• এইমাত্র পাওয়ামৌলভীবাজারের বড়হাট ও ফতেহপুরে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুইটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট...
  • এইমাত্র পাওয়াবড়হাটের ওই বাড়ির আশেপাশে গুলির শব্দ, পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড নিক্ষেপ

বিদেশিদের ওপর বড় ধরণের হামলার পরিকল্পনা নব্য জেএমবি’র

Update: 2017-03-18 08:12:12, Published: 2017-03-18 08:12:13
untitled-1

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক কেন্দ্রিক চলা বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত বিদেশিদের ওপর বড় ধরণের হামলার পরিকল্পনা নিয়েছিলো জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবি। এ জন্য তারা সীতাকুণ্ড এবং মীরসরাইয়ে গড়ে তুলেছিলও একাধিক গোপন আস্তানা। একই সাথে বর্তমান সরকারের একজন মন্ত্রীও তাদের টার্গেটে ছিলো বলে তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

মূলত নাশকতা ঘটিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে প্রচারের মাধ্যমে মীরসরাইয়ে প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক জোনে বিদেশীদের আসা-যাওয়া বাধাগ্রস্ত করা ছিলো তাদের লক্ষ্যবস্তু। সময় সংবাদের কাছে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তারা।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড এবং মীরসরাইয়ে পাওয়া গেলো জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির’র তিনটি গোপন আস্তানা। শুধু আশ্রয় নেয়ার আস্তানা নয়। এসব হাইড পয়েন্ট ছিলো তাদের শক্তিশালী গ্রেনেড ও বোমা তৈরি এবং মজুদের আস্তানা। প্রতিটি আস্তানায় ছিলো সর্বনিম্ন ৫ থেকে সর্বোচ্চ ৩০টি পর্যন্ত গ্রেনেড ও বোমা। এমনকি সীতাকুণ্ডের নামার বাজার আস্তানায় আত্মঘাতী হামলা চালাতে ব্যর্থ হলেও প্রেমতলার আস্তানায় আত্মঘাতী হামলায় মারা গেছে এক শিশুসহ চার জঙ্গি।

দেশের সবচে গুরুত্বপূর্ণ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে মীরসরাই গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে পরিচিতি। এখানেই গড়ে তোলা হচ্ছে দেশের সর্ববৃহৎ ইকোনোমিক জোন। বিনিয়োগের আগ্রহ নিয়ে দেশি-বিদেশি শিল্প মালিকরাও এখানে আসতে শুরু করেছেন।

চট্টগ্রাম রেঞ্চ অতিরিক্ত ডি আই জি সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘উন্নয়নকে বাঁধাগ্রস্থ করবার জন্য বা বিদেশি যারা আছে তাদের কে নিরুৎসাহিত করার জন্য কোনো একটা মহল এই কাজ করছে।’

সরকারের একজন মন্ত্রীকেও জঙ্গিরা টার্গেট করেছিলো বলে গোপন তথ্য পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডি আই জি শফিকুল ইসলাম।

গত বছরের বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে সীতাকুণ্ড থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার উল্লাহ বাংলা টিম এবং পুরাতন জেএমবির অন্তত ১৫ জন সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আন্তর্জাতিকভাবে প্রচার পাওয়ার জন্য নব্য জেএমবি’র আরো বেশ কিছু লক্ষ্যবস্তুর ব্যাপারে তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, ‘সাধারনত তারা যে টার্গেটে বেশি পরিচিতি পায় সেই সব টার্গেটকে বেছে নেয়। জনগন, বিদেশি সবার ভেতরে যাতে আতংক সৃষ্টি করতে পারে।’

নব্য জেএমবি নেতা মুছা বৃহত্তর চট্টগ্রামে অবস্থান নিয়ে এসব আস্তানা নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি জঙ্গিদের সংগঠিত করছে বলে তথ্য পেয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।




Update: 2017-03-18 08:12:12, Published: 2017-03-18 08:12:13

আপনার মন্তব্য লিখুন

পাঠকের মন্তব্য ( )


More News
  


আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত (সাম্প্রতিক)


Contact Address

89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh.
Fax: +8802 9670057, Email: info@somoynews.tv
উপরে en.Somoynews.tv