SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৩-০১-২০১৯ ০৯:০৩:৩১

আসামি-পুলিশের সংঘর্ষে প্রাণ হারালো গার্মেন্টস কর্মী

ngong

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার মদনপুরের চানপুর এলাকায় শনিবার (১২ জানুয়ারি) রাতে ওয়ারেন্টভুক্ত এক আসামি গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে আসামিপক্ষের লোকজনের সাথে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ কয়েক রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটলে পুরো এলাকা পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। সংঘর্ষে আশিক নামের এক গার্মেন্টস কর্মী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এ সময় আসামি পক্ষের সন্ত্রাসীরা পুলিশের দু’টি গাড়ি ভাংচুর করে। আহতদের মধ্যে বাবু নামের এক যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৮ টায় বন্দর থানা পুলিশ মদনপুরের চাঁনপুরে অভিযান চালিয়ে ওয়ারেন্টভুক্ত এক আসামিকে আটক করলে স্থানীয় খলিল মেম্বারের লোকজন ঐ আসামিকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এক পর্যায়ে পুলিশের উপর তারা আক্রমণ চালালে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। ঘটনার সময় এলাকায় ডাকাত আক্রমণ করেছে বলে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেয়া হলে স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়।

এ সময়  পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের সময় আসামিপক্ষের লোকজন ও স্থানীয়রা পুলিশের ২টি গাড়ি ভাংচুর করে। এতে ঘটনাস্থলে ৪ পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ১৫জন আহত হন। এসময় আশিক নামের এক যুবক নিহত হন বলে স্থানীয়রা জানান।

আশিক একটি গার্মেন্টস কারখানায় কাজ করতো বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে। সংঘর্ষের সময় সে বাজারে গিয়ে মাঝখানে আটকা পড়ে নিহত হয়।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই অতিরিক্ত ৩ প্লাটুন পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং এক ঘন্টা পর ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি আজহারুল ইসলাম গুলি ছোড়ার কথা স্বীকার করে জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে। তবে কেউ মারা গেছে বলে জানেন না তিনি।