SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৪-০৮-২০১৯ ১০:৩৪:০২

চামড়া নিয়ে বিপাকে নাটোরের ব্যবসায়ীরা

ntr-leath-2

লবণ দেয়া চামড়া নিয়ে বিপাকে পড়েছেন নাটোরসহ উত্তরাঞ্চলের ব্যবসায়ীরা। এ অঞ্চলের বৃহত্তম হাট 'চক বৈদ্যনাথ' বাজারে নতুন করে প্রায় ১ লাখ পিস চামড়া আসলেও নেই ক্রেতা। মূলত, ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা বৈঠক সফল না হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এতে নির্দিষ্ট সময়ে লবণ দেয়া চামড়া বিক্রি ও ন্যায্য মূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কা বাড়ছে জেলা পর্যায়ের ব্যবসায়ী ও আড়তদারদের। 

উত্তরাঞ্চলের সবচে বড় চামড়ার হাট নাটোরের 'চক বৈদ্যনাথ' বাজার। প্রতিবছর কোরবানির ঈদের পর সরগরম থাকলেও এবার চিত্র উল্টো। বিক্রেতা থাকলেও চামড়া ক্রেতার সংখ্যা প্রায় শূন্য।

হাটকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাত থেকে উত্তরাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসতে থাকে লবণ দেয়া চামড়া। এদিন নতুন করে এক লাখেরও বেশি চামড়া আসলেও হাটে আসলেও আসেননি ট্যানারি মালিকরা। বাধ্য হয়ে চামড়া ফেরত নিয়ে গেছেন অনেকে। 

মূলত বকেয়া পরিশোধ নিয়ে টানাপোড়ন বাড়ছে ট্যানারি মালিক ও জেলার ব্যবসায়ীদের। এনিয়ে ব্যবসায়ীদের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক শেষ হয়েছে সিদ্ধান্ত ছাড়াই। তাই চামড়া কিনতে তেমনভাবে মাঠে নামেননি ট্যানারি মালিকরা। তবে ২৫ আগস্ট এফবিসিসিআইয়ের উদ্যোগে ২য় দফার বৈঠকের পর চামড়া বেচাকেনা স্বাভাবিক হতে পারে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ী নেতারা।

এফবিসিসিআই’র পরিচালক শরীফুল ইসলাম রমজান বলেন, এফবিসিসিআই মনে করে, সকল ট্যানারি মালিকদেরকে আড়তদারদের আটকে রাখা টাকা অতিসত্বর পরিশোধ করা উচিত।   

নাটোরের 'চক বৈদ্যনাথ' হাটে প্রতিবছর ঈদের পর ১০ থেকে ১২ লাখ পিস চামড়া বিক্রি হলেও এবার তা নেমেছে শূন্যের কোঠায়। এ পর্যন্ত হাটেই চামড়া এসেছে প্রায় আড়াই লাখ পিস।