আপডেট
১৫-০৫-২০১৮, ১৩:০৩
ভোটের হাওয়া

খুলনা সিটির আদ্যোপান্ত

khula-somoy
খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে আলোচনার অন্ত নেই।  সারা দেশের মানুষের নজর এখন খুলনায়। কে হচ্ছেন নগর পিতা। যদিও নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই প্রার্থী। নগরপিতার আসনে কে বসছেন সেটা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে ভোটের ফলাফল পর্যন্ত। যে কেসিসি নির্বাচন নিয়ে মানুষের এত আগ্রহ। সেই খুলনা সিটি করপোরেশন সম্পর্কে  জেনে নিন।

খুলনা নামকরণের উৎপত্তি সম্বন্ধে নানা মত রয়েছে। সবচেয়ে বেশি আলোচিত  মতগুলো হলো মৌজা ‘কিসমত খুলনা’ থেকে খুলনা। ধনপতি সওদাগরের দ্বিতীয় স্ত্রী খুলনার নামে নির্মিত ‘খুল্ল­নেশ্বরী কালী মন্দির’ থেকে নামকরণ হয়েছে খুলনা। এছাড়াও ১৭৬৬ সালে ফলমাউথ জাহাজের নাবিকদের উদ্ধারকৃত রেকর্ডে লিখিত শব্দ থেকে খুলনার উৎপত্তি হয়েছে বলে জানা গেছে।

কোনটি সত্য তা গবেষকরা নির্ধারণ  করবেন। তবে খুলনা পৌরসভার জন্ম বৃত্তান্তে আসতে গেলে দেখা যায়, খুলনা পৌর এলাকা অতীতে জসর(যশোর) জেলার মুরলী থানার অর্ন্তগত ছিল। পরে রূপসা নদীর পূর্বপাড়ে তালিমপুর, শ্রীরামপুরের (রহিমনগর) কাছে সুন্দরবনের জঙ্গল কেটে নতুন থানা স্থাপন করা হয়।  নাম দেওয়া হয় নওবাদ (নয়াবাদ)।

কারো মতে, এ নতুন থানা ১৭৮১ খ্রি. আবার কারো মতে, ১৮৩৬ খ্রি. সৃষ্টি হয়। ১৮৪২ সালে খুলনা মহাকুমার জন্ম হয়। উল্লেখ্য, তখনকার অবিভক্ত বাংলার প্রথম মহাকুমা হলো খুলনা।

পরে তার পরিধি সম্প্রসারিত হয়ে বর্তমানের খুলনা ও বাগেরহাট জেলা দুটি নিয়ে ছিল খুলনা মহাকুমা। ১৮৬৩ সালে বাগেরহাটে স্বতন্ত্র মহাকুমার কার্যালয় স্থানান্তরিত হয় এবং ১৮৪৫ সালে সেখানে প্রথম দালান কোঠা গড়ে ওঠে। যা আজকে জেলা প্রশসকের বাসভবন।

প্রথম প্রশাসক ছিলেন ডেপুটি মি. শোর এবং দ্বিতীয় মহকুমা হাকিম ছিলেন সাহিত্যিক বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। তিনি এই বাসভবনে বসে তাঁর উপন্যাস ‘দুর্গেশ নন্দিনী’ রচনা করেছিলেন।


পরে ১৮৮২ সালের ২৫ এপ্রিলের সরকারি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী খুলনা জেলার জন্ম হয় এবং তৎকালীন যশোর জেলার খুলনা ও বাগেরহাট মহাকুমা দুটি এবং ২৪ পরগণা জেলার সাতক্ষীরা মহাকুমা নিয়ে ঐ সালের ১ জুন থেকে এ নতুন জেলার কাজ শুরু হয়।

প্রথম জেলা ম্যাজস্ট্রিটে ছিলেন মি. ডব্লিউ, এম, ক্লে- তার নামানুসারে শহরের ক্লে রোড হয়েছে। খুলনা জেলা শহর হলেও একথা অনেকের জানা নেই যে, এ জেলার প্রথম পৌরসভা হয় সাতক্ষীরায় ১৮৬৯ সালের ১ এপ্রিল। জেলার দ্বিতীয় পৌরসভা দেবহাটায় ১৮৭৬ সালে এবং তা ১৯৫৫ সালে বাতিল হয়ে ইউনিয়ন বোর্ডে পরিণত হয়।

জেলার তৃতীয় পৌরসভা হয় ১৮৮৪ সালে খুলনা শহরে। ১৮৮৪ সালের ১৬ ডিসেম্বর পৌরসভাটির দ্বিতীয় সভায় ভাইস চেয়ারম্যান বাবু কৈলাসচন্দ্র কাঞ্জিলালের বাড়ি সত্যচরণ হাউস এ সাময়িক ব্যবস্থা হিসেবে পৌরসভার অফিস স্থাপন করা হয়।  সে ভবনের অস্তিত্ব আজ আর নেই। তবে কারো কারো মতে, ভবনটি বর্তমান পৌর ভবনের কাছে ছিল।

খুলনা সিটি করপোরেশন বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান বিভাগীয় সিটি কর্পোরেশন। সংক্ষেপে যাকে বলা হয় কেসিসি। ১৯৯০ সালের ৬ আগস্ট সিটি করপোরেশন হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। এরআগে ১৯৮৪ সালে এটি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের আয়তন ৪৫.৬৫ বর্গ কিলোমিটার। বর্তমানে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হিসেবে আছেন মো. মনিরুজ্জামান। তিনি বিএনপির নেতা।

২০১৩ সালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনি তালেকদার আব্দুল খালেককে পরাজিত করেন। খুলনা সিটি করপোরেশনের মধ্যে রাস্তার রয়েছে ৩৫৬.৬৪ কি. মি। এবং ড্রেন রয়েছে ৬৪২.১৮ কি. মি.। প্রতি পাঁচবছর অন্তর খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে