SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাণিজ্য সময়

আপডেট- ১১-০৯-২০১৯ ১৫:১০:৪৬

স্বস্তি ফিরেছে স্বর্ণের বাজারে

gold

কয়েক দফা টানা বৃদ্ধির পর দেশের বাজারে কমেছে সব ধরনের স্বর্ণের দাম। কিছুটা স্বস্তি পেলেও গহনা কেনায় ধীরে চল নীতিই পছন্দ ক্রেতাদের। এভাবে দাম ওঠানামায় বিক্রি কমেছে দাবি করে ব্যবসায়ীরা বলছেন, বিয়ের মৌসুম সামনে থাকায় আবারো কমতে পারে স্বর্ণের দাম।

সাত দফা বৃদ্ধির পর অবশেষ তিনমাস পর কমল স্বর্ণের দাম। ভরিপ্রতি প্রায় ১২ হাজার টাকা বাড়ার আগে সবশেষ ১৭ জুন স্বর্ণের দাম ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়েছিলেন ব্যবসায়ীরা। এবার কমল একই দরে। আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে বারবার স্বর্ণের দামের পারদ ওঠানামা করলেও এবারে ব্যবসায়ীদের কণ্ঠে যেন কিছুটা ভিন্ন সুর। মূলত বিয়ে ও পূজার মৌসুমে ক্রেতাদের বাজারমুখী করতেই এমন সিদ্ধান্ত বলছেন তারা।
এক ব্যবসায়ী বলেন, আগে ২৫ হাজার টাকা ভরি ছিল তখন হয়তো ১০ ভরি কিনতো কিন্তু এখন টাকার অঙ্ক একই আছে, কিনছে তিন ভরি। ১০ ভরি বিক্রি করলে যে লাভ হতো, তিন ভরি বিক্রি করে সে লাভ হচ্ছে না। সুতরাং সোনার দাম বাড়লেই আমাদের লস।
যদিও অস্থির বাজারে দাম আরো কমতে পারে এমন আশা থেকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া গয়না কেনার ক্ষেত্রে সময় নিচ্ছেন ক্রেতারাও।

গহনা কিনতে আসা এক ক্রেতা বলেন, সোনার দাম ওঠা-নামার ফলে আমাদের মনেও প্রভাব পড়ে। কারণ দাম যখন বাড়তে থাকে তখন মনে হয় দেখা যাক দাম যখন কমবে তখন কিনব।

তবে দেশীয় স্বর্ণের বাজারে দামের এমন ওঠানামাকে স্বাভাবিক চোখে দেখছেন না অর্থনীতিবিদরা। নেপথ্যে কোনো চক্রের কারসাজি আছে কিনা তাও ক্ষতিয়ে দেখার আহ্বান তাদের।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, প্রতিবারই ১১৬৬ টাকা করে বাড়বে আবার ১১৬৬ টাকা কমবে-এটার যৌক্তিক কোনো ভিত্তি নেই। এভাবে কেন বাড়ছে বা এভাবে কেন কমছে এবং আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে যে বাড়বে এটা তো হতে পারে না। এ বিষয়ে সরকারকে একটু ইনভেস্টিগেশনের প্রয়োজন আছে।

বুধবার থেকে কার্যকর হওয়া দাম অনুযায়ী প্রতি ভরি সবচেয়ে ভালো মানের ২২ ক্যারেট স্বর্ণ ৫৬ হাজার ৮৬২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ২১ ক্যারেট ৫৪ হাজার ৫২৯ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির গহনা বিক্রি হচ্ছে ২৯ হাজার ১৬০ টাকা দরে।