bpl
আপডেট
১২-০১-২০১৯, ২০:০৩

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের প্রশ্নের জবাব দিলেন জয়

joy-gfx1
একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয় নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপনকারীদের জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। নির্বাচন নিয়ে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের নানা অভিযোগের প্রেক্ষাপটে শনিবার (১২ জানুয়ারি) নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে এক স্ট্যাটাসে তিনি আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয় ও ঐক্যফ্রন্টের পরাজয়ের কারণ তুলে ধরেন।

সজিব ওয়াজেদ জয় লেখেন, এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিএনপির চেয়ে প্রায় ৪ কোটি ৯০ লাখ ভোট বেশি পেয়েছে। এতো বড় ব্যবধানে জয় কখনোই কারচুপির মাধ্যমে আদায় করা সম্ভব নয়। তার লেখায় দাবি করা হয়, আওয়ামী লীগের বাইরে যদি সব ভোট বিএনপি- জামায়াতের পক্ষে যেতো তা হলেও কমপক্ষে ২ কোটি ২০ লাখ ভোট বেশি পেতো আওয়ামী লীগ। 

জয়ের ফেসবুক পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হল-

সাম্প্রতিক নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টকে বাংলাদেশের মানুষ পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই তারা এখন তাদের বিদেশী প্রভুদের কাছে নালিশ করছে ও সাহায্য চাইছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যোগাযোগ ও লবিং এর মাধ্যমে তারা প্রমাণ করতে চাইছে যে নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে, যা পরিসংখ্যান মোতাবেক একেবারেই অসম্ভব। আওয়ামী লীগ বিএনপি থেকে প্রায় ৪ কোটি ৯০ লক্ষ বেশি ভোট পেয়েছে। এতো বড় ব্যবধানের জয় কখনোই কারচুপির মাধ্যমে আদায় করা সম্ভব না। তারা বলছে ভয় ভীতির কথা, কিন্তু যদি আমরা ধরেও নেই আওয়ামী লীগের বাইরের সকল ভোট বিএনপি-জামাত এর পক্ষেই যেত, তাহলেও ২ কোটি ২০ লক্ষ ভোটের ব্যবধান থাকতো বিএনপি আর আওয়ামী লীগের মধ্যে।

তারপরেও আমাদের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা কেউ কেউ বিএনপির এই আন্তর্জাতিক লবিং এর সাথে সমান তালে গলা মিলিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছে। তাদের অভিযোগগুলোর উত্তর দেয়ার পাশাপাশি আমি নিজেও কিছু কথা বলতে চাই।

তাদের প্রথম অভিযোগ, ভোটার সংখ্যা ছিল অত্যধিক, তার মানে ভুয়া ভোট দেয়া হয়েছে। এবার ভোট দেয়ার হার ছিল ৮০ শতাংশ, যা বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ইতিহাসে সর্বোচ্চ নয়। ২০০৮ সালের 'তত্ত্বাবধায়ক সরকারের' অধীনে নির্বাচনে ভোট দেয়ার হার ছিল ৮৭ শতাংশ, যা এখন পর্যন্ত রেকর্ড। সেই নির্বাচনটিতেও আওয়ামী লীগ ৪৭ শতাংশ ভোট পেয়ে ব্যাপক ব্যবধানে জয় পেয়েছিলো। ২০০১ সালে ভোট দেয়ার হার ছিল ৭৫.৬ শতাংশ আর ১৯৯৬ সালে ছিল ৭৫ শতাংশ। ওই দুইটি নির্বাচনের তুলনায় এবার ভোট দেয়ার হার সামান্য বেশি ছিল কারণ এক দশকে এটাই ছিল প্রথম অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন।


দ্বিতীয় অপপ্রচার হচ্ছে আওয়ামী লীগ নাকি এবার ৯০ শতাংশ ভোট পেয়েছে। এই কথাটি পুরোপুরি মিথ্যা। আওয়ামী লীগ ভোট পেয়েছে ৭২ শতাংশ। মহাজোটের অন্যান্য শরিকরা পেয়েছে ৫ শতাংশের কম ভোট। এই ৭২ শতাংশও আওয়ামী লীগের এর জন্য সর্বোচ্চ না। কারণ ১৯৭৩ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পেয়েছিলো ৭৩.২ শতাংশ ভোট। সেইবার যেমন স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামে নেতৃত্ব দেয়ার কারণে আওয়ামী লীগ বিশাল বিজয় পেয়েছিলো, এবারের নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের ভোট বাড়ার পেছনে আছে দুইটি সুনির্দিষ্ট কারণ।

প্রথম কারণটি খুবই পরিষ্কার। আওয়ামী লীগ আমলে মানুষের জীবনমানের উন্নতি হয়েছে যেকোনো সময়ের থেকে বেশি। আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ হয়েছি, মাথাপিছু আয় প্রায় তিনগুণ বেড়েছে, দারিদ্রের হার অর্ধেক করা হয়েছে, মোটামুটি সবাই এখন শিক্ষার সুযোগ, স্বাস্থ্যসেবা ও বিদ্যুতের সুবিধা পাচ্ছে ইত্যাদি। বাংলাদেশের মানুষের জন্য যে উন্নয়ন আওয়ামী লীগ সরকার করেছে তা এখন দৃশ্যমান।

আমাদের সুশীল সমাজ সবসময়ই বলার চেষ্টা করে বাংলাদেশের ভোটাররা নাকি পরিবর্তন চায়। এইসব ঢালাও কথাবার্তা, যার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।এ থেকেই বুঝা যায় আসলে তারা কতটা জনসম্পৃক্ততাহীন। আপনি যদি একজন সাধারণ মানুষ হন, এমনকি ধনী ব্যবসায়ীও হন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বাংলাদেশের অর্থনীতি যেই হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, তার সুফল আপনিও পাচ্ছেন। কেউ কেন এমন একটি সরকারের বিরুদ্ধে ভোট দিতে চাইবে যাদের আমলে তার জীবন বা ব্যবসার উন্নতি ঘটেছে?

দ্বিতীয় কারণ হচ্ছে আমাদের নির্বাচনী প্রচার কিন্তু গত বছর শুরু হয়নি। আমরা ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর থেকে আমাদের প্রচারণা শুরু করে দিয়েছিলাম। জনগণের কাছে আমাদের উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দেয়ার কোনো সুযোগই হাতছাড়া করিনি। আমরা তাদেরকে বুঝিয়েছি যা উন্নয়ন ও অগ্রগতি হচ্ছে তা আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার কারণেই হচ্ছে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক যত উন্নয়ন দেখা যাচ্ছে তার পেছনে আছে আমাদের দলের ভিশন, পৰিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও পরিশ্রম। যার কৃতিত্ব আমাদের দলীয় মন্ত্রী, সাংসদ, কাউন্সিলর সহ সকলের। যখন আমাদের বিরোধী পক্ষ ও সুশীল সমাজ ব্যস্ত ছিল সমস্যা ও নালিশ নিয়ে, আমরা ব্যস্ত ছিলাম জনগণকে সমস্যার সমাধান দিতে।

সুশীল সমাজের একটি বড় অপপ্রচার হচ্ছে নতুন ভোটাররা রাজনৈতিক দল নিয়ে মাথা ঘামায় না ও তাদের বেশিরভাগই নাকি পরিবর্তন চায়। তারা বুঝতে পারেনি যে এই নতুন ভোটাররা আমাদের আমলের উন্নয়নের মধ্যে বড় হয়েছে যা তাদের জীবনকে করেছে আরো সহজ ও উন্নত। তারা কেন আমাদের ভোট দিবে না?

২০১৩ সাল থেকেই আওয়ামী লীগের জন্য আমি জনমত জরিপ করাই। আপনারা হয়তো খেয়াল করেছেন যে এবার কিন্তু সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে কোনো জরিপ আসেনি। ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে কিন্তু তারা ঠিকই একের পর এক জরিপ প্রকাশ করছিলো দেখানোর জন্য আওয়ামী লীগের অবস্থা কত খারাপ। আসলে বাংলাদেশে খুব কম ব্যক্তি বা সংগঠনই সঠিকভাবে জনমত জরিপ করতে পারে। হার্ভার্ডে থাকতে আমি জনমত জরিপের উপর পড়াশুনা করি। জরিপ করতে আমরা যাদের ব্যবহার করি তাদের বাছাই করার আগে আমি নিজে একাধিক গবেষণা সংগঠনের সাথে বসে আলাপ করি। ভুয়া জরিপ করে নিজেদের জনপ্রিয়তা দেখানোর কাজ আমরা করিনা, কারণ আমাদের জন্যই সঠিক তথ্যটি পাওয়া খুবই জরুরি। আমরা জানতে চেষ্টা করি নির্বাচনী লড়াইয়ে আমাদের অবস্থান ও সক্ষমতা, তাই জরিপের ব্যাপারে আমরা খুবই সতর্ক থাকি।

নির্বাচনের দুই সপ্তাহ আগে আমাদের জরিপ থেকে আমরা জানতে পারি আওয়ামী লীগ পাবে ৫৭ থেকে ৬৩ শতাংশ ভোট আর বিএনপি পাবে ১৯ থেকে ২৫ শতাংশ ভোট। তাহলে আমরা ৭২ শতাংশ ভোট কিভাবে পেলাম? আমাদের জরিপের জন্য স্যাম্পল নেয়া হয় ৩০০ আসন থেকে, অর্থাৎ ১০ কোটি ৪০ লক্ষ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে থেকে। কিন্তু ভোট দেয়ার হার কখনোই ১০০ শতাংশ হয় না আর ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন হয়েছিল ২৯৮ টি আসনে। ২৯৮ টি আসনে ১০ কোটি ৩৫ লক্ষ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে ৮০ শতাংশ ভোট দিয়েছেন, অর্থাৎ ৮ কোটি ২৮ লক্ষ। আওয়ামী লীগ পেয়েছে প্রায় ৬ কোটি ভোট। ১০ কোটি ৩৫ লক্ষ ভোটারের মধ্যে ৬ কোটি মানে ৫৮ শতাংশ। অর্থাৎ, আমাদের জরিপের সাথে এই বিষয়টি মিলে যায়।

কিন্তু বিএনপি-ঐক্য ফ্রন্ট কেন এতো কম ভোট পেলো? কিছু যৌক্তিক কারণে। বিএনপির চেয়ারপার্সন দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত হয়ে জেলে আছেন। তাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সনও দণ্ডিত আসামি, আছেন দেশের বাইরে পালিয়ে। তাদের সংগঠনের অবস্থা করুন। তার থেকেও বড় আরেকটি কারণ আছে যা আমাদের সুশীল সমাজ সহজে বলতে চায় না। যেই কারণটি বিএনপির জনপ্রিয়তায় ধসের পেছনে সবচেয়ে বড় ফ্যাক্টর বলে আমি মনে করি।

জনমত জরিপগুলো থেকে খেয়াল করেছি যে বিএনপি ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত যে অগ্নিসন্ত্রাস চালায় তার পর থেকেই তাদের জনপ্রিয়তায় ব্যাপক ধস নামে। পেট্রল বোমা সন্ত্রাসের আগে জরিপগুলোতে বিএনপি আওয়ামী লীগ থেকে জনপ্রিয়তায় ১০ শতাংশ পিছিয়ে থাকতো। কিন্তু রাজনীতির নামের সন্ত্রাসবাদের কারণে তাদের সাথে আওয়ামী লীগের ব্যবধান ৩০ শতাংশ হয়ে যায় আর তারপর থেকেই বাড়তেই থাকে।

এছাড়া তাদের আত্মঘাতী নির্বাচনী প্রচারণার বিষয়টিও আমাদের আমলে নিতে হবে। নির্বাচনী প্রচারণায় কমতি ছিল পরিষ্কারভাবেই। তার উপর তারা তারেক রহমানের মাধ্যমে নিজেদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়। আর মানুষের মনে ভেসে উঠে হাওয়া ভবন আমলের দুর্নীতি ও সহিংসতার দুঃসহ সব স্মৃতি। তারেক রহমান আবার মনোনয়ন দেন একাধিক চিহ্নিত অপরাধী ও যুদ্ধাপরাধীদের। এর মাধ্যমে কি তাদের জনপ্রিয়তা বাড়বে না কমবে?

নির্বাচনের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তাদের সমর্থকদের তারা ইঙ্গিত দেয় যে তারা নির্বাচন থেকে সরে আসবে। আপনি যদি মনে করেন আপনার দল নির্বাচনেই আসবে না, তাহলে কি আপনি ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুত হবেন? এই কারণে তাদের নিজেদের সমর্থকদেরও ভোট দেয়ার হার কম ছিল যার ফলশ্রুতিতে তারা ভোট পায়ও কম।

বিএনপি-ঐক্য ফ্রন্টের বার্তাই ছিল আওয়ামী লীগ খারাপ। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ সেই বার্তা গ্রহণ করেনি কারণ তারা নিজেরাই দেখেছে কিভাবে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে তাদের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে।

ঐক্য ফ্রন্টের নেতা কামাল হোসেন নিজে নির্বাচনই করেননি। কারণ উনি জানতেন উনি কোনো আসন থেকেই জিততে পারবেন না। কিন্তু তারা আমাদের কিছুটা অবাকও করেছেন। ভোটের লড়াইয়ে প্রথমবারের মতন কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণ ফোরাম একটি নয়, দুইটি আসন থেকে জয়লাভ করে। কারচুপি যদি হতোই তাহলে যে দল আগে কোনো নির্বাচনেই কোনো আসন পায়নি তারা কিভাবে দুইটি আসনে জিতে?

সত্য আসলে বেশি জটিল না। বাংলাদেশের জনগণ, বিশেষ করে তরুণরা, দেখছে কিভাবে শেখ হাসিনার মতন একজন ডাইনামিক নেত্রী দেশকে উন্নতি ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তাই বিরোধীপক্ষের শত অপবাদ, অপপ্রচার ও কাদা ছোড়াছুড়ি কোনো কাজে আসেনি। কারণ দিন শেষে মানুষ তাকেই বেছে নেয় যে তাকে উন্নত জীবন দিতে পারবে।



DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
বাঁ-হাতি ওয়ার্নার, ডানহাতে গেইলের বলে ছয় মারলেন (ভিডিও) ফেডারেশনের কার্যক্রমকে গতিশীল করার নির্দেশ ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দাবি নিয়ে আলোচনাসভা জাতীয় দল তৈরিতে ভূমিকা রাখবে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট মিরপুরের উইকেটে রান তোলা অনেক কঠিন : মোহাম্মদ শাহজাদ মাঠের খেলায় বাজিমাত করতে চায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব জাতীয় স্কুল-কলেজ তায়কোয়ান্দো শুরু ২০ জানুয়ারি যশোরে ঘৌড়দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত রাতে মাঠে নামবে রিয়াল-অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ মারকানা স্টেডিয়ামে কিংবদন্তি নারী ফুটবলারের নামে কর্নার মাঠের বাইরে হ্যারি কেইন দলে ডাক পেলেন ব্রাভো মানু সোহনিই আইসিসির প্রধান নির্বাহী বিপিএলে বাজি, ভারতীয় নাগরিকের ১ মাসের কারাদণ্ড অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জয়ের ধারায় ফেবারিটরা ছিটমহলে প্রথমবারের মতো ক্রিকেট টুর্নামেন্ট রেললাইনে হাত পা বেঁধে হত্যাচেষ্টা, গ্রেফতার ৩ বৃহস্পতিবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস নেবেন তথ্যমন্ত্রী নারীরা কেন লাস্যময়ী সেলফি তোলেন অভিবাসী অপরাধীদের বিষয়ে আরো কঠোর হচ্ছে ফিনল্যান্ড তুষারপাতে বিপর্যস্ত ইউরোপের জনজীবন মাশরাফির রংপুরকে হারাল সিলেট ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে গোপালগঞ্জে সাংবাদ সম্মেলন আমিরাতে জ্বলন্ত ভবন থেকে ছুঁড়ে ফেলা শিশুকে বাঁচালেন বাংলাদেশি মেক্সিকোর সাবেক প্রেসিডেন্টকে ঘুষ দিয়েছিলেন মাদকব্যবসায়ী নানা দাবিতে উত্তাল বিভিন্ন দেশের রাজপথ ২০১৮ সালে রাশিয়া-চীন বাণিজ্য ১০ হাজার ৭০০ কোটি ডলার সরষে বাটা দিয়ে রূপচাঁদা মাছ কমরেড অমল সেনের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা কাশিয়ানীতে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ শিমুল কি তার হারানো বাইকটি ফিরে পাবে না? মসুর ডাল দিয়ে শুটকি পর্যটকরা এখন সিলেটমুখী নেত্রকোণায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীকে সংবর্ধনা কিউকাম্বার প্রন চাঁদের বুকে চীনাদের তুলার চারা উত্তর সিটি করপোরেশন উপ-নির্বাচনে বাধা নেই স্বাস্থ্যখাতে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে সংশয় বিশেষজ্ঞদের টিআইবি’র বক্তব্য অসৌজন্যমূলক: সিইসি সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণের বৈধতা নিয়ে রিটের রায় বৃহস্পতিবার ব্যালান্সড ডায়েটের অত্যাবশ্যক উপাদান চাঁদা কম দেয়ায় শিক্ষার্থীকে মারধর, শিক্ষকের অপসারণ দাবি গেইলদের সামনে সিলেটের রানের পাহাড় ঝালকাঠির পেয়ারা অঞ্চলে গেস্ট হাউজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়ন ফরম কিনিনি: হিরো আলম কেন নাসিরকে ঢাকায় রেখে গেল সিলেট সিক্সার্স? নড়াইলে ‘টিম তারুণ্য হানড্রেড’র পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচি এম মনসুর আলীর ১০১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত এসি চালিয়ে ব্যায়াম করলে কী হয়? ১৩ লাখ ৬০ হাজার টন খাদ্য মজুদ আছে: খাদ্যমন্ত্রী এমপি হতে চান নায়িকা মৌসুমী উপজেলা নির্বাচনের হাওয়া বইছে রাজশাহীতে জাতীয় ঐক্যকে আরো শক্তিশালী করার আহ্বান ফখরুলের তাদের মুখোশ খুলে গেছে: শাকিব খান কিশোরগঞ্জে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত ছেলেদের চুল ছোট রাখার সুবিধা কুমিল্লার মামলায় খালেদার জামিন শুনানি পিছিয়েছে আবার বিয়ে করছেন কণ্ঠশিল্পী সালমা মুন্সিগঞ্জে ট্রলারডুবির ঘটনায় এখনও নিখোঁজ ২০ ‘এক বছরের কম ও ৬৫ ঊর্ধ্বের নাগরিকরা পাবেন বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা’ প্রাকৃতিকভাবে স্ট্যামিনা বাড়াতে কী করবেন? টস জিতলেন মাশরাফি তৃতীয় লিঙ্গের ৮ জন কিনলেন আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বাসায় ফিরলেন অভিনেত্রী অহনা ব্রেক্সিট ইস্যু নিয়ে ব্রিটিশ রাজনীতিতে নতুন নাটকীয়তা শুরু ট্রান্স ফ্যাট কী, এটি ক্ষতিকারক কেন? বন্ধ হচ্ছে ৭ দিনের নিচের ইন্টারনেট প্যাকেজ সীতাকুণ্ডের আগুন নিয়ন্ত্রণে রূপ-রুটিনের ৭ ধাপ সিরিয়ায় বিদ্রোহীদের রাসায়নিক হামলার প্রস্তুতি উড়ন্ত ঢাকাকে মাটিতে নামালো রাজশাহী বিপাকে পড়তে যাচ্ছেন ‘উইন্ডোস-৭’ ব্যবহারকারীরা! সৌদি আরব নারীদের জন্য জেলখানা: আলকুনুন ‘প্র্যাঙ্ক’ ভিডিও’র ওপর নিষেধাজ্ঞা ইউটিউবের ‘ইসরাইলিদের মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে’ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা গিলিব্র্যান্ডের কেনিয়ায় নাইরোবির হোটেলে জঙ্গি হামলায় নিহত ১৪ যুক্তরাষ্ট্রে অচলাবস্থার প্রভাব পড়ছে এভিয়েশন খাতে ত্বকের যত্নে ভরসা রাখুন ভিনেগারে ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরই বাড়ল পাউন্ডের দর ‘থেরেসা মে'র পরাজয়ে রাজনৈতিক সঙ্কটে পড়তে পারে যুক্তরাজ্য’ গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে জার্মানিতে সেনা সদস্য আটক সুন্দর ভুরু পান প্রাকৃতিক উপায়ে সিরিয়া সফরে পেডারসন পাকিস্তানি সুন্দরী গোয়েন্দার ফাঁদে ভারতীয় সেনা অতঃপর... মানিকগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাত্রলীগের দুই কর্মী আহত সেই শাহনাজকে পুলিশের উপহার মাদারীপুরে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে জখমের ঘটনায় মামলা ২০ বছর পর জানলেন তিনি সন্তানদের বাবা নন! কুড়িগ্রামে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাবে তিন লাখ শিশু বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব আদায় করতে পারেনি হিলি কাস্টমস বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ভাইকে পেটাল বখাটেরা টিআইবি রূপকথার কাহিনী শোনাচ্ছে: কাদের ঢাকার সামনে রাজশাহীর 'মামুলি' টার্গেট অভিযান এড়াতে বন্ধ রাখা হচ্ছে অনেক হোটেল-রেস্তোরা বাণিজ্যমেলায় আজও ক্রেতা-দর্শনার্থীর উপস্থিতি কম হুমকির মুখে এক সময় পালিয়ে বেড়াতেন আমানুল্লাহ কবীর কক্সবাজারের ১৫ হোটেলকে জরিমানা কুড়িগ্রামে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত
আরও সংবাদ...
সৈয়দ আশরাফ মারা গেছেন সড়কপথে চারদিন যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা শীতে নিয়মিত গোসল ডেকে আনতে পারে বিপদ! ম্যাসেঞ্জারে যুক্ত হল নতুন সুবিধা ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ড.ফজলে রাব্বী চৌধুরী মারা গেছেন নাচের ছন্দে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা (ভিডিও) দুটি কাজেই উধাও ক্যান্সার! জামায়াত নেতারা ধানের শীষ নিয়ে প্রার্থী হবে জানলে ঐক্যফ্রন্টের দায়িত্ব নিতাম না: ড. কামাল আমেরিকা যাওয়ার সহজ ৮ উপায় মওদুদ-বুলুর ফোনালাপ ফাঁস ‘নির্বাচন থেকে বিএনপিকে সরে যেতে বলেছিলেন তারেক’ আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মূল্য ৭০,০০০ টাকা কানাডা যাওয়ার সহজ ৯ উপায় ‘লিপস্টিকের প্রলোভনে ধর্ষণ চেষ্টা, চিৎকার করায় দুই শিশুকে হত্যা’ সম্পূর্ণ ডুবে যেতে পারে পৃথিবী! (ভিডিও) পলটি মারলেন মাহবুব তালুকদার ভিসা ছাড়াই যে ৪১ দেশে যেতে পারবেন বাংলাদেশিরা ভোট উপলক্ষে ব্যাংক বন্ধ থাকবে ৪দিন ‘ড. কামালকে হত্যার পরিকল্পনা’ ফোনালাপে মন্টুকে জানালেন এক নেতা আড়াই মাস ধরে ৪ তরুণীকে গণধর্ষণ, দরজা ভেঙে উদ্ধার দেয়াল থেকে পোস্টার সরাতে বললেন মাশরাফি ফারুক-খোকনের ফোনালাপ বিএনপির একযোগে আত্মসমর্পণের পরিকল্পনা ফাঁস বাংলাদেশের উদাহরণ টেনে ইমরানের ‘আক্ষেপ’ শপথের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ফোন পেলেন যারা ভোট বর্জন করলেন হিরো আলম ডা. এনামুরের ‘ব্যতিক্রমী অনুরোধ’ ভাইরাল বিবৃতিতে থাকলেও বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করলেন না মির্জা ফখরুল(ভিডিও) ফারুকসহ বিএনপি'র দুই নেতার নাশকতার পরিকল্পনা ফাঁস (অডিও) ৫০ হাজারের কমে মোটরসাইকেল! টাকা জমানোর ৫টি কৌশল বউয়ের সঙ্গে চ্যাট, থানায় ঢুকে যুবককে পেটালেন ডিসি রাজধানীর স্কুলগুলোতে অভিভাবকদের জিম্মি করে চলছে ভর্তি বাণিজ্য বছরের দীর্ঘতম রাত আজ, ক্ষুদ্রতম দিন কাল পিছনের পকেটে মানিব্যাগে শরীরে যেসব ক্ষতি হয় সেনাবাহিনী সব ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারবে: সিইসি যেসব কারণে শীতে কমলা খাবেন বিচার আমি কার কাছে চাইবো: নায়লা রোববারের নির্বাচনে জানা-অজানা তথ্য ওজন কমানোর স্বাস্থ্যসম্মত ডায়েট চার্ট ৩৪ কোম্পানির প্রধান এই রিকশাচালক! প্রচারণায় নামতে হিরো আলমের অনুমতির অপেক্ষায় ৫০০ নায়িকা! ধনকুবের মুকেশ প্রতিদিন যেসব কাজ করেন চেয়ারম্যান থেকে মন্ত্রীর আসনে শাহাব উদ্দিন ধানমণ্ডির স্টার কাবাব রেস্টুরেন্টকে জরিমানা পপিকে বিয়ে করতে চান হিরো আলম! (ভিডিও) কীভাবে পাবেন ঘন দাড়ি ফখরুল বললেন, বিএনপিতে শৃঙ্খলা নেই বেতন বাড়ল পোশাক শ্রমিকদের বিএনপি নেতা খোকনের ফোনালাপ ফাঁস: নেতাকর্মীদের লাঠি-বাঁশ নিয়ে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আসছে ২৫০ সিসির সুজুকি জিক্সার সৌদিতে ৪১ পেশায় কাজ পাবে না বিদেশি নাগরিকরা
আরও সংবাদ...


somoytv subscribe
সময়ের সকল ভিডিও দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে