SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ১৬-০৪-২০১৯ ১৩:১৯:৩৯

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে য়্যুভেন্তাসের বিপক্ষে মাঠে নামবে আয়াক্স

og-default1

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে রোমাঞ্চ ছড়াতে য়্যুভেন্তাসের বিপক্ষে মাঠে নামবে আয়াক্স। প্রথম লেগের ড্র ম্যাচে অ্যাওয়ে গোলের সুবিধা আছে যুভদের। তবে সব হিসেব পাল্টে দিয়ে ২২ বছর পর সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে চায় আয়াক্স। তুরিনের য়্যুভেন্তাস স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে আজ (১৬ এপ্রিল) রাত ১টায়।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শীর্ষ চারের স্বপ্নটা দেখতেই পারে য়্যুভেন্তাস। আয়াক্সের মাঠ থেকে ফিরেছে এক পয়েন্ট নিয়ে। সঙ্গে আছে মূল্যবান একটি অ্যাওয়ে গোল। যদিও মাঠের লড়াইয়ে ঘটতে পারে যে কোন কিছু। যার নজির নক আউট পর্বের লড়াই রিয়ালের মাঠে এসে দিয়েছিল ডাচ ক্লাবটি।

তারপরও একজন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যে দলে থাকেন বাজিটা চোখ বন্ধ করে ধরা যায় তাদের পক্ষে। লিগে বিশ্রামে ছিলেন সিআর সেভেন। পূর্ণ উদ্যম নিয়ে এই ম্যাচে মাঠে নামবেন অ্যালেগ্রির তুরুপের তাস। ফেরার তালিকায় আছেন এমরি চ্যান আর কিয়েল্লিনি। ম্যাচ ফিটনেস ফিরে পেলে বদলি হিসেবে দেখা যেতে পারে ডগলাস কস্তাকেও।

গেল পাঁচ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের তিনটি সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার হাতছানি নিয়ে এই ম্যাচে মাঠে নামবে য়্যুভেন্তাস। অনুপ্রেরণা হিসেবে দলটি পাশে পাচ্ছে আয়াক্সের বিপক্ষে টানা ১০ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড। সঙ্গে থাকছে স্বাগতিক সমর্থন। সব মিলিয়ে ম্যাচ নিয়ে দারুণ আশাবাদী যুভ বস মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি।

য়্যুভেন্তাসের কোচ মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি বলেন, প্রথম লেগের ফল নিয়ে কিছু ভাবতে চাচ্ছি না। আমরা নতুন একটি ম্যাচে মাঠে নামতে যাচ্ছি। পরিকল্পনা ওভাবেই সাজানো হয়েছে। আয়াক্সের জন্য সম্মান আছে আমার। কিন্তু দিন শেষে জয়টা আমরা চাই।

ইতালি এসে মিরাকল কিছু ঘটিয়ে দেবে আয়াক্স এমনটা ভাবছে না দলটির সমর্থকরাও। তবে প্রত্যাশা আছে ভালো কিছুর। মাস্টারমাইন্ড এরিক তেন ফন্দি আঁটছেন দৈত্য বধের। কৌশলী হয়েছেন দল নিয়েও। তবে তার চিন্তা বাড়াচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলারদের ইনজুরি। চোটের কারণে ছিটকে গেছেন ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়াং। এছাড়াও তালিকায় আছে আরো বেশ কিছু বড় নাম।

আয়াক্সের কোচ এরিক তেন বলেন, আমস্টারডাম এসে ওরা জিততে পারেনি। কিন্তু এখানে য়্যুভেন্তাস স্পষ্ট ফেভারিট। আমাদের কঠিন পরীক্ষা নেবে ওরা। কিন্তু আমরাও প্রস্তুত। যদিও ইনজুরির কারণে সেরা একাদশ পাচ্ছি না। তবে শিষ্যদের প্রতি আস্থা রাখছি।

এমন ম্যাচে পরিসংখ্যানটাও বিপক্ষে আয়াক্সের। তবে ২২ বছর পর ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের শীর্ষ চারে উঠার তাড়নায় জিউসরা সম্ভব করে ফেলতে পারে অসম্ভবকেও।