SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon আন্তর্জাতিক সময়

আপডেট- ১৮-০৬-২০১৯ ১৭:২২:১২

মধ্যপ্রাচ্যে আরো ১ হাজার সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

iran-18jun1-jpg-2

ইরানের সঙ্গে উত্তেজনার জেরে মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত আরো প্রায় ১ হাজার সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন স্বার্থ নিশ্চিত করতেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এরমধ্যেই আগামী দশ দিনের মধ্যে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ আরও বাড়ানোর হুমকি দিয়েছে তেহরান। এদিকে ওমান উপসাগরে দুটি তেলবাহী ট্যাংকারে হামলার নিরপেক্ষ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

ওমান উপসাগরে দুটি তেলবাহী ট্যাংকারে হামলার জেরে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যকার উত্তেজনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তেহরান বরাবর হামলার অভিযোগ অস্বীকার করলেও এবার তাদের জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণ করতে বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে পেন্টাগন। তাদের দাবি, ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ড তেলবাহী ট্যাংকারে হামলা চালিয়েছে।

এ নিয়ে চলমান বিতর্কের মধ্যেই মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত প্রায় ১ হাজার সেনা পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। সোমবার এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান জানান, তারা আকাশ, নৌ এবং স্থলপথের হুমকি মোকাবিলায় কাজ করবেন।

মার্কিন প্রশাসনের এমন পদক্ষেপের মধ্যেই আবারও ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়ানোর হুমকি দিয়েছে ইরান। তবে সংকট সমাধানে ইউরোপীয় দেশগুলোকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানায় দেশটির পরমাণু শক্তি সংস্থা।

ইরান আণবিক শক্তি সংস্থার মুখপাত্র বেহরুজ কামালভান্দি বলেন, আমরা ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ ৪ গুণ করেছি। সম্প্রতি এ হার আমরা আরো বাড়িয়েছি, যাতে ১০ দিনের মধ্যে ইউরেনিয়ামের মজুদে বেঁধে দেয়া সীমা অতিক্রম হয়ে যাবে। তবে ইউরোপের দেশগুলোর কাছে এখনো সময় আছে। চুক্তি রক্ষা করা যদি তাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়, তবে তাদের উচিত সর্বোচ্চ চেষ্টা করা। তারা যত দ্রুত প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নেবে, পরিস্থিতি তত দ্রুত স্বাভাবিক হবে।

তেহরানের এ ঘোষণার পর পরমাণু সমঝোতা রক্ষায় ইরানকে আরো ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। প্যারিসে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে, চুক্তি রক্ষায় আলোচনার আহ্বান জানান তিনি।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ইরান পরমাণু চুক্তির ব্যাপারে যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল এবং আমরা এর প্রশংসা করি। তবে তাদের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়ানোর ঘোষণা দুঃখজনক। আমরা তাদের কাছ থেকে আরো সংযমী ও দায়িত্বশীল আচরণ প্রত্যাশা করি।

এরমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যকার উত্তেজনা নিরসনে ওমান উপসাগরে তেলবাহী ট্যাংকারে হামলার ঘটনার স্বাধীন তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। একইসঙ্গে কোনো সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়ার আগে যুক্তিযুক্ত প্রমাণ উপস্থাপনের আহ্বান জানিয়েছেন ইইউ-এর সদস্য দেশগুলোর পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীরা।