SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৪-০৫-২০১৮ ০৪:২১:৫২

তামাকের বদলে তুলা চাষে ভাগ্য ফিরেছে বান্দরবানের চাষিদের

bban-cotton1

তামাকের বদলে তুলা চাষ আশীর্বাদ হয়ে দেখা দিয়েছে বান্দরবানের চাষিদের মাঝে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার তুলনামূলকভাবে তুলা চাষে লাভবান হচ্ছেন তারা। প্রশিক্ষণ, উন্নত জাতের তুলার বীজ ও সার প্রদানসহ আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে চাষিদের উদ্বুদ্ধ করে তুলছেন তুলা উন্নয়ন বোর্ড।

 

তুলার সাদা আবরণে ছেয়ে গেছে সবুজ পাহাড়।

 
বান্দরবানের ৭টি উপজেলার বিভিন্ন পাহাড় থেকে তুলা উত্তোলন করছেন চাষিরা। দেশি তুলার পাশাপাশি হাইব্রিড তুলা চাষেও ফলন ভাল পাওয়ায় আগ্রহ বেড়েছে তাদের।পাহাড়ের পরিত্যাক্ত জমিতে পরিকল্পিত ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে তুলা চাষ করে স্বল্প খরচে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। ফলে তামাক চাষের বদলে তুলা চাষে ঝুঁকছেন তারা।

জেলার সাড়ে ছয় হাজার চাষিকে তুলা উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বাজারজাতকরণের উপর বিস্তর প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে তুলা উন্নয়ন বোর্ড। এছাড়া প্রতি সপ্তাহে মাঠ পর্যায়ে পরামর্শ ও সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান বোর্ডের কর্মকর্তারা।

 

মো. শফিকুল ইসলাম (কটন ইউনিট অফিসার, তুলা উন্নয়ন বোর্ড, বান্দরবান সদর) বলেন, আমরা কীটনাশকের পরামর্শ দেই, পোকাদের হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করি আমরা।

জেলায় এবার পাহাড়ী তুলার পাশাপাশি সমভুমির সিবি ১২, ১৩ ও ১৪ জাতের তুলা চাষ হয়েছে। এ বছর ৮ হাজার ৫'শ হেক্টর জমিতে প্রায় দুই হাজার মেট্রিক টন তুলা উৎপাদনের আশা করছে তুলা উন্নয়ন বোর্ড।