SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৬-০৪-২০১৯ ০৫:৪১:১৭

গৃহকর্মী নিয়োগের নীতিমালা মানছেন না কেউ

maid

কার্যকর কোনো আইন বা নীতিমালা না থাকায় একদিকে যেমন নির্যাতনের শিকার দেশের প্রায় এক কোটি গৃহকর্মী, অন্যদিকে গৃহকর্মীর হাতে গৃহপরিচারিকা খুনের ঘটনাও ঘটছে প্রায়ই। ২০১৫ সালে গৃহকর্মী নিয়োগের নীতিমালা প্রণয়ন করা হলেও তা মানছেন না কেউই। সরকারি পক্ষ ব্যর্থতা স্বীকার করলেও দিতে পারলেন না কোনো সমাধান।

গৃহকর্মীর জীবন মানে শুধুই সংগ্রাম। আর অধিকারের বাণী কাগজে-কলমেই লিপিবদ্ধ। নেপথ্যে বেজে চলেছে দীর্ঘশ্বাসের সাতকাহন।

বেসরকারি পরিসংখ্যান বলছে, বর্তমানে দেশে গৃহশ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ১ কোটি। এদের সবাই কোনো না কোনোভাবে নির্যাতনের শিকার। যার ১ শতাংশও গণমাধ্যমে প্রকাশ হয় না। শ্রম আইনের অন্তর্ভুক্ত না হওয়ায় গৃহকর্মীদের নূন্যতম পারিশ্রমিকেরও কোনো নিয়ম নেই।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজের প্রোজেক্ট কো-অর্ডিনেটর নাজমা ইয়াসমিন বলেন, তারা শ্রম আইনের অন্তর্ভুক্ত হলে একটা বড় সুবিধা ছিল। তাহলে তাদের মজুরি নির্ধারণের জন্য মজুরি বোর্ড গঠনের সুযোগ ছিল। এখন তাদের মজুরি নির্ধারণের জন্য কোনো প্রক্রিয়া নেই।

তবে গৃহকর্মী নিয়োগে সরকারের সঠিক কোনো নীতিমালা না থাকায় এর ভয়াবহতায় আক্রান্ত হচ্ছেন গৃহপরিচারিকারাও। সম্প্রতি রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে গৃহকর্মীর হাতে খুন হন ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ। নিয়ম অনুযায়ী, গৃহশ্রমিক নিয়োগের আগে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র থানায় জমা দেয়ার কথা থাকলেও কেউই নিয়ম মানছেন না।

ডিএমপি’র উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, গৃহকর্মী নিয়োগ দেয়ার ক্ষেত্রে কাকে নিয়োগ দিচ্ছেন সেই বিষয়টি জেনে-শুনেই নিয়োগ দেয়া উচিত।

গৃহকর্মী ও গৃহপরিচারিকা উভয়ের অধিকার রক্ষায় সরকার ‘গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি ২০১৫’ প্রণয়ন করলেও এই কল্যাণ নীতির কার্যক্রম কাগজে কলমেই সীমাবদ্ধ। শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি কমিটি গঠন করা হলেও তা যেন ডুমুরের ফুল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর দায় সরকার কোনোভাবেই এড়াতে পারে না।

গৃহকর্মী সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি-২০১৫’র মনিটরিং কমিটির সদস্য আবুল হোসেন বলেন, দৃষ্টিভঙ্গি, আমাদের আন্তরিকতা, আমাদের সাংগঠনিক স্বল্পতা; এগুলোর অভাবেই এসব হচ্ছে।

সমাজবিজ্ঞানী ড. আমনউল্লাহ্ বলেন, সারা দেশে গৃহকর্মীদের দেখভাল করার জন্য যে মনিটরিং সেল সেটা এখনও ফাংশনাল হয়নি।

বর্তমানে দেশে কর্মরত ১ কোটি গৃহশ্রমিকের মধ্যে অপ্রাপ্তবয়স্ক গৃহকর্মীর সংখ্যা ৫০ লাখেরও বেশি।