SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ০৮-০৪-২০১৮ ১৫:৪৯:০৩

'দ্বিতীয় জীবন নিয়ে বাসায় ফিরছি'

sharin-up-jpgedt

নেপালের কাঠমাণ্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় আহত শাহরিন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরেছেন। শারীরিক জটিলতা কাটিয়ে উঠলেও তাকে নিয়মিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে হবে বলে জানিয়েছেন ডাক্তার সামন্তলাল সেন। সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন কবির হোসেনের অবস্থা সংকটাপন্ন হলেও ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি এ্যানি ও বিদেশে চিকিৎসাধীন বাকি দুজনের অবস্থা অনেকটা ভাল বলে জানিয়েছেন তিনি।

এ যেন দ্বিতীয় জীবন ফিরে পাওয়া। হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার সময় এভাবেই নিজের অনুভূতি প্রকাশ করছিলেন নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় আহত শাহরিন। জীবনের বাকি সময়টা মানুষের কল্যাণে ব্যয় করার ইচ্ছা তার।

শাহরিন বলেন, যারা বেঁচে ফেরত এসেছি, তারা যেন সুস্থ এবং সাধারণভাবে জীবন যাপন করতে পারি এই প্রত্যাশাই করি। আর এটা তো দ্বিতীয় জীবন। তাই দ্বিতীয় জীবনে যেন ভাল কিছু করতে পারি এই আশা নিয়েই বাড়ি ফিরছি।'

রোববার সকালে ঢাকা মেডিকেল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয় শাহরিনকে। এরপর হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি যান তিনি।

গত ১২ মার্চ নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় বিধ্বস্ত হয় ইউএস বাংলার ফ্লাইট বিএস ২১১। এ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান ৫০জন। যাদের মধ্যে ২৭ জন বাংলাদেশি। আহতদের মধ্যে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন এ্যানির শারীরিক অবস্থা আগের থেকে ভালো। তবে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন কবির হোসেন এখনো সংকটাপন্ন।

ডাক্তার সামন্তলাল সেন বলেন, শাহরিন ভাল আছেন, সুস্থ আছেন । কিন্তু তাকে ফলোআপে থাকতে হবে। তার পায়ে যে ফ্রেকচার আছে, সেটা বেশি কিছু না। কয়েকদিন পর ব্যান্ডেজ খুলে ফেললেই হবে। কবিরের তো ডান পা কেটে ফেলা হয়েছে। বাম পায়ে ক্ষতটা সারিয়ে তোলা যাচ্ছে না। কয়েকদিন পর রিপোর্ট দেখে বলা যাবে  কি করা যাবে। তবে সে এতো ভাল নেই।'

দুর্ঘটনায় আহত ১০ জনের মধ্যে তিন জনকে বিদেশে চিকিৎসা দেয়া হলেও সাত জনকে দেশে আনা হয়। এর মধ্যে শাহিন ব্যাপারী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।