SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২০-০৬-২০১৯ ১৩:৫০:৪৮

পিরোজপুরে বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার বন্ধের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

pirojpur

পিরোজপুরে বিদ্যুতের ডিজিটাল প্রি-পেইড মিটার স্থাপন বন্ধ ও স্থাপনকৃত মিটার খুলে নিতে ওজোপাডিকোকে এক মাসের আল্টিমেটাম দিয়েছেন বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকালে পিরোজপুরের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে আয়োজিত প্রিপেইড মিটার বন্ধের দাবিতে খুলনা-বরিশাল মহাসড়কে বলেশ্বর ব্রিজ এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা এ আল্টিমেটাম দেন। এক মাসের মধ্যে দাবি আদায় না হলে আরও কঠিন কর্মসূচিতে যাবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন তারা।

সড়ক অবরোধকালে বক্তারা বলেন, প্রি-পেইড মিটারে কি পরিমাণ জালিয়াতি হচ্ছে তার প্রমাণ মিলবে শুধুমাত্র মিটার ভাড়া আদায় সংক্রান্ত বিষয়টিকে ঘিরেই। কেননা কতদিন পর্যন্ত মিটার ভাড়া নেয়া হবে তা নির্দিষ্ট করে কোথাও বলা নেই এমনকি মিটারের দামও বলা হয়নি। এতে পিরোজপুরের প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকরা শঙ্কিত। পুরনো মিটারটি খুলে যখন নতুন প্রি-পেইড মিটার লাগানো হয়েছিল তখন বলা হয়েছিল মিটারের জন্য কোনো মূল্য নেয়া হবে না। এখন মিটার ক্রয় বাবত প্রতি মাসে টাকা কেটে নিচ্ছে।

গ্রাহকরা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ডিজিটাল এ মিটারে ব্যাংকে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে রিচার্জ করতে হচ্ছে। ১ হাজার টাকা রিচার্জ করলে ৮৩৭ দশমিক ৩৮ টাকার বিদ্যুৎ পাওয়া যায়। বাকি টাকা থেকে মিটার ভাড়া হিসেবে ৪০ টাকা, ডিমান্ড চার্জ ৭৫ টাকাসহ ৫ শতাংশ ভ্যাট হিসেবে ৪৭ দশমিক ৬২ টাকা কেটে নেয়া হয়। ডিজিটাল মিটারে অতিরিক্ত বিল এলে বিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে সমাধান পাওয়া যেত। কিন্তু এখন সমস্যা আরও জটিল। আগে যে গ্রাহকের  প্রতি মাসে ৭০০ টাকা বিল হত তাকে এখন প্রি-পেমেন্ট পদ্ধতিতে একই পরিমাণ বিদ্যুৎ খরচ করে মাসে ১ হাজার ২০০ টাকা থেকে ১ হাজার ৩০০ টাকা পর্যন্ত বিল দিতে হচ্ছে।

পরে  স্থানীয় প্রশাসনের অনুরোধে ঘণ্টাব্যাপী এই সড়ক অবরোধ তুলে নেয় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা।