পিংকি আক্তার
আপডেট
২০-০৮-২০১৮, ১০:৩৭

রাজধানীর গণপরিবহনে যাত্রী ওঠানামায় নিয়মের তোয়াক্কা নেই

untitled-3
গণপরিবহনে যত্রতত্র ওঠা নামা করায় একদিকে যানজট বাড়ছে, ঘটছে দুর্ঘটনা। যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিবেদন অনুযায়ী চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান ৩ হাজার ২ শ' ৭৬ জন। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, পরিবহন খাতে নিয়ম-নীতির অভাবেই এ অবস্থা। কেবল রাজনৈতিক সদিচ্ছার মধ্য দিয়েই এ খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলেও মনে করছেন তারা। আর বাস মালিক সমিতি বলছেন সুপরিকল্পিত বাস স্টপেজের অপ্রতুলতার কারণেই চালকরা বাধ্য হচ্ছেন যেখানে সেখানে যাত্রী ওঠা নামা করাতে।

রাজধানীর ফার্মগেট। চলন্ত বাস থেকে টলোমলো পায়ে চরম ঝুঁকি নিয়ে পথে নামলেন রফিকুল ইসলাম। কেন ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছেন, জানতে চাইলে সহজ স্বীকারোক্তিতে দায় চাপালেন চালক হেল্পারের ওপর।

‘আমি নামতে চাচ্ছিলাম না। কিন্তু ওরা প্যাসেঞ্জার পাওয়ার জন্য নামতে বলেছিল। এজন্য আমি নেমে এসেছি।’ বলছিলেন রফিকুল ইসলাম।

রাজধানীতে এমন চিত্র দেখা যায় হরহামেশাই। আর যাত্রীদের ক্ষোভ বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিতে হচ্ছে তাদের।

এক যাত্রী বলেন, 'দুর্ঘটনা ঘটতে পারে আমার মাথায় ছিল না। নামতে হবে তাই যেকোনোভাবে আমি নেমে গেছি।’

তবে চালকরা বলছেন ভিন্ন কথা। বাস স্টপেজে দাঁড়িয়ে যাত্রী তুলতে দেন না খোদ ট্রাফিক পুলিশ। তাই তারাও বাধ্য হচ্ছে যেখানে সেখানে যাত্রী ওঠা নামা করতে।


যাত্রী ও চালক একে অপরকে দোষারোপ করলেও বিশেষজ্ঞরা বলছে, রুট পারমিট দেয়ার পদ্ধতিতে ত্রুটির কারেই নিয়ম নীতি মানছে না কেউ।

পরিবহন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. শামসুল হক বলেন, 'যারা রুট পারমিট দেয় তারা একটা অসুস্থ প্রতিযোগিতা তৈরি করে যাত্রী ধরার একটা প্লানিং করেছে। সবাইকে যদি এক ছাতার নিচে নিয়ে এসে এক রংয়ের বাস যদি দেয়া যায়, দিনের শেষে যদি যারা যার শেয়ার নেয়া যায় এবং চালককে ব্যবসা করতে না দিয়ে তাকে যদি বেতনভুক্ত করা যায় তাহলে একটা দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখা যাবে।'

এদিকে যাত্রী নেয়ার ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতার কথা স্বীকার করে বাস মালিক সমিতি বলছে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

সমিতির চেয়ারম্যান সোহেল তালুকদার বলেন, 'অ্যাসোসিয়েশন থেকে স্পষ্টভাবে বলেছি, কোনোভাবেই চুক্তিতে গাড়ি চালানো যাবে না। আমরা আশাবাদী এতে কিছু হলেও কাজ হবে।'

যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিবেদন অনুযায়ী গত ছয় মাসে সারাদেশে মোট সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ২ হাজার ৮৬০টি। এর মধ্যে নিহত হন ৩ হাজার ২৬ জন এবং আহতের সংখ্যা ৮ হাজার ৫২০ । দিনের পর দিন সড়ক দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বাড়লেও কিছুতেই রোধ করা যাচ্ছে না সড়কে এ মৃত্যুর মিছিল।

বাস স্টপেজে না দাঁড়িয়ে এভাবেই গন্তব্যে যাওয়ার যে যেভাবে পারছেন বাসে উঠছেন। আর এতে করে সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরে পড়ছে হাজারো প্রাণ । তাই সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, শুধু নিয়ম দিয়ে এড়ানো সম্ভব নয় সড়ক দুর্ঘটনা।  এর জন্যই চাই সঠিক নীতিমালা ও সুপরিকল্পিত পরিবহন খাত।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে