন জনপ্রতিনিধিরা। চাল পাওয়া ব্যক্তিদের বস্তা মাপলে দেখা যায় ২০ কেজি নয়, চাল দেয়া হয়েছে মাত্র ১২কেজি। আবার কেউ কেউ নিয়ে যাচ্ছেন ৩০ কেজিও।

প্রশ্নের মুখে জনপ্রতিনিধিরা নানা অজুহাত দিয়ে শিকার করেন যাদের কম চাল দেয়া হয়েছে তারা জেলে নন। ভিন্ন পেশার মানুষদের মানবিকতার কারণে চাল দিয়েছেন তারা।

একজন জনপ্রতিনিধি বলেন, দশ কেজি বেশি দিছি মানবিক কারণে। মেম্বার সাহেব চোখের লজ্জায় হোক আর রাজনীতির কারণে হোক, সে তাকে সাহায্য করেছে। 

অবশ্য জেলে পেশার বাইরে মানবিকতার দোহাই দিয়ে মূলত টাকার বিনিময়ে চাল দেয়া হচ্ছে ভিন্ন পেশার মানুষদের-এমনটাই দাবি উপকূলের জেলেদের। তারা বলেন, কেউ পাবে আর কেউ পাবে না। যারা প্রকৃত জেলে তারা পাবে না-এটা হতে পারে না। 

আর জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, তদন্ত করে অনিয়মের প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, বলেন, কোথাও যদি কোনো অনিয়মের অভিযোগ আসে তাহলে যেই হোক না কেন আমরা ব্যবস্থা নেব। 

বরগুনা জেলায় লক্ষাধিক জেলে থাকলেও ২০ কেজি করে চালের বরাদ্দ মিলেছে নিবন্ধিত ৩৪ হাজার ২১১ জন জেলের।