SomoyNews.TV

আপডেট- ১৩-০১-২০১৯ ০৫:৪৪:৪৪

বাণিজ্য মেলায় 'বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন' যেনো এক খণ্ড বাংলাদেশ

bonggabandhu

ইতিহাস তুলে ধরার প্রয়াস আর ইতিহাস জানার প্রবল ইচ্ছা। এই দুইয়ে মিলে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। যেখানে তুলে ধরা হয়েছে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের পথ পরিক্রমা। তবে, আন্তর্জাতিক মানের মেলা প্রাঙ্গণে ইতিহাস সমৃদ্ধ এমন আয়োজনের পরিসর বাড়ানোর পরামর্শ দর্শনার্থীদের।

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার মূল প্রবেশপথ পার হয়ে সোজা মাঝামাঝি গেলেই ডান পাশে চোখে পড়বে একটি প্যাভিলিয়ন; যার দেয়ালজুড়ে নানা তথ্য আর ছবিতে ফুটে উঠেছে অদম্য এক দেশের ইতিহাস আর তার স্থপতির কথা।

এই প্যাভিলিয়নের ভেতরের দেয়াল সাজানো হয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সোনার বাংলার উত্তরণে অভ্যন্তরীণ ও দ্বিপাক্ষিক অর্থনীতির খণ্ডচিত্র, রাজনৈতিক দর্শন আর জাতির জনক বঙ্গবুন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবনের বর্ণনায়। মেলায় আসা শিশু-কিশোর-কিশোরীদের কাছে যা হয়ে উঠেছে ইতিহাস জানার এক বড় সুযোগ।

শিশু-কিশোর-কিশোরীরা বলেন, বঙ্গবন্ধু যখন কারাবন্দী ছিলেন তখন বাংলাদেশের মানুষের সংগ্রামের কথা জেনেছি। নিজের দেশের ইতিহাস জানতে পেরে ভাল লাগছে। আমরা যারা শিক্ষার্থীর তাদের কাছে বেশি শিক্ষণীয়।

যারা বয়সে বড়, তারাও আসছেন বাংলাদেশ ও এর উত্থানের ইতিহাসকে আরেকবার জানতে ও নতুন প্রজন্মকে জানাতে। ভিন দেশিদেরও আগ্রহ রয়েছে এই প্যাভিলিয়ন ঘিরে।

দর্শনার্থীরা বলেন, অনেক সংগ্রাম করে এই স্বাধীনতা অর্জন। তার একটা বাস্তব চিত্র এখানে দেখলাম। এটাকে আরো বড় আকারে জাতির সামনে তুলে ধরা উচিত। আমাদের সন্তানরা যেন আমাদের ইতিহাস জানতে পারে।

একজন ভিনদেশি বলেন, আমি এখানে ঘুরে ঘুরে দেখলাম। আর এই দেশের ইতিহাস এবং তার জনক সম্পর্কে জানলাম।

বঙ্গবন্ধুর ৩ হাজার ৫৩ দিনের জেল জীবনের বিবরণ, স্বাধীনতার ঘোষণা পত্র, বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র প্রধান ও বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে বৈঠক আর বাংলাদেশ গঠনে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সহযোগিতার তথ্যপূর্ণ পেপার কাটিংয়ে সাজানো এই আয়োজন বড় করার কথা জানালেন ইপিবির প্রতিনিধি।

দর্শনার্থীদের আগ্রহ আর আয়োজক প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে আরও তথ্য সমৃদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলয়নটি পরিণত হবে এক খণ্ড বাংলাদেশে সেই প্রত্যাশা সকলের।