প্রস্তাবিত বাজেটে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে অগ্রাধিকার

Update: 2015-06-04 19:57:21, Published: 2015-06-04 19:13:51
budget-fuel


২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটে অগ্রাধিকারভিত্তিক গুরুত্ব পেয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত। এবারের বাজেটে বিদ্যুৎ-জ্বালানী খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৮ হাজার ৫'শ ৪০ কোটি টাকা। যা মোট বাজেটের ৬ দশমিক ২৮ শতাংশ। এর আগে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৯ হাজার ৩'শ ৩৯ কোটি টাকা।

মধ্যম আয়ের দেশ গড়ার যে পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার, তার অন্যতম পূর্বশর্ত বিনিয়োগ বাড়ানো। দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ বাড়াতে এরই মধ্যে ১৭টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের কাজ হাতে নিয়েছে সরকার। বাড়তি চাহিদা মেটাতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানীর প্রাপ্যতা নিশ্চিত করার বিষয়টিও তাই গুরুত্ব পেয়েছে এবারের বাজেটে। প্রস্তাবিত বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ১১ হাজার থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে সাড়ে ১৮ হাজার কোটি টাকা।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১৫ সালের পর কয়লাকে মূল জ্বালানী হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনার কথাও জানান অর্থমন্ত্রী। এর মধ্যে রয়েছে

রামপালে ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি ও জাইকার সহায়তায় মাতারবাড়িতে ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার ১টি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনার কথাও জানান অর্থমন্ত্রী।

চীন-মালয়েশিয়া-দক্ষিণ কোরিয়া ও সিঙ্গাপুরের সহায়তায় মহেশখালীতে প্রতিটি ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট করে মোট ৪ হাজার ৮০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৪টি এবং পটুয়াখালীতে ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ১টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনার কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, '২০২২ সালের মধ্যে ২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে। '

প্রাকৃতিক গ্যাসের মজুদ কমে আসায় গৃহস্থালির কাজে গ্যাসের ব্যবহার কমিয়ে আনার সিদ্ধান্তের কথা জানান অর্থমন্ত্রী। পাশাপাশি নতুন পাওয়া সমুদ্র সীমানায় গ্যাস অনুসন্ধান জোরদারের কথাও বলেন তিনি।

এদিকে, শিল্প, বাণিজ্য ও আবাসিক খাতে জ্বালানী সাশ্রয় ও সংরক্ষণের মাধ্যমে ২০১৬ সালের মধ্যে ১০ শতাংশ, ২০২১ সালের মধ্যে ১৫ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ২০ শতাংশ জ্বালানির ব্যবহার কমিয়ে আনার পরিকল্পনার কথাও উল্লেখ করা হয় বাজেট বক্তৃতায়। এর পাশাপাশি জনগণকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী সরঞ্জাম ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে এনার্জি লেবেলিং কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

Update: 2015-06-04 19:57:21, Published: 2015-06-04 19:13:51

আপনার মন্তব্য লিখুন

পাঠকের মন্তব্য ( )


More News
  


আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ



সরাসরি যোগাযোগ

৮৯, বীর উত্তম সি. আর. দত্ত রোড, ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
ফ্যাক্স: +৮৮০২ ৯৬৭০০৫৭, ইমেইল: info@somoynews.tv
উপরে en.Somoynews.tv