খেলার সময় ডেস্ক
আপডেট
০৬-১২-২০১৭, ২২:৪৩
খেলার সময়

পাইবাসের ১০ বছরের পরিকল্পনা মনে ধরেছে বিসিবির!

untitled-2
হাথুরুসিংহে পদত্যাগের পর থেকে বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচের পদটি শূন্য। সেই শূন্যস্থান পূরণে তোড়জোড় শুরু করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি। বিসিবির এমন ব্যস্ততা দেখে আন্দাজ করা যায়, অন্তর্বর্তীকালীন দেশী কোচের চিন্তা পাশে সরিয়ে দ্রুততম সময়ের মধ্যে স্থায়ী কোচ নিয়োগের চেষ্টা করছেন তারা।

এরই ধারাবাহিকতায় তিন জন কোচের সংক্ষিপ্ত একটি তালিকাও করেছে বিসিবি। যে তালিকায় সবার চেয়ে এগিয়ে আছেন ইংলিশ বংশোদ্ভূত কোচ রিচার্ড পাইবাস।

কোচ পদের জন্য 'পরীক্ষা' দিতে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকায় আসেন পাইবাস। শের-ই-বাংলায় গিয়ে বিপিএলের ম্যাচও দেখেছেন। আজ বিসিবির কাছে সাক্ষাৎকার দেন। সাক্ষাৎকারটা নাকি ভালোই হয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে ১০ বছরের পরিকল্পনা তুলে ধরেছেন বিসিবি কর্তাদের সামনে। পাইবাসের সঙ্গে সাক্ষাৎ পর সাংবাদিকদের এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন।

'পাইবাসের প্রেজেন্টেশন অবশ্যই ভালো। এটা নিয়ে কোনো সন্দেহ নাই। অনেক দূরের ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেছেন। ১০ বছরের একটা পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করবে। তিনি লম্বা সময়ের পরিকল্পনা নিয়ে এসেছেন। কিন্তু আমাদের দু’টোই দেখতে হবে। লং টার্ম, শর্ট টার্ম দু’টোই দেখতে হবে। সামনে বিশ্বকাপ আছে, সেটাও আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তিনি যা চান, যেমন চান এখনই হয়তো সব পারবো না। তবে শেষ পর্যন্ত ওই পরিকল্পনা কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশের জন্যই ভালো হবে।' বলছিলেন পাপন।

পরিকল্পনা তুলে ধরার পাশাপাশি মাশরাফি-সাকিবদের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহও জানিয়েছেন তিনি।

বিসিবির তোড়জোড় থাকলেও শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে কোচ নিয়োগ চূড়ান্ত হবে কিনা সেটা নিশ্চিত নয় বলে জানান বিসিবি সভাপতি। তবে এই মুহূর্তে বিসিবির প্রধান কাজ কোচ নিয়োগ দেয়া বলেও জানান তিনি।


তিনি বলেন, 'শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে কোচ নিয়োগ হবে কিনা, এটা এই মুহূর্তে বলা মুশকিল তবে আমরা চেষ্টা করছি যতদ্রুত সম্ভব একটা কোচ নিয়ে নেয়ার। আপাতত আমাদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কোচ নিয়োগ দেয়া। সামনের সিরিজটার আগে কোচ নিয়োগ দিতে নাও পারতে পারি তবে একজন স্থায়ী কোচ তো আমাদের দরকার।

সামনের সিরিজের আগে যদি কোচ নিয়োগ দিতে না পারলে সেক্ষেত্রে কি পরিকল্পনা করা হবে সেসব কিছু নিয়েও আলোচনা হচ্ছে বলে জানান পাপন।

কোচ নিয়োগের বিষয়ে ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাপ আলোচনার প্রথা বিসিবিতে চালু নেই বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

এ প্রসঙ্গে বিসিবি বস বলেন, 'অনেক খেলোয়াড়ের সঙ্গেই আলাপ হয়েছে। একেকজনের একেকরকম চিন্তা। সেগুলো আমরা শুনেছি। অনেকে হয়তো মনে করে বিদেশি কোচেরই দরকার নেই, অনেকে মনে করেন স্থানীয় কোচ হলে ভালো হয়। আবার অনেকে মনে করে তাদের কোচেরই দরকার নেই। এখন একেকজনের চিন্তা তো থাকবেই তবে বোর্ডই সিদ্ধান্ত নেবে কোনটা ভালো হয়।'

পাইবাসের পর আগামী ৯ ডিসেম্বর কোচের পরীক্ষা দিতে আসবেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক খেলোয়াড় ফিল সিমন্স। পাশাপাশি আরো কিছু কোচের সঙ্গেও কথা হয়েছে বলে জানান পাপন। বিসিবির নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্য, সেই তালিকাতে আছেন জিওফ মার্শও।

বিসিবি সভাপতি বলেন, '৯ তারিখে আসবে ফিল সিমন্স। তার আগেও একজন আসার কথা। তার নাম এখন বলছি না। কারণ, যেহেতু এখনও তারিখ ঠিক হয়নি, তেমন নিশ্চয়তা এখনও মেলেনি। আরও কয়েক জনের সঙ্গে কথা হচ্ছে।'

এর আগে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হিসেবে ২০১২ সালের মে মাসে স্টুয়ার্ট ল’র স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন পাইবাস। দু’বছরের জন্য চুক্তি হলেও পাঁচ মাস পরই দলের দায়িত্ব থেকে সরে যান তিনি। সেবার তাঁর অভিজ্ঞতা ছিলো তিক্ততায় ভরা। বর্তমানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করছেন ৫৩ বছর বয়সী পাইবাস। এর আগে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি।

বোর্ডের কাছে 'পরীক্ষা' দিয়ে বিসিবি থেকে বের হবার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি পাইবাস। শুধুমাত্র বলেছেন, 'দিনটি আমার জন্য ভালো ছিলো। অন্যদিন কথা হবে।'

ব্যাটে বলে মিলে গেলে কথা তো হবেই।

/এসএম




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে