SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ১১-০৯-২০১৯ ১৮:০৩:১৭

মাশরাফি-তামিমদের হয়ে ঢাল ধরলেন পাপন

papon

বিশ্বকাপে একেবারেই ভালো করতে পারেননি তামিম, মাশরাফি, মাহমুদুল্লাহরা। একা সাকিবের কাঁধে ভর করে সেমির স্বপ্ন দেখছিলো বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও জ্বলে উঠতে পারেননি ক্রিকেটাররা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট হেরে ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করলেন সাকিবরা। ক্রিকেটাঙ্গনে হতাশার সুর। আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়েকে নিয়ে শুরু হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজর আগে আত্মবিশ্বাস যে তলানিতে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে যখন চারদিকে নেতিবাচক মন্তব্য তখন সামনে এসে ঢাল ধরলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এখনো সিনিয়রদের উপরই আস্থা তার।

‘যদি আমরা আজ পর্যন্ত ক্রিকেট দেখি, আমার হিসেবে তামিম সেরা ব্যাটসম্যান। তামিম ইজ দ্যা বেস্ট ওপেনার অব বাংলাদেশ। সাকিব, ওয়ার্ল্ডের অন অব দ্যা বেস্ট প্লেয়ার্স। এই বিশ্বকাপে আমি মনে করি ওই ছিলো সেরা খেলোয়াড়। রিয়াদ, ওয়ান্ডারফুল প্লেয়ার; বহু ম্যাচ আমাদের জিতিয়েছে। এরা কেউ শেষ হয়ে যায়নি। অফ ফর্ম তো থাকতেই পারে। এদেরকে বাদ দিয়ে এখন আমার নতুন প্লেয়ার আনতে হবে এরকম কোন চিন্তাই আমার মাথায় আসে না। হয়তো আপনারা অনেকেই ভাবছেন শেষ হয়ে গেছে। নো, আমি এখনো মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি, তামিম, সাকিব, মুশফিক, রিয়াদ যেকোনো দলের বিরুদ্ধে, যেকোনো বোলারের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করতে পারে। আমার ধারণা ছিল, মুশফিক এই টেস্টেই করবে। হয়নি, এটা তো হতেই পারে। আরেকটা জিনিস বলে রাখি, এদের পাশাপাশি সৌম্য, লিটন, সাব্বির, মোস্তাফিজের কথা তো না বলে পারিই না। টি-২০তে যেকোনো বোলারকে ওরা তুলোধোনা করে দিতে পারে। কিন্তু আমাদের ম্যাচ উইনার এখনো ধরবো তামিম, সাকিব, মুশফিক, রিয়াদদের।’

মাশরাফির সমালোচকদেরও কড়া জবাব দিলেন নাজমুল হাসান পাপন।
‘মাশরাফি, যাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেক কথাবার্তা চলতেছে। মাশরাফি আমাদের কম ম্যাচ জেতায়নি। ত্রিদেশীয় সিরিজটা জিতিয়ে নিয়ে এসেছে, অসাধারণ খেলেছেন মাশরাফি। একটা বিশ্বকাপে একটু খারাপ খেলেছে, মনে হয় কি হয়ে গেলো। এতো তাড়াতাড়ি কাউকে উঠানোও উচিৎ না, নামানোও উচিৎ না।’

বাংলাদেশ দল নিয়ে আত্মবিশ্বাসী পাপন বলেন, আমি এখনো মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ দল এখনো যেকোনো দলকে, আমাদের এই টিম, যেকোনো দলকে যেকোনো সময় হারাতে পারে। এই বিশ্বাসটা আমার আছে।

‘আপনাদের মনে আছে? আমরা যখন ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়াকে টেস্টে হারিয়েছি তখন আমরা টেস্টের তলানিতে ছিলাম। ওরা আমাদের কাছে হেরে শেষ হয়ে যায়নি। ইংল্যান্ড এবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এতো হতাশ হওয়ার কিছু আমি দেখছি না।’

আগামী দিনগুলোতে ক্রিকেটাররা ঘুরে দাঁড়াবে বলে বিশ্বাস বিসিবি সভাপতির।

‘আগের ম্যাচে আমাদের ছেলেরা একটু ভয় পেয়ে গিয়েছিল। সামনে আর পাবে না। আমি বলেছি, ভয় পাওয়ার কিছু নাই। ওদের কাছে তামিম, সাকিব, মুশফিক নাই। সৌম্য, লিটন দাস, সাব্বিরের মতো টি-২০ স্পেশালিষ্ট নাই। ওদের কাছে মোস্তাফিজ, সাইফুদ্দিন নাই। ওদের হয়তো একজন দুজন ভালো আছে কিন্তু আমাদের প্রত্যেকটা প্লেয়ার ভালো। কাজেই ভয় পাওয়ার কিছু না। খেলায় হার-জিত আছে।

লিটন-সৌম্য’র টেস্ট খেলা নিয়ে কনফিউশন আছে, সাকিবের আগ্রহ কম। মোস্তাফিজ খেলতে চায় না। আমাদের কোনো পেসার নাই। আমরা আগাবো কীভাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, ‘পেসার নেই! এগুলো তো আপনারা বুঝেন জানেন। খামখা এটা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করার কোনো মানে হয় না। যখন টিম হয়, মাশরাফি বলে চারজন পেসার নিয়ে খেলবো। তাকে অনেক বুঝিয়ে-সুঝিয়ে তিনজন দেয়া হয়। সে বলে, পেসাররাই তো আমাদের ম্যাচ জেতায়। সাকিবকে জিজ্ঞাসা করলে বলে, সব স্পিনার নিয়ে খেলবো। স্পিনাররাই তা সব ম্যাচ জেতায়। কেউ ভুল বলে না। এটা হতেই পারে। কিন্তু পেসার নাই বা স্পিনার নাই তা তো না। আমাদের এই পেসারদের দিয়েই বিশ্বের বড় বড় দলগুলোকে হারিয়েছি। হতে পারে যে পেস নাই, পেস কম। আজকাল অন্যদেশগুলোর পেস আমাদের চেয়ে বেশি। সেটা স্বীকার করি কিন্তু বল খারাপ করে সেটা মানি না।’