SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৭-০৩-২০১৮ ১৮:৫২:৫৮

বিমান দুর্ঘটনায় আহত রুবায়েদের একটি পাঁজর,পায়ের দুটি হাড় ভাঙ্গা

dmc-total-final-2-jpgedt

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় আহত আরেক বাংলাদেশি শেখ রাশেদ রুবায়েদের পাঁজর ও পায়ের দুটি হাড় ভেঙে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। শনিবার বিকেলে কাঠমান্ডু থেকে দেশে ফেরার পর তাকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এদিকে চিকিৎসাধীন বাকি চারজনের সবাই আশঙ্কামুক্ত। তবে এত বড় দুর্ঘটনার পর ট্রমার মধ্যে থাকায় তাদের মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

 

শনিবার বেলা সাড়ে তিনটা নাগাদ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান উইএস বাংলার বিধ্বস্ত বিমানের আহত আরেক যাত্রী শেখ রাশেদ রুবায়েদ। সেখান থেকেই তাকে সরাসরি নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেলে। পরে জানানো হয় রাশেদের সবশেষ শারীরিক অবস্থা।

সামন্ত লাল সেন বলেন, 'তার বুকের পাঁজরে একটা হাড় ভাঙ্গা, আর পায়ের সফট কিছু টিস্যু ইনজুরি। আপাতত যারা এসেছে তাদের মধ্যে সে সুস্থই।'

এদিকে, বিমান দুর্ঘটনায় আহত ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন চার জনের সবাই আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান। এসময় নেপালে চিকিৎসাধীন আরও দুজনকে রোববার দেশে আনা হবে বলে জানানো হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ বলেন, তারা এখন সম্পূর্ণ আশঙ্কামুক্ত। তাদের বড় ধরনের কোনো সমস্যা নেই। সরকারের পক্ষ থেকে তাদের সব ধরনের চিকিৎসা সহায়তা দেয়া হচ্ছে। তাদের ক্লিনিক্যাল কোনো সমস্যা নেই তবে মানসিক ট্রমা হয়েছে।'

বেঁচে ফেরা সকলেই ট্রমায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. ফারুক আলম। এজন্য তাদেরকে দীর্ঘমেয়াদী মানসিক চিকিৎসা দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

ফারুক আলম আরও বলেন, সবারই দীর্ঘমেয়াদী স্বাস্থ্যসেবা লাগবে। অনেক সময় পাঁচ বছর পরও মানুষ এগুলো ভোলেন না। অনেক সময় এসব কারণে আত্মহত্যার প্রবণতা পর্যন্তও আসে।'

এপর্যন্ত নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় আহত পাঁচ জন বাংলাদেশিকে দেশে নিয়ে আসা হয়েছে।