SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২২-০৩-২০১৮ ১৮:২৫:৩৩

অঝোরে কাঁদলেন বিমানমন্ত্রী!

biman-montri

নেপালের কাঠমাণ্ডুতে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে শেষ তিনজনের মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে শাহজালাল বিমান বন্দরে তাদের মরদেহ গ্রহণ করেন বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাজাহান কামাল। এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের মুখোমুখি হতে গিয়ে দু’চোখ বেয়ে অশ্রু ঝরলো তার।

এর আগে সোমবার এই দুর্ঘটনায় নিহত ২৬ জনের মধ্যে ২৩ জনের মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছায়। বাকি ছিলেন নজরুল ইসলাম, আলিফুজ্জামান এবং পিয়াস রায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাদের মরদেহও দেশে এসে পৌঁছায় কফিনবন্দী হয়ে।

তাদেরকে গ্রহণ করতে এসে বিমানমন্ত্রী হয়ে পড়েন আবেগপ্রবণ। লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সগুলো বিমানবন্দর থেকে বের হওয়ার সময় নিহতদের স্বজনদের সঙ্গে কথা হয় বিমানমন্ত্রীর। ক্যামেরার সামনে বারবার চোখ মুছতে দেয়া যায় তাকে।

এরপর গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে শাজাহান কামাল ধরা গলায় বলেন, ‘প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ, আমি অত্যন্ত শোকাহত। ইউএসবাংলার যে প্লেনটার দুর্ঘটনা ঘটেছে- এর জন্য গোটা জাতি আজ শোকাহত। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমি নিজেই কাঠমাণ্ডুতে গিয়েছিলাম।’

তিনি আরও জানান, ‘যারা আহত হয়েছিলো, তাদেরকে আমি বিভিন্ন হাসপাতালে দেখে এসেছি। তাদের দুইজনকে সিঙ্গাপুরে, একজনকে ভারতে পাঠানো হয়েছে চিকিৎসার জন্য। ঢাকায় ৭ জন চিকিৎসাধীন আছেন।’

শাজাহান কামাল বৃহস্পতিবারে পৌঁচানো নিহতদের নাম উল্লেখ করে বলেন, ‘আমি তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই। প্রধানমন্ত্রী আজও আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন এখানে আসার জন্য। আমরা যারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে, তাদের সবরকম চিকিৎসার ব্যবস্থা করছি।’

‘এত বড় দুর্ঘটনা অতীতে হয়েছে বলে আমার জানা নেই। যাদের লাশ আমরা আজকে হস্তান্তর করেছি, তাদের জন্য আপেনারা দোয়া করবেন।’               

দুর্ঘটনার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি ঘটনার পরেরদিনই গিয়েছি। নেপালের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে, তাদের সামরিক বাহিনী প্রধান এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। আমি তাদেরকে বলেছি, এই যে এত বড় দুর্ঘটনা ঘটে গেল- এটার জন্য দায়ী কে? এটা আপনাদের এয়ারপোর্ট। আমাদের প্লেন এখানে নেমেছে, নামার পরেই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তখন প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন যে, আমি ব্ল্যাকবক্স নিয়ে আসছি, আপনাদের, আমাদের তদন্ত কমিটি এসেছে। আমরা অনতি বিলম্বে এর রিপোর্ট আমরা জানিয়ে দেব। এই মুহূর্তে আমি বলতে পারি না কীবঅবে প্লেনটা অ্যাক্সিডেন্ট করেছে।’

১২ মার্চ ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স-এর ঢাকা থেকে কাঠমাণ্ডুগামী একটি ফ্লাইট ত্রিভুবন এয়ারপোর্টে বিধ্বস্ত হয়। এই দুর্ঘটনায় মারা যান ২৬ বাংলাদেশি। আহত হন আরও অনেকে।