SomoyNews.TV

বিশ্বকাপের সময়

আপডেট- ০৩-০৪-২০১৮ ১৮:১০:৪৫

বিশ্বকাপের ভেন্যু পরিচিতি: স্পার্টাক স্টেডিয়াম

spartak-1

ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজনের সব প্রস্তুতি শেষ করে এনেছে স্বাগতিক রাশিয়া। খেলার জন্য প্রস্তুত টুর্নামেন্টের ১১ শহরের ১২ স্টেডিয়াম। বিশ্বকাপের ১২ ভেন্যুর একটি মস্কোর স্পার্টাক স্টেডিয়াম। রাশিয়ার রাজধানীতে অবস্থিত এই স্টেডিয়ামটির পরিচিতি থাকছে এবারের প্রতিবেদনে।

 

বিশ্বকাপের ২১তম আসর অনুষ্ঠিত হচ্ছে রাশিয়ায়। ১১ শহরের মোট ১২ স্টেডিয়ামে হবে বিশ্বকাপের ৬৪ ম্যাচ। মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে শুরু হবে বিশ্ব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। মাস ঘুরে আবার সেই লুঝনিকিতেই এসে শেষ হবে বিশ্বকাপ।

তবে একমাত্র মস্কোতেই দুটি স্টেডিয়ামে হবে খেলা। লুঝনিকি ছাড়া অপর ভেন্যু স্পার্টাক স্টেডিয়াম। দর্শক ধারণ ক্ষমতায় লুঝনিকির মত বড় না হলেও, রাশিয়ার অন্যতম নান্দনিক স্টেডিয়াম ধরা হয় স্পার্টাক স্টেডিয়ামকে। রাশিয়ার সবচেয়ে সফল ক্লাব স্পার্টাক মস্কোর মাঠ এটি। স্পার্টাক মস্কোর সাদা-লাল জার্সির আদলেই গড়া হয়েছে স্টেডিয়ামটি।

ফিফা বিশ্বকাপকে সামনে রেখে যে স্টেডিয়ামগুলো নতুন করে তৈরী করা হয়েছে, তার মধ্যে সবার আগে শেষ হয় স্পার্টাক স্টেডিয়ামের কাজ। ২০১৪'র সেপ্টেম্বরে নতুন করে চালু হয় এই স্টেডিয়াম।

গেলো বছরের ফিফা কনফেডারেন্স কাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল রাশিয়ার চার ভেন্যুতে। তার একটি ছিলো এই স্পার্টাক স্টেডিয়াম। কনফেডারেশন্স কাপের তৃতীয় স্থান নির্ধারণীসহ মোট ৪টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই ভেন্যুতে।

তবে বিশ্বকাপে বেড়েছে ম্যাচের সংখ্যা। রাউন্ড অব সিক্সটিনের একটি এবং গ্রুপ পর্বের ৪টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ৪৫ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতার এই মাঠে। সেইন্ট পিটার্সবার্গের পর, শুধু মাত্র এই স্টেডিয়ামেই ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা দু'দলই খেলবে। এ মাঠে ১৬ জুন আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে মেসির দল। আর ২৭ জুন সার্বিয়ার বিপক্ষে নিজেদের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলবে নেইমারের ব্রাজিল।

শুধু খেলার জন্যই না, স্টেডিয়ামটিতে আছে এমন কিছু স্থাপনা যা নজর কাড়বে ফুটবল ভক্তদের। স্টেডিয়ামে আছে একটি জাদুঘর। যেখানে সংরক্ষিত স্পার্টাক মস্কো ক্লাবের নানা ইতিহাস। প্রবেশ পথে আছে একটি ভাস্কর্যও। সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে দর্শকদের জন্য দারুণ এক আকর্ষণ হতে পারে স্পার্টাক স্টেডিয়াম।