SOMOYNEWS.TV

স্বপ্নরাজ্য দার্জিলিং

Update: 2016-11-20 14:39:37, Published: 2016-11-20 14:39:38
দার্জিলিংকে বলা হয় পাহাড়ের রাণী। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৬৭০০ ফুট উচ্চতায় থাকা এই শহরটি প্রায় সারাক্ষণই মেঘে ঢাকা থাকে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর, পাহাড়ে ঘেরা অপূর্ব চিরহরিৎ ভূমির এক পর্যটন স্থান। দার্জিলিং ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দার্জিলিং জেলার একটি শহর ও পৌরসভা এলাকা। ভারতের অন্যতম এই মনোমুগ্ধকর স্থানটি হিমালয় কন্যা কাঞ্চনজংগার পাদদেশে অবস্থিত। দার্জিলিং ভারতের অন্যতম পর্যটন স্পট হিসেবে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত।

কাঞ্চনজঙ্ঘা'র অনুপম সৌন্দর্য এবং টাইগার হিলের চিত্তাকর্ষক সূর্যোদয় ছাড়াও বিভিন্ন কৃত্রিম ও প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখার জন্য প্রতিবছর অনেক পর্যটক এখানে ভিড় করেন।

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পাহাড় যেখানে ৩৫০০ ফুটের কাছাকাছি উচ্চতার সেখানে দার্জিলিং শহরটাই ৬৭০০ ফুট উচ্চতায়। ভয়ংকর আঁকা-বাঁকা রাস্তা আর সেই সাথে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা। মেঘ আর পাহাড়ের খেলা দেখার জন্য ছবির মত সুন্দর দার্জিলিং এর চেয়ে ভালো কোনো জায়গা হতে পারে না। কাঞ্চনজংগা আর মেঘ পাহাড় ছাড়াও দার্জিলিং এ দেখার অনেক কিছু আছে।

অবজারভেটরি হিল, ধীরধাম মন্দির এবং বৌদ্ধ সংরক্ষণালয় এই পর্যবক্ষেণ পাহাড়ের উপর অবস্থিত। 'দার্জিলিং চিড়িয়াখানা' বা 'পদ্মজা নাইডু হিমালয়ান জুলজিকাল পার্ক' এই চিড়িয়াখানায় রেড পাণ্ডা, স্নো লেপার্ড, তিব্বতীয় নেকড়েসহ পূর্ব হিমালয়ের প্রচুর বিপদগ্রস্ত ও বিলুপ্ত পক্ষী ও প্রাণীদের দেখতে পাওয়া যায়। পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচুতে অবস্থিত রেলওয়ে স্টেশন ‘ঘুম’। সূর্যোদয় দেখার জন্য সেখানে দীর্ঘ মানুষের ভিড় সবসময় লেগেই থাকে। সমুদ্র-পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১০ হাজার ফুট উঁচু পাহাড়ের চূড়া থেকে অপূর্ব সুন্দর 'সূর্যোদয়' দেখা। ভোরের সূর্যের আলোর সাথে সাথে কাঞ্চনজংগার প্রকৃতি নতুন রূপ ধারণ করে। চারপাশ সোনালীতে রূপ নেয়। যা না দেখলে কখনই বিশ্বাস হবে না। 'ঘুম বৌদ্ধ মনেস্ট্রি' এই অঞ্চলের সর্ববৃহৎ মনেস্ট্রি। অপূর্ব সুন্দর স্মৃতিসৌধ 'বাতাসিয়া লুপ'। পাহাড়ে অভিযান শিক্ষাকেন্দ্র ‘হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইন্সটিটিউট’।

এভারেস্ট বিজয়ী 'তেনজিং রক-এর স্মৃতিস্তম্ভ'। কেবল কারে করে প্রায় ১৬ কিলোমিটার এক পাহাড় থেকে অন্য পাহাড়ে ভ্রমণ। হ্যাপি ভ্যালি টি গার্ডেনে বসে তাৎক্ষণিক ভাবে পৃথিবী খ্যাত ব্ল্যাকটি পানের অপূর্ব অভিজ্ঞতা। যুদ্ধ বিধ্বস্ত শরণার্থী কেন্দ্র 'তিব্বতিয়ান সেলফ হেলপ সেন্টার'। সমুদ্র-পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৮ হাজার ফুট উঁচুতে অবস্থিত মনোরম খেলাধুলার স্থান দার্জিলিং 'গোরখা স্টেডিয়াম'। নেপালি জাতির স্বাক্ষর বহনকারী 'দার্জিলিং মিউজিয়াম'। পৃথিবীর বিখ্যাত বৌদ্ধ বিহার 'জাপানিজ টেম্পল'। ব্রিটিশ আমলের সরকারি নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র কাউন্সিল হাউস ‘লাল কুঠির’। অসাধারণ শৈল্পিক নিদর্শন খ্যাত ‘আভা আর্ট গ্যালারি’। শতবর্ষের প্রাচীন মন্দির ‘দিরদাহাম টেম্পল’। 'লেবং রেস কোর্স' পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট এবং সর্বোচ্চ রেস কোর্স। এসব নিদর্শন ছাড়াও আপনার মনের চিরহরিৎ জগতকে শুধু আনন্দময় নয়, এক নতুন জীবনের যাত্রা শুরু করাতে চলে যেতে পারেন পাথর কেটে তৈরি ‘রক গার্ডেন’ এবং 'গঙ্গামায়া পার্ক'-এ।

উপরোল্লিখিত দর্শনীয় স্থানগুলো ছাড়াও আপনার হৃদয় পিঞ্জর থেকে রোমাঞ্চিত করবে মহান সৃষ্টিকর্তার বিশাল উপহার হিমালয় কন্যা ‘কাঞ্চন-জংঘা’, বিশুদ্ধ পানির অবিরাম ঝর্ণাধারা ‘ভিক্টোরিয়া ফলস’ এবং মেঘের দেশে বসবাসরত এক সুসভ্য জাতির সংস্কৃতি।

'ধীরধাম মন্দির' কাঠমান্ডুর বিখ্যাত পশুপতিনাথ মন্দিরের অনুরূপ। 'বেঙ্গল ন্যাচারাল হিস্টোরি মিউজিয়াম' গাছপালা ও পশুপাখিদের প্রাকৃতিক পরিবেশের অন্দরে প্রবেশ করায়। 'লাওডস বোটানিকাল গার্ডেন' নামের এই উদ্যানে অর্কিড, রডোডেনড্রন, ম্যাগনোলিয়া, প্রিমুলা, ফার্ন সহ নানা জাতের হিমালয়ান উদ্ভিদ পাওয়া যায়।

খরচের কথা আসলে বলতে হয় আমাদের দেশের কক্সবাজার ঘুরার টাকা দিয়ে দার্জিলিং ঘুরে আসতে পারবেন। আপনি যদি খুব কৃপণ হোন তাইলে ৫-৬ হাজার টাকার মধ্যেও দার্জিলিং ঘুরে আসতে পারবেন। আর ১০ হাজার হলে নিজের ইচ্ছা মত ২-৩ দিন ঘুরে আসতে পারবেন কোনো কৃপণতা ছাড়াই। তবে তা অবশ্যই সিজনের উপর নির্ভর করে। যত বেশি জন যাবেন খরচ তত কম।

(চলবে)



Update: 2016-11-20 14:39:37, Published: 2016-11-20 14:39:38

More News
loading...

সর্বশেষ সংবাদ



Contact Address

Lavel-9, Nasir Trade Centre,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205.
Fax: +8802 9670057, Email: info@somoynews.tv
উপরে