আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক
আপডেট
১৭-০৪-২০১৮, ১৭:৩৭

বুধবার সিরিয়া যাচ্ছে রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা ওপিসিডব্লিউ

syria
রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা- ও.পি.সি.ডাব্লিউ-এর তদন্তদল আগামীকাল সিরিয়ায় পৌঁছাবে। সোমবার এক জরুরী বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলনে একথা জানায় সংস্থাটি। যুক্তরাষ্ট্রের আরোপ করা নতুন নিষেধাজ্ঞার জবাব দ্রুত দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। 
 

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সিরিয়ায় হামলা চালানোর যৌক্তিকতা নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়েছে যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের পার্লামেন্টে। আর সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনীর হামলার বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ভিন্ন মত থাকলেও, তা দুদেশের সম্পর্কে কোন প্রভাব ফেলবে না বলে জানিয়েছে তুরস্ক।

পার্লামেন্টে আলোচনা না করেই সিরিয়ায় হামলা চালানোর জন্য প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। সোমবার হাউস অব কমন্সে, আইন প্রণেতাদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জাতীয় স্বার্থেই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সিরিয়ায় হামলা চালিয়েছে যুক্তরাজ্য।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেন, 'সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। সেই দায়িত্ববোধ থেকেই, আন্তর্জাতিক আইন মেনে আমরা সিরিয়ায় হামলা চালিয়েছি। যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তে প্রভাবিত হয়ে আমরা হামলা চালিয়েছি বলে যে খবর বেরিয়েছে তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন।'

একই রকম বিতর্ক হয় ফ্রান্সের পার্লামেন্টেও। সিরিয়ায় হামলা চালানোর কড়া সমালোচনা করেন আইন প্রণেতারা। অন্যদিকে হামলার যৌক্তিকতা তুলে ধরেন ফরাসি প্রধানমন্ত্রী।


ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড ফিলিপ বলেন, 'সিরিয়া আমাদের শত্রু নয়। সিরিয়ার সঙ্গে কোন যুদ্ধে জড়ানোর ইচ্ছেও নেই ফ্রান্সের। আমাদের যুদ্ধ আইএস এবং সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে।'

সিরিয়ার বিভিন্ন সরকারি স্থাপনায় মার্কিন ও মিত্র বাহিনীর ছোঁড়া প্রতিটি ক্ষেপণাস্ত্রই সফল ভাবে আঘাত হেনেছে বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করার সিরীয় দাবি প্রত্যাখ্যান করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'আমরা সিরিয়ায় একশ' মিসাইল ছুঁড়েছি। সেগুলোর মধ্যে বেশ কিছু ধ্বংস করা হয়েছে বলে তারা দাবি করেছে। আসলে তারা একটাও ধ্বংস করতে পারেনি। আমার বিশ্বাস, প্রতিটি ক্ষেপণাস্ত্রই সঠিকভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে।'

এদিকে রাশিয়ার ওপর আরোপ করা নতুন অবরোধের জবাব দিতে বেশী সময় নেওয়া হবে না বলে সতর্ক করেছেন সহকারী রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ। সোমবার তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ার করে বলেন, নতুন অবরোধের জবাবে মার্কিন পণ্য আমদানির ওপর কড়াকড়ি আরোপে মস্কো পিছ-পা হবে না।

সিরিয়ার দৌমায় আসাদ বাহিনীর রাসায়নিক হামলার বিষয়ে সোমবার জরুরী বৈঠক ডাকে রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা- ও.পি.সি.ডাব্লিউ। নেদারল্যান্ডসের হেগে অনুষ্ঠিত বৈঠকে, দৌমায় রাসায়নিক হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ তাদের মিত্ররা। তবে কেবল মৌখিক অভিযোগ না করে সেখানে বিশেষজ্ঞ পাঠানোর আহ্বান জানায় রাশিয়া। বৈঠকে অংশ নেওয়া দেশগুলোর প্রতিনিধিদের মধ্যে আলোচনা পর, দৌমায় বিশেষজ্ঞ দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওপিসিডব্লিউতে রুশ প্রতিনিধি আলেক্সান্দার সুলকিন বলেন, 'যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমারা কোন তদন্তে বিশ্বাস করে না। তারা নিজেরাই মনগড়া একটি সিদ্ধান্ত থেকে সিরিয়ায় হামলা চালিয়েছে। আসলে তারা হামলা চালানোর একটি অজুহাত খুঁজছিল। তবে বুধবার দৌমা সফরের পর অস্ত্র বিশেষজ্ঞদের দেওয়া প্রতিবেদনেই আসল চিত্র ফুটে উঠবে।'

এদিকে মার্কিন বাহিনীর সিরিয়ায় হামলার বিষয়ে তুরস্ক ইতিবাচক মন্তব্য করলেও, তা রাশিয়া সঙ্গে সম্পর্কে কোন প্রভাব ফেলবে না বলে মন্তব্য করেছে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে