আপডেট
১৪-০২-২০১৮, ০১:২৩

এবারও অঘটনের শিকার গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স

-dpl-match
আবারো অঘটনের শিকার হলো গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। খেলাঘর সমাজ কল্যান সমিতির কাছে প্রিমিয়ার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা হেরে গেছে পাঁচ উইকেটে। প্রথমে ব্যাট করে জহুরুল ইসলামের সেঞ্চুরিতে ২৪৭ রান করে গাজী গ্রুপ। জবাবে মাহিদুল ইসলাম আর অশোক ম্যানারিয়ার ফিফটিতে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় খেলাঘর। দিনের অপর ম্যাচে লিটন দাসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে ৮ উইকেটের বড় ব্যাবধানে হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর। এবারের প্রিমিয়ার লিগ শুরুটা ভালো হয়নি গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের। তবে শাইনপুকুরকে হারিয়ে পরের ম্যাচেই ছন্দে ফেরে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতেই এদিন খেলাঘরের বিপক্ষে মাঠে নামে সালাউদ্দিন বাহিনী। যদিও মাত্র ২২ রানে ইমরুলের আউটে ধাক্কা খায় গাজী গ্রুপ।

মমিনুল-জহুরুলের দ্বিতীয় দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ঘুরে দাড়ায় ফেবারিটরা। চার রানের জন্য টাইগার লিটল মাস্টার ফিফটি বঞ্চিত হলেও, অবিচল ছিলেন গাজী অধিনায়ক। তবে মিডল অর্ডারে অনিক-নাদিফ চৌধুরীরা আস্থার প্রতিদান দিতে ব্যার্থ হলে আবারো শ্লথ হয়ে যায় তাদের রানের চাকা।

স্বদেশীরা ব্যার্থ, কিন্তু এদিনও হেসেছে গাজীর ভারতীয় রিক্রুট রজত ভাতিয়ার ব্যাট। তার ৬১ আর জহুরুল ইসলাম অমির ১০২ রানে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে প্রতিপক্ষকে ২৪৮ রানের টার্গেট দেয় গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে খেলাঘরের শুরুটা ছিল মাঝারি মানের। রবিউল ইসলাম আর নাফিস ইকবালের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৫০ রান। ভালো খেলার ইঙ্গিত দিয়েও নিজেদের ইনিংসগুলোকে লম্বা করতে পারেননি কেউই।

১০২ রানে তিন উইকেট হারানো খেলাঘর ম্যাচ নিজেদের নিয়ন্ত্রনে নেয় অঙ্কন আর অশোক ম্যানেরিয়ার জুটিতে। তাদের ১০৩ রানের উইলো বাজিতে জয়ের খুব কাছে চলে যায় খেলাঘর। বাকি কাজটুকু সারেন নাজিমুদ্দিন আর মইনুল ইসলাম। ৮৫ রান করে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন।

দিনের অন্য ম্যাচে বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বিপর্যয়ে পড়ে কলাবাগান কেসি। প্রতিপক্ষের বোলিং তোপে মাত্র ৪৭ রানেই তিন উইকেট হারিয়ে ধুকতে থাকে তারা। তবে চতুর্থ উইকেটে জুটিতে ১৮৮ রান যোগ করে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন মোহাম্মদ আশরাফুল আর তাইবুর রহমান। দু-জনের ব্যাট থেকেই আসে সেঞ্চুরি। শেষ দিকে মুক্তার আলী ঝড়ো ৪০ রানে প্রাইম দোলেশ্বরকে ২৯১ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট দেয় কলাবাগান।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে শুরুটা যেমন দরকার, ঠিক তেমনি করেন ইমতিয়াজ হোসেন ও লিটন দাস। তাদের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৮৫ রান। দলীয় ১২১ রানে ফরহাদ রেজার দল দ্বিতীয় উইকেট হারালেও কলাবাগানের সফলতা ছিল অতটুকুই। এরপর লিটন দাসের ১৪৩ ও মার্শাল আইয়ুবের ৯১ রানে আর কোন উইকেট না হারিয়ে ৩০ বল হাতে রেখেই জয় নিশ্চিত করে দোলেশ্বর। ম্যাচ সেরা হয়েছেন লিটন দাস।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে