SOMOYNEWS.TV

টিভি দেখতে ক্লিক করুন

মধ্যপ্রাচ্য সংকট সমাধানে দ্বিরাষ্ট্র নীতি থেকে সরে আসার ঘোষণা ট্রাম্পের

Update: 2017-02-16 16:12:38, Published: 2017-02-16 16:12:39
isra-pales-up
ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকট সমাধানে দ্বিরাষ্ট্র নীতি থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একইসঙ্গে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে একটি কার্যকরী শান্তিচুক্তির জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন তিনি।

তবে, ট্রাম্পের এ ঘোষণার বিরোধিতা করে দ্বিরাষ্ট্র গঠনের পক্ষে অটল থাকার কথা জানিয়েছে ফিলিস্তিন। আলাদা দুটি রাষ্ট্র গঠনই মধ্যপ্রাচ্য সংকটের একমাত্র সমাধান বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও।

প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর তৃতীয় কোনো দেশের সরকার প্রধান হিসেবে বুধবার হোয়াইট হাউসে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহুকে স্বাগত জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নির্বাচনী প্রচারণার সময়েই মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের এ মিত্র দেশটি পক্ষ নিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলনে ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকট সমাধানের পদ্ধতি প্রশ্নে পূর্ববর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্টদের অবস্থান থেকে সরে এসে দ্বিরাষ্ট্র নীতির বদলে একক রাষ্ট্র গঠনের প্রতি সমর্থনের কথা জানান তিনি।

দ্বিরাষ্ট্র নীতি শান্তির পথ ত্বরান্বিত করছে না উল্লেখ করে একটি গ্রহণযোগ্য শান্তিচুক্তির জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টার অঙ্গীকার করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'আমি দ্বিরাষ্ট্র ও এক রাষ্ট্র দুটি উপায়েই সমাধানের কথা ভেবেছি। তবে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আমি একক রাষ্ট্র গঠনের পক্ষে। শান্তিচুক্তির জন্য ইসরাইল ও ফিলিস্তিন উভয়কেই ছাড় দিতে হবে।'

তবে, স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আরব দেশগুলোকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী।

ট্রাম্পের ঘোষণার পরপরই ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের দপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে- স্বাধীন ও সার্বভৌম দুই রাষ্ট্র সমাধানের পক্ষে অটল থাকার কথা জানানো হয়। একইসঙ্গে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ইসরাইলকে অবৈধ বসতি নির্মাণ পুরোপুরি বন্ধের আহ্বান জানানো হয়।

স্বাধীন ফিলিস্তিনে রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে রত দেশটির অন্যতম রাজনৈতিক দল- পিএলও'র মহাসচিব সায়েব এরেকাত বলেন- দুই নীতি চালু রেখে একক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা বর্ণবাদ মেনে নেয়ারই নামান্তর।

দুটি আলাদা রাষ্ট্র গঠনের নীতির বিরোধিতা করা, বর্ণবাদকেই সমর্থন করার সামিল। একুশ শতকে দুটি ভিন্ন ধর্ম ও জাতিগোষ্ঠীর মানুষের জন্য এক রাষ্ট্র হতে পারে না।

ট্রাম্প-নেতানিয়াহু এ বৈঠকের আগে বুধবার কায়রোতে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন- দ্বিরাষ্ট্রের পথে হাঁটা ছাড়া ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকটের বিকল্প সমাধান নেই।

ট্রাম্প নিজের অবস্থান ঘোষণার পর মহাসচিবের মুখপাত্র জানান- ২০০২ সালে মাদ্রিদে প্রতিষ্ঠিত চতুর্পক্ষ তথা জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও রাশিয়ার প্রস্তাব করা দ্বিরাষ্ট্র নীতিকেই সমর্থন করে সংস্থাটি।

জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র ফারহান হক বলেন, 'মধ্যপ্রাচ্যের দীর্ঘস্থায়ী ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকটের ভবিষ্যত পরিস্থিতি বিবেচনায় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে এ মুহূর্তে জাতিসংঘ মধ্যপ্রাচ্য সংকট সমাধানে গঠিত চার পক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দুই রাষ্ট্র ভিত্তিক সমাধানকেই সমর্থন করছে।'

১৯৮২ সালে ফেজ সম্মেলনে ১৯৬৭ সালের আগের সীমানা বজায় রেখে ইসরাইল-ফিলিস্তিন আলাদা দুটি রাষ্ট্র গঠনের ধারণা প্রকাশ করে আরব রাষ্ট্রগুলো।

পরে ১৯৯১ সালে মাদ্রিদ সম্মেলন ও ১৯৯৩ সালে অসলো শান্তি আলোচনায়ও বিষয়টির কিছুটা অগ্রগতি হয়। কিন্তু, ফিলিস্তিনের দীর্ঘ দিনের দাবি সত্ত্বেও ইসরাইল অবৈধ বসতি নির্মাণ বন্ধ না করায় দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের বিষয়টি প্রায় থমকে আছে।

Update: 2017-02-16 16:12:38, Published: 2017-02-16 16:12:39

More News
loading...

সর্বশেষ সংবাদ



Contact Address

89, Bir Uttam CR Dutta Road,
Banglamotor, Dhaka 1205, Bangladesh.
Fax: +8802 9670057, Email: info@somoynews.tv
উপরে