ksrm
JoyBD odhikarnews sonargaonuniversity niet
আপডেট
১২-০১-২০১৯, ২০:০৩

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের প্রশ্নের জবাব দিলেন জয়

joy-gfx1
একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয় নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপনকারীদের জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। নির্বাচন নিয়ে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের নানা অভিযোগের প্রেক্ষাপটে শনিবার (১২ জানুয়ারি) নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে এক স্ট্যাটাসে তিনি আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয় ও ঐক্যফ্রন্টের পরাজয়ের কারণ তুলে ধরেন।

সজিব ওয়াজেদ জয় লেখেন, এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিএনপির চেয়ে প্রায় ৪ কোটি ৯০ লাখ ভোট বেশি পেয়েছে। এতো বড় ব্যবধানে জয় কখনোই কারচুপির মাধ্যমে আদায় করা সম্ভব নয়। তার লেখায় দাবি করা হয়, আওয়ামী লীগের বাইরে যদি সব ভোট বিএনপি- জামায়াতের পক্ষে যেতো তা হলেও কমপক্ষে ২ কোটি ২০ লাখ ভোট বেশি পেতো আওয়ামী লীগ। 

জয়ের ফেসবুক পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হল-

সাম্প্রতিক নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টকে বাংলাদেশের মানুষ পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই তারা এখন তাদের বিদেশী প্রভুদের কাছে নালিশ করছে ও সাহায্য চাইছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যোগাযোগ ও লবিং এর মাধ্যমে তারা প্রমাণ করতে চাইছে যে নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে, যা পরিসংখ্যান মোতাবেক একেবারেই অসম্ভব। আওয়ামী লীগ বিএনপি থেকে প্রায় ৪ কোটি ৯০ লক্ষ বেশি ভোট পেয়েছে। এতো বড় ব্যবধানের জয় কখনোই কারচুপির মাধ্যমে আদায় করা সম্ভব না। তারা বলছে ভয় ভীতির কথা, কিন্তু যদি আমরা ধরেও নেই আওয়ামী লীগের বাইরের সকল ভোট বিএনপি-জামাত এর পক্ষেই যেত, তাহলেও ২ কোটি ২০ লক্ষ ভোটের ব্যবধান থাকতো বিএনপি আর আওয়ামী লীগের মধ্যে।

তারপরেও আমাদের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা কেউ কেউ বিএনপির এই আন্তর্জাতিক লবিং এর সাথে সমান তালে গলা মিলিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছে। তাদের অভিযোগগুলোর উত্তর দেয়ার পাশাপাশি আমি নিজেও কিছু কথা বলতে চাই।

তাদের প্রথম অভিযোগ, ভোটার সংখ্যা ছিল অত্যধিক, তার মানে ভুয়া ভোট দেয়া হয়েছে। এবার ভোট দেয়ার হার ছিল ৮০ শতাংশ, যা বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ইতিহাসে সর্বোচ্চ নয়। ২০০৮ সালের 'তত্ত্বাবধায়ক সরকারের' অধীনে নির্বাচনে ভোট দেয়ার হার ছিল ৮৭ শতাংশ, যা এখন পর্যন্ত রেকর্ড। সেই নির্বাচনটিতেও আওয়ামী লীগ ৪৭ শতাংশ ভোট পেয়ে ব্যাপক ব্যবধানে জয় পেয়েছিলো। ২০০১ সালে ভোট দেয়ার হার ছিল ৭৫.৬ শতাংশ আর ১৯৯৬ সালে ছিল ৭৫ শতাংশ। ওই দুইটি নির্বাচনের তুলনায় এবার ভোট দেয়ার হার সামান্য বেশি ছিল কারণ এক দশকে এটাই ছিল প্রথম অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন।


দ্বিতীয় অপপ্রচার হচ্ছে আওয়ামী লীগ নাকি এবার ৯০ শতাংশ ভোট পেয়েছে। এই কথাটি পুরোপুরি মিথ্যা। আওয়ামী লীগ ভোট পেয়েছে ৭২ শতাংশ। মহাজোটের অন্যান্য শরিকরা পেয়েছে ৫ শতাংশের কম ভোট। এই ৭২ শতাংশও আওয়ামী লীগের এর জন্য সর্বোচ্চ না। কারণ ১৯৭৩ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পেয়েছিলো ৭৩.২ শতাংশ ভোট। সেইবার যেমন স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামে নেতৃত্ব দেয়ার কারণে আওয়ামী লীগ বিশাল বিজয় পেয়েছিলো, এবারের নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের ভোট বাড়ার পেছনে আছে দুইটি সুনির্দিষ্ট কারণ।

প্রথম কারণটি খুবই পরিষ্কার। আওয়ামী লীগ আমলে মানুষের জীবনমানের উন্নতি হয়েছে যেকোনো সময়ের থেকে বেশি। আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ হয়েছি, মাথাপিছু আয় প্রায় তিনগুণ বেড়েছে, দারিদ্রের হার অর্ধেক করা হয়েছে, মোটামুটি সবাই এখন শিক্ষার সুযোগ, স্বাস্থ্যসেবা ও বিদ্যুতের সুবিধা পাচ্ছে ইত্যাদি। বাংলাদেশের মানুষের জন্য যে উন্নয়ন আওয়ামী লীগ সরকার করেছে তা এখন দৃশ্যমান।

আমাদের সুশীল সমাজ সবসময়ই বলার চেষ্টা করে বাংলাদেশের ভোটাররা নাকি পরিবর্তন চায়। এইসব ঢালাও কথাবার্তা, যার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।এ থেকেই বুঝা যায় আসলে তারা কতটা জনসম্পৃক্ততাহীন। আপনি যদি একজন সাধারণ মানুষ হন, এমনকি ধনী ব্যবসায়ীও হন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বাংলাদেশের অর্থনীতি যেই হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, তার সুফল আপনিও পাচ্ছেন। কেউ কেন এমন একটি সরকারের বিরুদ্ধে ভোট দিতে চাইবে যাদের আমলে তার জীবন বা ব্যবসার উন্নতি ঘটেছে?

দ্বিতীয় কারণ হচ্ছে আমাদের নির্বাচনী প্রচার কিন্তু গত বছর শুরু হয়নি। আমরা ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর থেকে আমাদের প্রচারণা শুরু করে দিয়েছিলাম। জনগণের কাছে আমাদের উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দেয়ার কোনো সুযোগই হাতছাড়া করিনি। আমরা তাদেরকে বুঝিয়েছি যা উন্নয়ন ও অগ্রগতি হচ্ছে তা আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার কারণেই হচ্ছে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক যত উন্নয়ন দেখা যাচ্ছে তার পেছনে আছে আমাদের দলের ভিশন, পৰিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও পরিশ্রম। যার কৃতিত্ব আমাদের দলীয় মন্ত্রী, সাংসদ, কাউন্সিলর সহ সকলের। যখন আমাদের বিরোধী পক্ষ ও সুশীল সমাজ ব্যস্ত ছিল সমস্যা ও নালিশ নিয়ে, আমরা ব্যস্ত ছিলাম জনগণকে সমস্যার সমাধান দিতে।

সুশীল সমাজের একটি বড় অপপ্রচার হচ্ছে নতুন ভোটাররা রাজনৈতিক দল নিয়ে মাথা ঘামায় না ও তাদের বেশিরভাগই নাকি পরিবর্তন চায়। তারা বুঝতে পারেনি যে এই নতুন ভোটাররা আমাদের আমলের উন্নয়নের মধ্যে বড় হয়েছে যা তাদের জীবনকে করেছে আরো সহজ ও উন্নত। তারা কেন আমাদের ভোট দিবে না?

২০১৩ সাল থেকেই আওয়ামী লীগের জন্য আমি জনমত জরিপ করাই। আপনারা হয়তো খেয়াল করেছেন যে এবার কিন্তু সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে কোনো জরিপ আসেনি। ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে কিন্তু তারা ঠিকই একের পর এক জরিপ প্রকাশ করছিলো দেখানোর জন্য আওয়ামী লীগের অবস্থা কত খারাপ। আসলে বাংলাদেশে খুব কম ব্যক্তি বা সংগঠনই সঠিকভাবে জনমত জরিপ করতে পারে। হার্ভার্ডে থাকতে আমি জনমত জরিপের উপর পড়াশুনা করি। জরিপ করতে আমরা যাদের ব্যবহার করি তাদের বাছাই করার আগে আমি নিজে একাধিক গবেষণা সংগঠনের সাথে বসে আলাপ করি। ভুয়া জরিপ করে নিজেদের জনপ্রিয়তা দেখানোর কাজ আমরা করিনা, কারণ আমাদের জন্যই সঠিক তথ্যটি পাওয়া খুবই জরুরি। আমরা জানতে চেষ্টা করি নির্বাচনী লড়াইয়ে আমাদের অবস্থান ও সক্ষমতা, তাই জরিপের ব্যাপারে আমরা খুবই সতর্ক থাকি।

নির্বাচনের দুই সপ্তাহ আগে আমাদের জরিপ থেকে আমরা জানতে পারি আওয়ামী লীগ পাবে ৫৭ থেকে ৬৩ শতাংশ ভোট আর বিএনপি পাবে ১৯ থেকে ২৫ শতাংশ ভোট। তাহলে আমরা ৭২ শতাংশ ভোট কিভাবে পেলাম? আমাদের জরিপের জন্য স্যাম্পল নেয়া হয় ৩০০ আসন থেকে, অর্থাৎ ১০ কোটি ৪০ লক্ষ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে থেকে। কিন্তু ভোট দেয়ার হার কখনোই ১০০ শতাংশ হয় না আর ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন হয়েছিল ২৯৮ টি আসনে। ২৯৮ টি আসনে ১০ কোটি ৩৫ লক্ষ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে ৮০ শতাংশ ভোট দিয়েছেন, অর্থাৎ ৮ কোটি ২৮ লক্ষ। আওয়ামী লীগ পেয়েছে প্রায় ৬ কোটি ভোট। ১০ কোটি ৩৫ লক্ষ ভোটারের মধ্যে ৬ কোটি মানে ৫৮ শতাংশ। অর্থাৎ, আমাদের জরিপের সাথে এই বিষয়টি মিলে যায়।

কিন্তু বিএনপি-ঐক্য ফ্রন্ট কেন এতো কম ভোট পেলো? কিছু যৌক্তিক কারণে। বিএনপির চেয়ারপার্সন দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত হয়ে জেলে আছেন। তাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সনও দণ্ডিত আসামি, আছেন দেশের বাইরে পালিয়ে। তাদের সংগঠনের অবস্থা করুন। তার থেকেও বড় আরেকটি কারণ আছে যা আমাদের সুশীল সমাজ সহজে বলতে চায় না। যেই কারণটি বিএনপির জনপ্রিয়তায় ধসের পেছনে সবচেয়ে বড় ফ্যাক্টর বলে আমি মনে করি।

জনমত জরিপগুলো থেকে খেয়াল করেছি যে বিএনপি ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত যে অগ্নিসন্ত্রাস চালায় তার পর থেকেই তাদের জনপ্রিয়তায় ব্যাপক ধস নামে। পেট্রল বোমা সন্ত্রাসের আগে জরিপগুলোতে বিএনপি আওয়ামী লীগ থেকে জনপ্রিয়তায় ১০ শতাংশ পিছিয়ে থাকতো। কিন্তু রাজনীতির নামের সন্ত্রাসবাদের কারণে তাদের সাথে আওয়ামী লীগের ব্যবধান ৩০ শতাংশ হয়ে যায় আর তারপর থেকেই বাড়তেই থাকে।

এছাড়া তাদের আত্মঘাতী নির্বাচনী প্রচারণার বিষয়টিও আমাদের আমলে নিতে হবে। নির্বাচনী প্রচারণায় কমতি ছিল পরিষ্কারভাবেই। তার উপর তারা তারেক রহমানের মাধ্যমে নিজেদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়। আর মানুষের মনে ভেসে উঠে হাওয়া ভবন আমলের দুর্নীতি ও সহিংসতার দুঃসহ সব স্মৃতি। তারেক রহমান আবার মনোনয়ন দেন একাধিক চিহ্নিত অপরাধী ও যুদ্ধাপরাধীদের। এর মাধ্যমে কি তাদের জনপ্রিয়তা বাড়বে না কমবে?

নির্বাচনের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তাদের সমর্থকদের তারা ইঙ্গিত দেয় যে তারা নির্বাচন থেকে সরে আসবে। আপনি যদি মনে করেন আপনার দল নির্বাচনেই আসবে না, তাহলে কি আপনি ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুত হবেন? এই কারণে তাদের নিজেদের সমর্থকদেরও ভোট দেয়ার হার কম ছিল যার ফলশ্রুতিতে তারা ভোট পায়ও কম।

বিএনপি-ঐক্য ফ্রন্টের বার্তাই ছিল আওয়ামী লীগ খারাপ। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ সেই বার্তা গ্রহণ করেনি কারণ তারা নিজেরাই দেখেছে কিভাবে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে তাদের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে।

ঐক্য ফ্রন্টের নেতা কামাল হোসেন নিজে নির্বাচনই করেননি। কারণ উনি জানতেন উনি কোনো আসন থেকেই জিততে পারবেন না। কিন্তু তারা আমাদের কিছুটা অবাকও করেছেন। ভোটের লড়াইয়ে প্রথমবারের মতন কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণ ফোরাম একটি নয়, দুইটি আসন থেকে জয়লাভ করে। কারচুপি যদি হতোই তাহলে যে দল আগে কোনো নির্বাচনেই কোনো আসন পায়নি তারা কিভাবে দুইটি আসনে জিতে?

সত্য আসলে বেশি জটিল না। বাংলাদেশের জনগণ, বিশেষ করে তরুণরা, দেখছে কিভাবে শেখ হাসিনার মতন একজন ডাইনামিক নেত্রী দেশকে উন্নতি ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তাই বিরোধীপক্ষের শত অপবাদ, অপপ্রচার ও কাদা ছোড়াছুড়ি কোনো কাজে আসেনি। কারণ দিন শেষে মানুষ তাকেই বেছে নেয় যে তাকে উন্নত জীবন দিতে পারবে।



DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
হাতিরঝিল থেকে ৫০০০ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার প্রথমার্ধ গোলশূন্য সুবর্ণচরে বজ্রপাতে একজন নিহত ভারত ফেবারিট, পাকিস্তান আন্ডারডগ : কপিল দেব শিগগিরই ছন্দে ফিরবে বাংলাদেশ দল, বললেন সোহান অনূর্ধ্ব-১৪ জাতীয় নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু মঙ্গলবার তামিম-সাকিবদের সামনে বল করে রোমাঞ্চিত নেট বোলাররা নারায়ণগঞ্জে স্কুল ক্রিকেটের ফাইনাল অনুষ্ঠিত জর্ডান ফেরত নারীকে চলন্ত বাসে ধর্ষণের চেষ্টা চার ম্যাচ পরে দক্ষিণ আফ্রিকার রাজকীয় জয় লঙ্কানদের উড়িয়ে শীর্ষে অষ্ট্রেলিয়া আফগানদের ওপর 'রাগ' ঝাড়লেন প্রোটিয়া বোলাররা পিলারে বেঁধে ব্যবসায়ীকে নির্যাতন, বরখাস্ত চার পুলিশ মমতার ডাকে সাড়া দিলেন না চিকিৎসকরা ওভার কমলো আফগানিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচের ভারতে মাওবাদীদের হামলায় নিহত ৫ পুলিশ প্রস্তাবিত বাজেট জনমুখী: এফবিসিসিআই গরমের পর সিক্ত হলো প্রকৃতি ঝালকাঠি থেকে ১৮ রুটের বাস চলাচল বন্ধ স্বপ্ন পরিবহনের বাসে নারীকে ধর্ষণ চেষ্টা, চালক-হেলপার গ্রেফতার চট্টগ্রামে কারারক্ষী সাইফুল ইয়াবাসহ আটক মাশরাফির হয়ে ঢাল ধরলেন তামিম, হাসিমুখে কড়া জবাব ওসি মোয়াজ্জেমের দেশত্যাগ ঠেকাতে বেনাপোলে সতর্কতা সারাদেশে শুরু হলো জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা সামান্য বৃষ্টিতেই চট্টগ্রামে জলজট গাছে বেঁধে গৃহবধূ নির্যাতনের ঘটনায় ওসি প্রত্যাহার ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার বড় সংগ্রহ ভেঙে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসা ব্যবস্থা সব বাহিনীকে অপরাধ দমনে সক্ষমতা অর্জন করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী নারায়ণগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সড়কে হকার উচ্ছেদ মন্ত্রীর জন্য বৃষ্টিতে শিক্ষার্থীদের দাঁড় করিয়ে রাখলেন শিক্ষক অনুশীলনে চোট পেলেন মুশফিক প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সংশয় জাপা ও সরকারের শরীকদের ‘শেখ হাসিনা বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল’ ইংল্যান্ডে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে খেলায় মাতলেন টাইগাররা বিশ্বের ১৫ কোটি শিশু এখনো শিশুশ্রমের শিকার: জাতিসংঘ ঈদযাত্রায় এবার দুর্ঘটনায় নিহত ২৯৮ হাসপাতাল ছাড়লেন অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান বিক্ষোভ উত্তাল বিশ্বের বিভিন্ন দেশ শেষ হলো এসসিও শীর্ষ সম্মেলন অপরাধী প্রত্যর্পণের বিল স্থগিত করেছে হংকং সাইক্লোন বায়ুর দিক পরিবর্তন, যাচ্ছে গুজরাটের দিকে প্রতিবন্ধীকে নির্যাতন: এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে সাবেক কাস্টমস কর্মকর্তা বিষাক্ত ধোঁয়া থেকে বাঁচতে গাইবান্ধাবাসীর প্রতিবাদ অপহরণের ১৫ দিনপর শিক্ষার্থীকে উদ্ধার, আটক ২ বাজেট প্রত্যাখ্যান করলো গণফোরাম-ঐক্যফ্রন্ট ‘বিদেশি অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর হচ্ছে সরকার’ শান্তি-স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতের তাগিদ রাষ্ট্রপতির ‘সীমান্তে কাউকে টার্গেট করে হত্যা করা হয় না’ ‘বাজেট জনমুখী ও ব্যবসা বান্ধব’ দীপনপুর বুক ক্যাফেতে দুইটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী দৃক গ্যালারিতে আলোকচিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত দূতাবাস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ভারতীয় তরুণীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ কচুয়ায় বাড়ির লোককে বেঁধে রেখে মালামাল লুট ভাগ্নেকে অপহরণের অভিযোগে সোহেল তাজের স্ট্যাটাস চেলসি ছাড়ছেন মৌরিসিও সারি সরবরাহ কম থাকায় খুলনায় বেড়েছে মাছের দাম তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে জিডি কোপা আমেরিকায় মুখোমুখি কলম্বিয়া-আর্জেন্টিনা ব্রাজিল-বলিভিয়ান কোচের প্রতিক্রিয়া ঝালকাঠির ১৮ রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাস ধর্মঘট সিরাজগঞ্জে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে আহত ২০ রাজনীতিতে আবারও সক্রিয় হচ্ছেন বিদিশা বৃষ্টিতে শুরু আষাঢ় উদ্বোধনী ম্যাচে ৩-০’র জয় ব্রাজিলের বাজেট নিয়ে বিএনপি বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে: কাদের চাঁদপুরের পাইকারি মাছের বাজার জমজমাট ইকোসকের সদস্যপদ পেল বাংলাদেশ আবর্জনায় ভরা রাজধানীর খালগুলোতে জলাবদ্ধতার আশঙ্কা বিয়ের স্টেজ ভেঙে আহত ফখরুল মাশরুম কেন খাবেন ‘এবারের বাজেট ঐতিহাসিক ও জনবান্ধব বাজেট’ ‘বাজেটে কৃষিখাত বরাবরের মতো উপেক্ষিত’ আষাঢ়ের প্রথম দিন আজ নতুন অর্থবছরে ১০ প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ ৩৬ হাজার কোটি তুমুল সমালোচনার মুখে সৌদির ‘হালাল নাইটক্লাব’ বাহরাইনে জুলাই থেকে প্লাস্টিক ব্যাগ নিষিদ্ধ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-কিশোরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ৫০ চট্টগ্রামে এসএসসি ১৯৯৮ ব্যাচের ঈদ উৎসব ‘জাপানিজ মেসি’ রিয়াল মাদ্রিদে! টন্টনে অনুশীলনে বাংলাদেশ নীলফামারীতে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু নাটোরে বজ্রপাতে নারীর মৃত্যু ঠাকুরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশুর মৃত্যু শরীয়তপুরে সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে ২ জনের মৃত্যু নাটোরে নারীর মরদেহ উদ্ধার ইজতেমার ছবি পেল ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক পুরস্কার কুয়েতে পৃথিবীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড কৌতিনহোর জোড়া গোলে এগিয়ে ব্রাজিল ফেনীতে বিশ্ব রক্তদাতা দিবস পালিত আজকের রাশিফল (১৫ জুন ২০১৯) বন্ধুর সহায়তা পাবেন মীন, বৃষের অর্থব্যয় পঞ্চগড়ে ট্রাক চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত সমতায় শেষ ব্রাজিল-বলিভিয়ার প্রথমার্ধ কাঁচকলার যত উপকারিতা ঈদের আমেজ কাটেনি পর্যটন শহর কক্সবাজারে রাজশাহীতে জমে উঠেছে আম বাজার আবারও মাঠে গড়াচ্ছে প্রিমিয়ার লিগ ফুটবল মাঠের কথা বিবেচনায় রেখে একাদশ পরিবর্তন করা হবে: পাপন 'রুমান সানার অর্জন দেশের সকল অ্যাথলিটদের জন্যও দৃষ্টান্ত' ব্রাজিল বলিভিয়া লড়াই দিয়ে উদ্বোধন হবে কোপার
আরও সংবাদ...
আড়ংকে জরিমানা করা সেই কর্মকর্তাকে বদলি ৬ হাজার টাকার এক বালিশ ফ্ল্যাটে তুলতে খরচ ৭৬০ টাকা! রূপপুর প্রকল্পে রাঁধুুনির বেতন ৮০ হাজার, গাড়ি চালকের ৯২ হাজার! দেশের কোথাও চাঁদ দেখার খবর পাওয়া যায়নি আড়ংকে জরিমানা করা সেই কর্মকর্তার বদলি স্থগিত, স্বপদে বহালের নির্দেশ ১৬তম লোকসভা ভেঙে দিতে বৈঠক সন্ধ্যায় বিশ্বকাপের মূল বাছাইপর্বে বাংলাদেশ ঈদ বৃহস্পতিবার অভিনব কায়দায় ক্রেতা ঠকাচ্ছে আড়ং, জরিমানা সাড়ে ৪ লাখ মক্কা ঘোষণার ১৩ দফা চূড়ান্ত, জেরুজালেম হবে ফিলিস্তিনের ৪ লাখ টাকা ঈদ সালামি পেলেন মাহি টাঙ্গাইলে ধর্ষণের শিকার শত বছরের বৃদ্ধা ফের বৈঠকে কমিটি, রাত ১১টায় ব্রিফিং নতুন ঘূর্ণিঝড়ের দামামা, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আঘাত হানবে ভারত-পাকিস্তানে চাঁদ দেখা গেছে অফিসে আপনার সন্তানদের ছবি ঝুলান, আমার নয়: ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয় মেঘনা-গোমতী সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বুধবারই ঈদ চাঁদ দেখা গেছে, সৌদিতে ঈদ মঙ্গলবার বালিশ-কেতলি উঠানোর খরচ শুনে হাসলেন বিচারপতিরা মাশরাফির নায়িকা হতে চাই: পূজা চেরি অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে গেলেন হামদর্দের এমডি ছাত্রলীগের নীতি-আদর্শ বিরোধী ১৭ জনের নাম প্রকাশ খেতে দেয়ার শর্তে মেয়েকে সব সম্পদ লিখে দিয়ে পথের ভিখারি বাবা নেইমারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, ভিডিও প্রকাশ করলেন নারী হারল, খেলও দেখালো বাংলাদেশ ডাচবাংলার বুথে জালিয়াতি: ধরা পড়লো ৬ বিদেশি ওয়ানডেতে এত রান আগে করেনি বাংলাদেশ রাজমিস্ত্রি সেজে খুনি ধরলেন এসআই! সৌম্যর প্রেমে পড়েছিলেন পূজা চেরি (ভিডিও) কৃষকের কাছ থেকে ধান কিনতে ডিসিকে নির্দেশ দিলেন মাশরাফি নুরুকে পিষে দিল একের পর এক গাড়ি জাম্পার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ (ভিডিও) সেই বৃদ্ধা মায়ের পা ধরে ক্ষমা চেয়ে ঘরে নিলেন সন্তানরা দিনে ৩৬ ডিম, ৫ কেজি মাংস, ৫ লিটার দুধ খান এই ব্যক্তি ছুটছে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রবাহী বোট, আতঙ্কে যুক্তরাষ্ট্র নেইমারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ মোবাইল চার্জে রেখে ঘুম, প্রাণ গেল যুবকের! ২২ জোড়া জুতা, ৫৫ জামা নিয়ে বিশ্বকাপে পিয়া বিকাশে প্রতারণার শিকার হয়ে তরুণীর আত্মহত্যা মন্ত্রিপরিষদে রদবদল ফেসবুকে ছাত্রলীগ নেতাদের চাঞ্চল্যকর তথ্য ভাইরাল অতিরিক্ত সুন্দরী হওয়ায় ট্রাফিকের জরিমানা! ফেবারিটের মতো জিতল বাংলাদেশ ৭২ ঘণ্টায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ২২ জনের মৃত্যু ‘মুসলিম বিশ্বের প্রাণ কেন্দ্রে হামলার নকশা’ খালি পেটে লিচু হতে পারে মৃত্যুর কারণ আমাকে জোর করে বাদ দেয়া হয়েছে, কেঁদে বললেন শেহজাদ ঈদে নেতাকর্মীদের নিয়ে সাঁতার কাটলেন মওদুদ বিমানবালা ফারজানাকে রিমান্ডে চায় পুলিশ
আরও সংবাদ...


somoytv subscribe
সময়ের সকল ভিডিও দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে