আপডেট
১৯-০৫-২০১৭, ১৬:৪৭

আগাম নির্বাচনের দাবিতে ভেনিজুয়েলায় বিক্ষোভ অব্যাহত

ভেনেজুয়েলায় সরকার বিরোধী চলমান আন্দোলনের মধ্যেই দেশটির বিরোধীদলীয় নেতা হেনরিক ক্যাপ্রিলস-এর পাসপোর্ট জব্দ করেছে সরকার। জাতিসংঘে দেশটির রাজনৈতিক সঙ্কট নিয়ে আলোচনায় তার নিউইয়র্ক ভ্রমণ ঠেকাতেই এমনটা করা হয়েছে বলে দাবি বিরোধীদের। এদিকে, আগাম নির্বাচনসহ বিভিন্ন দাবিতে বৃহস্পতিবারও ভেনেজুয়েলার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ হয়। এদিন, নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচিতে টিয়ার গ্যাস ছোঁড়ার অভিযোগ পাওয়া যায়। কয়েক সপ্তাহ ধরে সরকার বিরোধী ও বিক্ষোভকারীদের চলমান সংঘাত ও সহিংসতায় যুদ্ধ নগরীতে পরিণত হয়েছে ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাস। সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ করে এপ্রিলের শুরুতে রাজপথে নামে দেশটির সাধারণ মানুষ। মূলত ২৯শে মার্চ বিরোধীদল নিয়ন্ত্রিত সংসদের ক্ষমতা সুপ্রিমকোর্টের হাতে নেয়ার ঘোষণার পরই গণআন্দোলন শুরু হয়। ৩ দিন পরে রায় পরিবর্তন হলেও আন্দোলন আর থামানো যায়নি।

প্রায় ২ মাসে ধরে চলা এ আন্দোলনে সরকারি বাহিনীর গুলিতে অন্তত ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হন শতাধিক মানুষ। এছাড়া নিরাপত্তাবাহিনীর হাতে আটক রয়েছেন প্রায় ২ হাজার নাগরিক।

এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবারও বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে কারাকাস ও এর আশপাশের অঞ্চল। বিক্ষোভ দমনে নিরাপত্তাবাহিনী তাদের ওপর জলকামান ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। হুইল চেয়ারে করে বিক্ষোভে যোগ দেওয়া এক প্রতিবন্ধীর ওপরও চড়াও হতে দেখা যায় নিরাপত্তাবাহিনীকে। আন্দোলনকারীরা দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রীর গাড়িবহরে ইটপাটকেল ও গুলি ছুঁড়লে তাকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়।

এ কর্মসূচিতে যোগ দেন বিরোধীদলীয় নেতারাও। আন্দোলনকে শান্তিপূর্ণ উল্লেখ করে সরকারের পদত্যাগ দাবি করেন বিরোধীদল সমর্থিত এই আইনপ্রণেতা। এসময় বিক্ষোভকারীদের শান্তিপূর্ণ পরিবেশে আন্দোলনের সুযোগ দিতে নিরাপত্তাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি। জোয়ান রিকুইসেন্স বলেন, 'এ পরিস্থির পরিবর্তন চাই। আমরা গণতন্ত্র চাই। সহিংসতা বন্ধে, শান্তি প্রতিষ্ঠায় এখানে উপস্থিত হয়েছি। সরকার জনগকে হত্যা করছে, আটক করছে। এগুলো কখনোই গণতান্ত্রের চর্চা হতে পারে না। আমরা জনগণের সঙ্গে আছি ও থাকবো।'

ভেনেজুয়েলার বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য জাতিসংঘের সদর দপ্তরে রওনা দিলে বিরোধীদলীয় নেতা হ্যানরিক ক্যাপলিসের পাসপোর্ট জব্দ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এমন পরিস্থিতে নিজের অসহায়ত্বের কথা তুলে এক ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেন ক্যাপ্রিলস। জনগণের এ আন্দোলনের প্রতি শুরু থেকেই মারমুখী ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। প্রেসিডেন্টের দাবি, বিরোধীদল এবং যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানিতে এসব করছে জনগণ। একইসঙ্গে আন্দোলনকারীদের সন্ত্রাসী উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্তেরও ঘোষণা দেন মাদুরো।

এদিকে, বিরোধীদের ওপর দমন-নিপীড়নে সরকারকে সমর্থন দেয়ার ভেনেজুয়েলার সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতিসহ সাত বিচারকের ওপর নিষেধাজ্ঞা অরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। স্বাধীন সার্বভৌম ভেনেজুয়েলার প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণকে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করে দেশটির সরকার।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে