SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৫-০৬-২০১৯ ১৫:৫২:৩৯

গোপালগঞ্জ বিএনপির নতুন কমিটি নিয়ে অসন্তোষ

gopal-bnp

গোপালগঞ্জে জেলা বিএনপির নব-গঠিত আহবায়ক কমিটি নিয়ে স্থানীয় নেতাদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। গত ২২ জুন তারিখে বিএনপির কেন্দ্রীয় মহাসচিব কর্তৃক অনুমোদনকৃত ৩৭ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এই কমিটিতে শরীফ রাফিকুজ্জামানকে আহবায়ক এবং এম. মনসুর আলিকে সদস্য সচিব করা হয়েছে।  

এতে দীর্ঘদিনের ত্যাগী নেতাদেরকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে এমন অভিযোগ এনেছেন এক সময়ে বিএনপিতে সক্রিয় নেতাকর্মীরা। তাদের অনেকেই নবগঠিত গোপালগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

গোপালগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও অধুনাবিলুপ্ত জেলা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান পিনু আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় শহরের মোহাম্মদপাড়ায় তাঁর নিজ বাসায় এক সংবাদ সম্মেলন করে নবগঠিত কমিতে প্রাপ্ত যুগ্ম-আহবায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করার ঘোষণা দেন। যদিও তিনি পদ থেকে পদত্যাগের কারণ হিসেবে শারীরিক অসুস্থতা এবং ব্যক্তিগত কারণের কথা বলেছেন।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, তিনি বিএনপির শুরু থেকে দলের জন্য কাজ করেছেন। মাঠের রাজনীতিতে তিনি তৃণমূল পর্যায়ে তিনি কাজ করে গেছেন।অথচ তাকেসহ অনেক সিনিয়র নেতাকে নবগঠিত আহবায়ক কমিটিতে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। এ কারণেই তিনি তার পদ থেকে পদত্যাগ করছেন বলে জানান। এসময় বিএনপির জেলা আহবায়ক কমিটির অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও নবগঠিত কমিটির সদস্য সিরাজুল ইসলাম সিরাজ জানান, তিনি নবগঠিত জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি প্রত্যাখান করেছেন। তিনি ও তার অনেক সহযোগী খুব তাড়াতাড়িই এই আহবায়ক কমিটি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগ করবেন।

জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক এমপি এফ.ই শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর জানান, নবগঠিত কমিটির অনেকেই নানা ধরনের মামলার আসামি। সেইসব নেতাদের সাথে রাজনীতি করা চলে না। তিনি জানান, বিএনপির জন্মকাল থেকেই তিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত অথচ তাকে এই আহবায়ক কমিটিতে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে।

নবগঠিত কমিটির আহবায়ক শরীফ রাফিকুজ্জামান সবার সহযোগিতা কামনা করে জানান, তিনি ঢাকা থেকে বাড়িতে এসেছেন আজই। বিকেলে তিনি নেতাদের সাথে যোগাযোগ করে তাদেরকে নিয়ে বসার চেষ্টা করবেন। তিনি জানান, যেহেতু বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি তারেক জিয়ার সম্মতিতে দলের মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর কমিটি অনুমোদন করেছেন। সেহেতু তাদেরকে সম্মান করে আগামী কমিটি গঠন করা পর্যন্ত সকলকে একত্রিত হয়ে কাজ করার আহবান জানান। তাছাড়া কমিটিতে যদি কোনো অসংগতি থেকে থাকে তাহলে তা কেন্দ্রীয় কমিটিতে জানানোর জন্যও বলা যেতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ নবগঠিত এই কমিটি সঠিক হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন।পুরানোদের সঠিক মূল্যায়ন করা হয়নি বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।