আপডেট
২০-০১-২০১৫, ২০:৪০
মহানগর সময়

ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুতের নতুন দাম ঘোষণা: বিইআরসি

 ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুতের নতুন দাম ঘোষণা: বিইআরসি
আগামী ফেব্রুয়ারি মাসেই পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের নতুন দাম ঘোষণা করতে যাচ্ছে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন। আর পয়লা ফেব্রুয়ারি থেকেই নতুন পাইকারি দাম কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন কমিশন সদস্য সেলিম মাহমুদ। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের দাম বাড়ানোর আবেদনের গণশুনানি শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি। এদিকে গণশুনানিতে বর্তমান বাস্তবতায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর তীব্র বিরোধিতা করেন বিশেষজ্ঞ এবং ভোক্তারা। দাম না বাড়ানোর দাবিতে বিইআরসি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি ও প্রতিবাদ সমাবেশও করেছে কয়েকটি সংগঠন।

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড দেশের চারটি বিতরন কোম্পানির কাছে পাইকারি দরে বিদ্যুৎ বিক্রি করে। বিতরণ সংস্থা ডিপিডিসি, ডেসকো আরইবি এবং ওজোপাডিকোর জন্য বর্তমান পাইকারি দাম প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ ৪ টাকা ৭০ পয়সা। গণশুনানীতে এ পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে গড়ে ৬ টাকা ৫৪ পয়সা খরচ হয় দাবি করে ১৮ দশমিক ১২ শতাংশ দাম বাড়ানোর যুক্তি তুলে ধরে পিডিবি। এদিকে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া প্রস্তাবের বিপরীতে নানা প্রশ্ন তোলেন ভোক্তা সংগঠন ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা।

কনজিউমার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক এম শামসুল আলম বলেন, 'বিশ্ব বাজারে তেলের দাম বিবেচনা করলে সরকারের ভর্তুকি দেয়ার যথেষ্ট সামর্থ্য আছে। ফলে দাম বাড়ানোর কোনো দরকার নেই।'

পাইকারি দাম বাড়লে গ্রাহক পর্যায়েও দাম বাড়বে উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ, বাম সংগঠনের প্রতিনিধি এবং অর্থনীতিবিদরাও দাম না বাড়ানোর যুক্তি তুলে ধরেন।

এ সময় ভর্তুকি কমানোর সমালোচনা করে অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এম এ আকাশ বলেন, বাড়তি দামে তেল বিক্রির ফলে একটি লাভ হয়েছে। সেই লাভটা কার কাছে? তাহলে নিঃসন্দেহে সরকারের ভর্তুকি দেয়ার ক্ষমতা বেড়েছে। তবে কেন ছয় হাজার কোটি টাকার ভর্তুকি কমিয়ে আগামীবার চার হাজার কোটি টাকায় নামিয়ে আনতে হচ্ছে?'

এছাড়াও গণসংহতি আন্দোরনের আহ্বায়ক জুনায়েদ সাকী বলেন, বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি মানে প্রকারন্তরে সব কিছুরই দাম বৃদ্ধি। এবং সাধারণ মানুষ এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।


এদিকে ৫ দশমিক ১৬ শতাংশ দাম বাড়ানোর যৌক্তিকতা পাওয়ার দাবি করেছে কমিশনের কারিগরি বিশ্লেষণ কমিটি। গণশুনানি শেষে কমিশনের পক্ষে বলা হয় বিচার বিশ্লেষণ করে ফেব্রুয়ারির প্রথমার্ধেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে কমিশন।

কমিশনের পক্ষে বিইআরসি সদস্য ড. সেলিম মাহমুদ বলেন, 'আমরা চেষ্টা করবো বিচার বিশ্লেষণ করে সর্বশ্রেণির কাছে গ্রহণযোগ্য একটি সিদ্ধান্ত নিতে। যাতে করে অর্থনীতিতে কোন রকম নেতিবাচক প্রভাব না ফেলে। আবার ভোক্তারাও কোনো রকম সমস্যায় না পড়ে।'

এদিকে পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়ায় বিইআরসি কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ এবং অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে কয়েকটি সংগঠন। সর্বশেষ ২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে বিদ্যুতের পাইকারি দাম বাড়ানো হয়েছিল।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে