আপডেট
১২-১০-২০১৭, ১৭:১০

‘মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের চিরতরে বিতাড়িত করতেই কঠোর নির্যাতন’

-myan-12oct-4pm-1
মিয়ানমার সরকার সুপরিকল্পিতভাবে রোহিঙ্গাদের চিরতরে বিতাড়িত করতে কঠোর নির্যাতনের কৌশল অবলম্বন করেছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার দফতর। রোহিঙ্গারা স্থানীয় নয় বলে দাবি করলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আনান কমিশনের প্রতিবেদন নিয়ে শুনানির জন্য শুক্রবার অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে বসছে নিরাপত্তা পরিষদ। এদিকে, সরিয়ে দেয়া হচ্ছে মিয়ানমারে জাতিসংঘের বিতর্কিত শীর্ষ কর্মকর্তা রেনেটা লক ডেসালিয়ে-কে।
গত দেড় মাসে ৫ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসার পরও থামছে না দেশটির সেনাবাহিনীর দমন পীড়ন। এখনও প্রতিদিন হাজার হাজার রোহিঙ্গা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় করে পাড়ি দিচ্ছেন নদী কিংবা সাগর। এই যখন অবস্থা তখন জাতিসংঘ জানালো মিয়ানমার সরকার ইচ্ছাকৃত ভাবে রোহিঙ্গাদের চিরতরে তাদের ভূমি থেকে বিতাড়িত করতে কঠোর নির্যাতনের এই কৌশল অবলম্বন করছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় এক প্রতিবেদনে জানায়, গত ২৫শে আগস্ট আরসা মিয়ানমারের পুলিশ চৌকিতে হামলার আগেই দেশটির বিভিন্ন বাহিনী জাতিগত নিধন অভিযানে নামে। রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে তৈরি ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পাশাপাশি ঐ দফতরের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের ওপর সহিংসতা বন্ধে অং সান সুচির প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

জ্যোতি সাংঘেরা বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি রোহিঙ্গাদের ওপর খুব সংগঠিত এবং সুপরিকল্পিত কৌশলে হামলা চালানো হয়েছে। অনুসন্ধানের আমরা আরও জানতে পেরেছি রাখাইনের উত্তরাঞ্চলে রোহিঙ্গাদের ঘর-বাড়ি, সহায়-সম্বল জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা শঙ্কায় আছি শুধু তাদের তাড়িয়ে দিতেই নয় বরং তারা যেন আর কখনও ফিরতে না পারে সে ব্যবস্থা করতেই এমন কঠোর কৌশল নিয়েছে দেশটি।’

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো কথা বলেনি মিয়ানমার সরকার। বরং রোহিঙ্গাদের স্থানীয় নয় বলে দাবি করলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান। রোহিঙ্গা নির্যাতন নিয়ে কিছু না বললেও দেশটিতে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে তিনি বলেন, পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের যে সংখ্যা বলা হচ্ছে তা গণমাধ্যম বাড়িয়ে বলছে।

এর মধ্যে মিয়ানমারে জাতিসংঘের বিতর্কিত শীর্ষ কর্মকর্তা রেনেতা লোক ডেসালিয়েকে অবশেষে সরিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আগামী মাস থেকে তিনি আর মিয়ানমারে থাকছেন না। এই জাতিসংঘ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিতাড়নের বিষয়ে মিয়ানমার সরকারের পরিকল্পনা ও গোপন নীতি জেনেও তা ধামা চাপা দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।


এদিকে রোহিঙ্গা সংকট ইস্যুতে আনান কমিশনের প্রতিবেদন নিয়ে শুনানির জন্য শুক্রবার অনানুষ্ঠানিক এক বৈঠকে বসছে নিরাপত্তা পরিষদ। এছাড়াও জাতিসংঘের রাজনৈতিক সম্পর্ক প্রধান জেফরি ফেল্টম্যান শুক্রবার মিয়ানমার সফরে যাচ্ছেন বলে নিশ্চিত করেছেন সংস্থাটির মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে