SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাণিজ্য সময়

আপডেট- ২৫-০৬-২০১৯ ০৫:৫৮:০১

মেলায় সাদা হয়েছে ৬০ হাজার ভরি স্বর্ণ

gold-total

প্রথমবারের মতো আয়োজিত স্বর্ণ মেলায় প্রথম দুইদিনে ব্যবসায়ীরা প্রায় ৬০ কোটি টাকা কর পরিশোধ করে ৬০ হাজার ভরি স্বর্ণ সাদা করেছেন। শীর্ষে রয়েছে ভেনাস, আমিন ও ডায়মন্ড জুয়েলার্স। মেলা থেকে ব্যবসায়ীদের কাছে থাকা স্বর্ণের প্রকৃত মজুদ জানা যাবে বলে মনে করছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি।

এছাড়া স্বর্ণ ব্যবসায় শৃঙ্খলা ফিরে আসবে বলেও মনে করে তারা। তবে অনেকের কাছে পর্যাপ্ত অর্থ না থাকায় স্বর্ণ মজুদের ঘোষণার সময়সীমা বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

বংশ পরস্পরায় স্বর্ণ বেচা-কেনা করে আসলেও আয়কর ফাইলে এতদিন শুধু টাকার অংকে মজুদ স্বর্ণের তথ্য দিতেন ব্যবসায়ীরা। যেখানে উল্লেখ থাকত না পরিমাণ। এতে স্বর্ণের উৎস ও মজুদ নিয়ে নানা প্রশ্ন ও হয়রানির মুখে পড়তো হতো জুয়েলারি ব্যবসায়ীদের। পদ্ধতিগত এই ভুলের অবসান করে স্বর্ণের প্রকৃত মজুদ জানা এবং যথাযথ রাজস্ব আদায়ে প্রথমবারের মতো এনবিআরের এই স্বর্ণ মেলার আয়োজন।

যেখানে প্রতি ভরিতে এক হাজার টাকা কর দিয়ে ৩০শে জুন পর্যন্ত অপ্রদর্শিত স্বর্ণ বৈধ করার সুযোগ পাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

প্রথমবারের মতো আয়োজিত স্বর্ণ মেলায় প্রথম দুইদিনে ব্যবসায়ীরা প্রায় ৬০ কোটি টাকা কর পরিশোধ করে ৬০ হাজার ভরি স্বর্ণ সাদা করেছেন। বাজুসের প্রত্যাশা টার্গেটের চেয়েও বেশি রাজস্ব আসবে এই আয়োজন থেকে।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সহ-সভাপতি এনামুল হক খান বলেন, স্বর্ণের মজুদ সরকারি কিংবা বেসরকারিভাবে বলুন, কোনো জরিপ নেই। জুনের পর থেকে আমরা জানতে পারব দেশে কী পরিমাণ স্বর্ণ আছে। এই ব্যবসায় একটা স্বচ্ছতা আসবে এবং সরকারের টার্গেট ৪০০ কোটি টাকা এই খাত থেকে আসবে।

তবে প্রত্যন্ত অঞ্চলের জুয়েলারি ব্যবসায়ীদের জন্য জেলা পর্যায়ে মেলা আয়োজন এবং অপ্রদর্শিত স্বর্ণ বৈধ করার জন্য আরও সময় চেয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাবেক সভাপতি দিলীপ কুমার রায় বলেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে খবরটি পৌঁছানো সম্ভব হয়নি। তাই আমরা সময় বৃদ্ধির জন্য আবেদন জানিয়েছি। 

মঙ্গলবার শেষ হবে তিন দিনের স্বর্ণমেলা।