আপডেট
০৭-১২-২০১৭, ০৩:২৭
মহানগর সময়

একাত্তরে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রেরণার অনন্ত উৎস হয়েছিলেন সংস্কৃতিসেবীরা

culture-war
একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে সাংস্কৃতিক কর্মীদের ছিল গৌরবদীপ্ত ভূমিকা। গান, কবিতায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাহস আর প্রেরণার অনন্ত উৎস হয়েছিলেন সংস্কৃতিসেবীরা। তাদের অবদানে মুক্তিসংগ্রাম পায় বিশেষ গতি।

গানে গানে মুক্তির বার্তা নিয়ে ছুটে বেড়িয়ে ছিলেন সাংস্কৃতিক কর্মীরা। একাত্তরে সেই ভয়াল সময়ে গানই হয়ে ওঠে অস্ত্র। একাত্তরে সংস্কৃতি কর্মীরা ‘বাংলাদেশ সহায়ক সমিতি’ এবং পরে ‘বাংলাদেশ মুক্তিসংগ্রামী শিল্পী সংস্থা’ নামে গানের দল গঠন করে। পথে-প্রান্তরে ঘুরে ঘুরে তেজদীপ্ত সংলাপ, কবিতা আর গানে শানিত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে। ট্রাকে করে এক শরণার্থী শিবির থেকে অন্য শরণার্থী শিবিরে ছুটে বেরিয়েছে তারা। দিয়েছে সাহস আর বেঁচে থাকার প্রেরণা। এছাড়া ভারতে বিভিন্ন স্থানে বাংলাদেশের পক্ষে জনমত সৃষ্টি এবং তহবিল গঠনে ভূমিকা পালন করেন সংস্কৃতিকর্মীরা।

বাঙালির অস্ত্রযুদ্ধ শুরু হয়েছিল প্রতিরোধের প্রথম প্রহরে। তবে সাংস্কৃতিক লড়াইয়ের শুরু তার অনেক আগে। ভাষা আন্দোলন দিয়ে শুরু হয়ে একাত্তরে সম্পৃক্তি।

এ বিষয়ে ভাষা সৈনিক ও গবেষক আহমদ রফিক বলেন, সাহিত্য-সংস্কৃতির চর্চা আমাদের রাজনীতিতে ইতিবাচক হিসেবে এসেছিল। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রেই ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছিল দেশের সাহিত্য ও সংস্কৃতি।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিকাশে রাজনৈতিক আন্দোলনের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক জাগরণ হয়ে ওঠে সংগ্রামের ভিন্ন হাতিয়ার।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম বলেন, পাকিস্তান সরকার যখন রবীন্দ্রনাথকে নিষিদ্ধ করেছিল তখন আমরা সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে গণজাগরণ সৃষ্টি করেছিলাম যা পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন।


একাত্তরের মতো আজও সংস্কৃতিকর্মীরা সর্বত্রই অশুভের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ডাক দিয়ে যাবেন এটাই প্রত্যাশা।

এমএইচ




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে