SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ০৮-০৫-২০১৮ ১১:২৪:২৭

‘নেপালের মতো দুর্ঘটনা মোকাবিলার সক্ষমতা বাংলাদেশের বিমানবন্দরের নেই’

biman

নেপালের মতো বড় দুর্ঘটনা মোকাবিলার সক্ষমতা বাংলাদেশের কোনো বিমান বন্দরের নেই বলে মনে করেন এভিয়েশন বিশেষজ্ঞরা। সোমবার রাজধানীতে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন আয়োজিত এক সেমিনারে এমন পর্যালোচনা তুলে ধরেন তারা।

 

আলোচকরা বলেন, যে কোন দূর্ঘটনায় প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদানের সক্ষমতা নেই ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেটসহ দেশের কোন বিমানবন্দরেরই। এতে যে কোন দূর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা অনেকগুণ বেড়ে যাবে বলেও মত দেন বিশেষজ্ঞরা। এ অবস্থায় নেপাল দূর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে বিমান পরিবহন খাতের উন্নয়নে নীতিমালা তৈরির জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তারা। সেমিনারে উঠে আসা মতামত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার আশ্বাস দেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান এয়ার কমান্ডার ইকবাল হোসেন বলেন, ‘আজ যদি বিমানবন্দরে কোনো ঘটনা ঘটে, আমরা হয়তো হার্ডলি একটা প্যাসঞ্জারকে বাঁচাতে পারবো। আমাদের বিমানবন্দরগুলোতে কি কোনো পাঁচ থেকে দশ শয্যার জায়গা আছে? বা ডক্টর আছে? এরকম কোনো ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিকভাবে তাদেরকে ফাস্ট এইড দেয়ার মতো কেউ কি আছে?’   

গ্যালাক্সি ফ্লাইং একাডেমির সিইও উইং কমান্ডর নজরুল ইসলাম বলেন, ‘একটা এয়ারলাইন্সের হ্যাঙ্গার নাই। আমি সেফটির কথা বলছি, কোথায় আমি সেফটি এনশিওর করবো যদি আমার হ্যাঙ্গার  না থাকে? ৪৭ বছর পর দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে আমাদের কোনো ন্যাশনাল এভিয়েশন পলিসিই নাই।’