SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৯-০৬-২০১৮ ০৯:১৯:৩৪

জাতীয় ঐক্যেই সরকারকে চাপে রাখতে চায় বিএনপি

al-bnp

নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে চায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। বেশ কিছু রাজনৈতিক দল এ মনোভাবকে স্বাগত জানালেও সরকার দলীয় মহাজোট মনে করে এ ঐক্যের কোনো ভিত্তি নেই। নির্বাচন ইস্যুতে কোনো চাপেই সংবিধানের বাইরে যাবে না আওয়ামী লীগ। বিশ্লেষকরা মনে করেন, এসব ঐক্য প্রয়াসকে উপেক্ষা না করে বরং আওয়ামী লীগরে উচিত কৌশলী দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এগুলোকে দেখা।

 

২০১৪ সালে ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন হওয়ার পর থেকেই নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সোচ্চার হয়ে ওঠে বিএনপি জোট। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি তোলেন দলের শীর্ষ নেতারা। দাবির পক্ষে নিজেদের অবস্থান মজবুত করতে জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলগুলোকে সঙ্গে নিয়ে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির কথাও বলে বিএনপি।

বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘জাতীয় ঐক্য তৈরি হলেই জনগণের মধ্যে ঐক্য তৈরি হবে। অতীতে এরকম অনেকবার মনে হয়েছিল, সরকারকে কিছু করা যাবে না, নির্বাচন কমিশনকে কিছু করা যাবে না, কিন্তু একটা সময় আসে, যখন সবটাই করতে বাধ্য হয়।’

আওয়ামী লীগ নেতারা মনে করেন, আওয়ামী লীগকে ঠেকাতেই জাতীয় ঐক্যের এ কৌশল বেছে নিয়েছে বিএনপি। জনগণের সমর্থন না থাকায় এ ধরণের ঐক্য সরকারের ওপর কোনো চাপ সৃষ্টি করতে পারবেনা বলেও মনে করেন তারা।

আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘ঐক্যর পিছনে জনগণের সমর্থন থাকতে হবে। এধরনের ঐক্য যখন হয় না, তখন আমাদের চাপ নেয়ার কি আছে? আমরা তো কখনও চাপ নেইনি। ব্যক্তি হয়ত চেনা যেতে পারে, কিন্তু দল হিসেবে তো তাদের কোনো অস্তিত্ব নেই।'   

তবে, নির্বাচনের আগের দুই মাসে দেশের রাজনৈতিক চিত্র পাল্টে যাবে বলে মনে করছেন বিএনপি নেতারা।

বিএনপি নেতা মওদুদ বলেন, ‘দুই মাসই অনেক। দেশের মানুষ যখন মাঠে নামবে তখন সকল রাজনৈতিক চিত্র পালটে যাবে।’

জাতীয় ঐক্যের বিষয়ে সরব দলগুলোর শীর্ষ নেতাদের ব্যক্তি ইমেজ ইতিবাচক হলেও রাজনৈতিক শক্তি-সমাবেশের দিক থেকে তাদের দুর্বলতা রয়েছে। এই বাস্তবতা সত্ত্বেও বিরোধী রাজনৈতিক ঐক্য বিষয়ে সরকারি দলকে কৌশলী হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশ্লেষকরা।

রাজনীতি বিশ্লেষক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘রাজনৈতিক শক্তি সঞ্চয় করাটা একটু অন্য রকমের বাস্তব ব্যাপার। সেদিক থেকে তারা সফল হবেন কিনা, তা নিয়ে আমরা যথেষ্ট সন্দিহান। তারা যে উদ্যোগটি গ্রহণ করেছে, আওয়ামী লীগের উচিত হবে না একেবারে উপেক্ষা করা।’

দেশের ভবিষ্যৎ পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখতে রাজনৈতিক অঙ্গনের বড় দুই জোটকেই নির্বাচন ও নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে প্রজ্ঞার পরিচয় দেয়ার পরামর্শ বিশ্লেষকদের।