আপডেট
০৪-০৬-২০১৫, ২০:২৩

প্রাথমিক-মাধ্যমিকের দুরবস্থা স্বীকার, তবুও বরাদ্দ কম শিক্ষা ও প্রযুক্তিতে

52c54e66911c6-10
প্রস্তাবিত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রাথমিক-মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার দুরবস্থার কথা স্বীকার করলেও শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে গত অর্থবছরের তুলনায় কম বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। বাজেট বক্তৃতায়, প্রাথমিকে শিক্ষার্থী ঝরে পড়া ও মাধ্যমিক শিক্ষায় মানসম্মত শিক্ষকের অভাব প্রকট বলে উল্লেখ করেন তিনি।
এবারের বাজেটে শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে বরাদ্দ গতবারের তুলনায় ১ দশমিক ৫ ভাগ কমেছে। বাজেটে এ খাতে ১১ দশমিক ৬ ভাগ বরাদ্দ রাখা হয়েছে, যা ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ছিল ১৩ দশমিক ১ ভাগ।

গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিপরীতে ৩১ হাজার ৬১৮ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষার প্রসারে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বিপরীতে ১ হাজার ৫৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

শিক্ষাখাতে সরকারের অবদান বর্ণনা করে বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শতভাগ ভর্তির সুফল ধরে রাখতে ৯৩ উপজেলায় সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ৩৩ লক্ষ ৯০ হাজার শিশুর জন্য স্কুল ফিডিং কার্যক্রম হাতে নিয়েছি আমরা।’

এছাড়া, ২০১৮ সাল নাগাদ প্রাথমিক শিক্ষাকে অষ্টম শ্রেণিতে সম্প্রসারণের পরিকল্পনা জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতে আমরা গুরুত্ব দিয়েছি। ২০১৮ সাল নাগাদ প্রাথমিক শিক্ষাকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত সম্প্রসারণের পরিকল্পনা নিয়েছি আমরা।'

এর পাশাপাশি সৃজনশীল প্রশ্নপত্র, মাধ্যমিক পর্যায়ে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ, সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ, উপবৃত্তি প্রদান এবং ইংরেজি ও গণিতের শিক্ষকদের বিশেষ প্রশিক্ষণ অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।


কারিগরি শিক্ষার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘জনমিতিক লভ্যাংশের সুবিধা কাজে লাগাতে ৯২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০০টি উপজেলায় একটি করে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রতিটি বিভাগীয় শহরে একটি করে গার্লস টেকনিক্যাল স্কুল, ২৩টি উপজেলায় পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, ৪টি বিভাগীয় শহরে ৪টি মহিলা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট এবং সকল বিভাগে ১টি করে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ স্থাপনের জন্য উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘১৫-৪৫ বছর বয়সী নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে মৌলিক সাক্ষরতা ও জীবনদক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট নির্মাণ করেছি। এছাড়া, ১২৮টি উপজেলায় রিসোর্স সেন্টার স্থাপনের কাজ চলছে। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় এবং সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছি।’

তবে মাধ্যমিক শিক্ষার দুর্বলতার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক শিক্ষার পরেই অনেক শিক্ষার্থী ঝরে পড়ে। মাধ্যমিক শিক্ষায় মানসম্মত শিক্ষকের অভাব প্রকট, এছাড়া এ স্তরে শিক্ষার মান বেশ নিম্ন পর্যায়ে।’

উচ্চশিক্ষা প্রসারে বিগত ৫ বছরে দু'টি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ও ৯টি নতুন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন অর্থমন্ত্রী।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে