আপডেট
২৭-০২-২০১৫, ১৯:৩০

নারী দ্বারা নির্যাতনের শিকার পুরুষ!

1212
এম এ মান্নান মিয়া


নির্যাতন কথাটি শুনলেই আমাদের চোখে ভেসে ওঠে একটি অবলা নারীর উপর শারীরিক কিংবা মানসিক নির্যাতনের ছবি। কারণ আমাদের মনের ভেতর যে বিষয়টি গেঁথে আছে তা হলো, যেকোনো ধরণের নির্যাতনের শিকার শুধুমাত্র নারীরাই হবে। কিন্তু কেউ কি ভেবে দেখেছেন, ঘটনাটি যদি উল্টো হয় তখন ব্যাপারটি কি দাঁড়ায়? নির্যাতন যদি পুরুষের ওপর হয়? শুধু নারীরাই নন, আমাদের সমাজে পুরুষেরাও নির্যাতিত হন ঘরে এমনকি বাইরেও। নারী নির্যাতনের ঘটনা যেমন প্রতিনিয়ত ঘটছে, ঠিক তেমনি পুরুষ নির্যাতনের মাত্রাও বেড়ে চলেছে। নারী নির্যাতনের ঘটনাগুলো আমাদের কাছে পৌঁছাচ্ছে মিডিয়ার ব্যাপক প্রচারে, অন্যদিকে পুরুষ নির্যাতনের ঘটনাগুলো কিন্তু আড়ালেই রয়ে যাচ্ছে। আড়ালে থাকলেও পুরুষ নির্যাতনের ঘটনা কিন্তু কম ঘটছে না। বরং দিন দিন বেড়েই চলছে। যেভাবে নির্যাতিত হন পুরুষেরা পারিবারিকভাবে পুরুষেরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতনের শিকার হন। এই নির্যাতন হতে পারে শারীরিক কিংবা মানসিক। আসুন দেখে নিই কিভাবে ও কাদের দ্বারা পুরুষেরা প্রতিনিয়ত নির্যাতিত হচ্ছেন।

১. নিজের স্ত্রী দ্বারা :

মাসুম (ছদ্মনাম) একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসসি পাস করে একটি প্রাইভেট ব্যাংকে চাকরি করেন। এক ভাই ও এক বোন এবং বাবা-মা নিয়ে মাসুমের সুখী পরিবার। পারিবারিকভাবেই বিয়ে করেন প্রেমিকা মিথিলাকে (ছদ্মনাম)। বিয়ের বছর খানেকের মাথায় স্ত্রী মিথিলা নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করেন পরিবার থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার জন্য। অফিস থেকে বাসায় ফিরে যেখানে একটু শান্তিতে পরিবারের সবার সঙ্গে সময় পার করবেন সেখানে প্রতিদিন রাতে স্ত্রী নানা খুটিনাটি বিষয় নিয়ে ঝগড়া শুরু করেন তার সাথে। মাসুম একজন শিক্ষিত, অত্যন্ত বিনয়ী ও বিচক্ষণ পুরুষ। তিনি পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের দোষ-ত্রুটি চুলছেড়া বিশ্লেষন করে দেখেন স্ত্রী মিথিলার লক্ষ্য একটাই পরিবার থেকে আলাদা হয়ে যাওয়া। স্ত্রীকে নানাভাবে বোঝাতে চেষ্টা করেন এমনকি মিথিলার পরিবারকেও বিষয়টি জানানো হয়। স্ত্রী মিথিলার মানসিক ও মাঝে মাঝে শারীরিক নির্যাতনের শিকারও হন মাসুম। সমাজে ও কর্মস্থলে নিজের সম্মানের কথা বিবেচনা করে সবশেষে পরিবার থেকে আলাদা হয়ে যান মাসুম। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, মিথিলার মতো অনেক নারী আছেন এই সমাজে যাদের দ্বারা পুরুষেরা নির্যাতিত হন। প্রশ্ন জাগতে পারে একজন নারী থেকে পুরুষের শক্তি বেশি তাহলে কিভাবে এই পুরুষেরা নির্যাতিত হচ্ছেন। হ্যাঁ, নারীরা শারীরিক দিক হতে পুরুষের থেকে দুর্বল কিন্তু নির্যাতন করা মানে এই নয় যে একজন নারী তার স্বামীকে শুধুমাত্র শারীরিকভাবে আঘাত করছেন। নির্যাতনটি মানসিকভাবেও করতে পারেন। অনেক নারীই আছেন যারা তার স্বামীকে নানানভাবে মানসিক নির্যাতন করে থাকেন। সংসারে প্রতিদিন কলহ করা, অযথা দোষারোপ করা কিংবা অর্থের জন্য প্রতিনিয়ত হেয় প্রতিপন্ন করাও এক প্রকার মানসিক নির্যাতন যা অনেক মহিলারাই করে থাকেন। এছাড়া স্বামীকে বাবা মায়ের কাছ থেকে আলাদা করে ফেলা ও সন্তানদের থেকে দূরে রাখাও কিন্তু নির্যাতন। মানসিকভাবে এভাবে নির্যাতিত হওয়ার পাশাপাশি অনেক পুরুষ শারীরিকভাবেও নির্যাতিত হচ্ছেন। অনেক পুরুষই আছেন যারা তাদের স্ত্রীর দ্বারা শারীরিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হন। এছাড়াও অনেক নারীই আছেন যারা অন্য যেকারো সহযোগিতায় নির্যাতন করতে পারেন। স্ত্রীটি অন্য পুরুষ যেমন- বাবা, ভাই, বন্ধু কিংবা ভাড়া করা কাউকে দিয়েও স্বামীর উপর শারীরিক নির্যাতন চালাতে পারেন।

২. বাবা মায়ের দ্বারা:

আমাদের সমাজটি এমন যে এখানে পুরুষদের দেখা হয় অর্থ উপার্জনের যন্ত্র হিসেবে। আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে আমাদের দেশে মেয়ে সন্তানের চেয়ে ছেলে সন্তান কাম্য অনেকাংশে এই কারনেই। মেয়ে হলে বিয়ে করে চলে যাবে কিন্তু ছেলে সংসারের হাল ধরবে এই চিন্তা এখনও অনেকেই করেন। এইজন্য পুরুষদের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয় অনেক কিছুই কিশোরকাল থেকেই। দেখা গেলো একই পরিবারের মেয়েটি তার পছন্দের চারুকলা বিষয়ে ইউনিভার্সিটিতে পড়ছে কিন্তু পছন্দের বিষয় হওয়া সত্ত্বেও ছেলেটি সেটা পারছে না। কারণ তার বাবা মা দিচ্ছেন না। চারুকলায় পরে বেশি অর্থ উপার্জন সম্ভব নয় এটিই মূল কারণ। এটিও একধরনের মানসিক নির্যাতন। এছাড়া আরও একটি নির্যাতন বাবা মায়েরা করে থাকেন তা হল বিয়ের ব্যাপারে। জোর করে শুধুমাত্র মেয়েদেরই বিয়ে দিয়ে দেয়া হয় না। ছেলেদেরও এই নির্যাতন সহ্য করতে হয়। অনেক সময় নিজের মত না থাকলেও বাবা মায়ের চাপে পরে বিয়ে করতে হয় অনেককে।

৩. অর্থ উপার্জন :

পুরুষেরা ঘরে নির্যাতনের পাশাপাশি বাইরেও নির্যাতিত হন নিজের শ্বশুর বাড়ির লোকজন ও সমাজের দ্বারা। পারিবারিক পর্যায়, চেহারা, উচ্চতা, চাকরির বেতন ইত্যাদি অনেক কিছু নিয়ে হাসির ছলেই অনেকে খোঁচা দিয়ে কথা কথা বলেন। সব সময় কিছু না কিছু নিয়ে তারা হেয় প্রতিপন্ন করে যাচ্ছে। নারীদের ক্ষেত্রে এই ধরণের প্রবনতা নেই। কিন্তু এ ধরনের কথা বার্তা ও আচরণও মানসিক নির্যাতনের মধ্যে পরে।

পুরুষ নির্যাতন আড়ালে পড়ার কারণ :

পুরুষ নির্যাতনের সমস্যাটি এত গুরুতর হওয়ার প্রধান কারন হচ্ছে এই সব নির্যাতিত পুরুষেরা ন্যায় বিচার পাচ্ছেন না। নানা কারনে প্রতিদিন চুপচাপ নির্যাতন মেনে নিচ্ছেন অনেকেই। দেখে নিন কেন পুরুষ নির্যাতনের ঘটনাগুলো আড়ালে পরে যায়।

লোক লজ্জার ভয় :

একজন পুরুষ নারী দ্বারা শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতিত হচ্ছেন এই ঘটনা কোন পুরুষ নিজে মুখে বলতে লজ্জাবোধ করেন আমাদের সমাজ ব্যবস্থার কারণে। সেজন্য পুরুষেরা ভাবেন নারী দ্বারা শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতিত হচ্ছেন এটি প্রকাশ পাওয়া তার জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক। শুধুমাত্র এই কারনে পুরুষ নির্যাতনের ঘটনা ধামাচাপা দেয়া হয়। একজন পুরুষ যখন একটি নারীর ওপর নির্যাতন চালিয়ে সেটা জাহির করে তখন কেও তাকে নিয়ে ঠাট্টা বিদ্রুপ না করলেও যে পুরুষটির ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে তাকে ঠাট্টা বিদ্রুপ করতে কেউ ছাড়ে না। গত বছর ভারতের একটি প্রদেশে বেঙ্গালুরুর মনোজ কুমার নামে একজন ভদ্রলোক পুলিশের কাছে মামলা দায়ের করতে আসেন তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে। তিনি পুলিশকে জানান তার স্ত্রী তাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন। তখন দায়িত্বরত পুলিশ মামলা নিতে শুধুমাত্র অস্বীকৃতি জানানো নয় তাকে নিয়ে উপস্থিত সকলের সামনে ঠাট্টা বিদ্রূপ করেন। আমাদের সমাজ নির্যাতিত নারীর প্রতি সহানুভূতিশীল হলেও নির্যাতিত পুরুষের দিকে তাচ্ছিল্যের দৃষ্টিতে দেখে। কোনভাবে নির্যাতনের ঘটনা বন্ধু-বান্ধব বা আত্মীয় স্বজনদের কাছে প্রকাশ পেলে সহানুভূতির পরিবর্তে ঠাট্টা বিদ্রূপও নির্যাতিত পুরুষদের সহ্য করতে হয়।

পারিবারিক সহযোগিতার অভাব :

পরিবারের মুরুব্বীদের সহযোগিতার অভাবে পুরুষেরা চুপচাপ অনেক কিছুই মেনে নেন। নিজের ইচ্ছা ও শখ বিসর্জন দিয়ে না চাইলেও অনেক কিছু মেনে নেন অনেকে। দুঃখের ব্যাপার হল এই যে পারিবারিক এই নির্যাতন কাউকে বলাও যায় না। আড়ালেই রয়ে যায়।

মিথ্যা মামলা :

অনেকে পুরুষই নিজের স্ত্রীর দ্বারা নির্যাতন সহ্য করে নেন মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে যাওয়ার ভয়ে। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে যদি কেউ তার স্ত্রীর সাথে সম্পর্কছেদ করতে চান সেক্ষেত্রে অন্যভাবে নির্যাতনের শিকার হতে হয় পুরুষদেরকে। একজন নারী যখন তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা দায়ের করেন এবং সম্পর্কছেদ করতে চান তখন নিয়ম অনুযায়ী সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়। কিন্তু একজন পুরুষ তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে চাইলে মামলা নেয়া হয় না। যদি সম্পর্কছেদ করতে চান তবে উল্টো মামলায় জড়িয়ে যাওয়ার ঘটনাও কম নয়। অনেক সময় নির্যাতিত স্বামী স্ত্রীর সাথে সম্পর্কছেদ করতে চাইলে স্ত্রী তার বিরুদ্ধে মিথ্যা নির্যাতনের মামলা দায়ের করে বিবাহবিচ্ছেদের টাকা দাবি করেন। এমনকি মিথ্যা মামলা দায়ের করে সন্তানের কাছ থেকেও বিচ্ছেদের মত ঘটনার নজির রয়েছে।

করণীয় :

সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। নারী নির্যাতন হলে যেমন ভাবে তা একটি অপরাধ হিসেবে দেখা হয়, পুরুষ নির্যাতনের ক্ষেত্রেও তা হতে হবে। যাতে করে নির্যাতিত হয়ে কেউ চুপচাপ মেনে না নিয়ে এ ব্যাপারে সবার সাথে কথা বলে সমস্যা সমাধান করতে পারেন পুরুষেরা।

লেখক : এম এ মান্নান মিয়া (বার্তাকক্ষ সম্পাদক, সময় টেলিভিশন ও প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল)




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

...

সর্বশেষ সংবাদ

আইভীর পায়ে আঘাতে চিহ্ন, ২৪ ঘন্টার আগে শঙ্কামুক্ত বলা যাবে না ভারতে নারী ও শিশুসহ ৬ বাংলাদেশির কারাদণ্ড ৩ ধরনের কাঁচা পাট রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ-মিয়ানমারকে আর্থিক সহায়তা দিতে প্রস্তুত এডিবি সুষ্ঠ ভোট দিলে বিএনপি আশি শতাংশ ভোট পাবে: ফখরুল দিনাজপুর-৪ আসনে জাতীয় নির্বাচনের হাওয়া হিজড়াদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির সিদ্ধান্ত ইসির নাখালপাড়ায় নিহত জঙ্গিদের ২ জনের ছবি প্রকাশ করেছে র‌্যাব উপাচার্যের আশ্বাসে ঢাবি অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীদের অবরোধ প্রত্যাহার এবার অস্ত্রের লাইসেন্স পাবে এমপি পত্নীরা ‘নারায়ণগঞ্জে সংঘর্ষে জড়িতদের শনাক্তে কাজ চলছে’ শ্লীলতাহানির অভিযোগে পুলিশের হাতেই গ্রেফতার পুলিশ ঢাবি ক্যাম্পাসে প্রেমিককে কুপানো সেই প্রেমিকা লাভলী কারাগারে টাঙ্গাইলে সপ্তাহব্যাপী এসএমই পণ্য মেলা শুরু ফেলানী হত্যাকাণ্ড, তিন সপ্তাহের মধ্যে হলফনামার মাধ্যমে জবাব দেয়ার নির্দেশ আইসিসির বর্ষসেরা দলে জায়গা হয়নি কোন বাংলাদেশির খালেদা জিয়ার যুক্তিতর্কের দিন নির্ধারণ আরও ছয়মাসের জন্য রক্ষা পেল যশোর রোডের শতবর্ষী গাছগুলো ভর্তির লোভ দেখিয়ে ‘প্রেম’, জাবি শিক্ষার্থী বহিষ্কার উপনির্বাচন স্থগিতের কারণ কমিশনের দূরদর্শিতার অভাব, দাবি বিশেষজ্ঞদের বছরের সেরা ক্রিকেটার কোহলি নীলফামারীতে শিক্ষার্থী ধর্ষণ, জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন 'জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের জঘন্য পদক্ষেপ' কাল থেকে শুরু হচ্ছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড পাঁচ দিনের সফর শেষে ফিরে গেলেন প্রণব মুখার্জি নতুন প্রজন্মের রকেট উৎক্ষেপণ করলো জাপান বাংলাদেশের মানুষ সবসময় অধিকার বঞ্চিত: সুলতানা কামাল ডাকসু নির্বাচন নিয়ে আদালতের নির্দেশনায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া ছাত্র সংগঠনগুলোর রেকর্ড কর পরিশোধ করবে অ্যাপল অনলাইন আবেদনের সুবিধা চালু করল পেটেন্ট ডিজাইন ও ট্রেডমার্ক অধিদপ্তর নারী শরীরের চেয়ে নৈসর্গিক আর কিছু নেই: রাম গোপাল ভার্মা ১৬০ টি রুশ কচ্ছপ উদ্ধার, এক নারী আটক মস্কোর একটি শপিং মলে ভয়াবহ আগুন, ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা রাজধানীতে ৩ ছিনতাইকারী আটক ফিলিপিন্সে আগ্নেয়গিরিতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, বাড়ি ছেড়েছে ৩৭ হাজার লোক ‘জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাবে দেশে চাল উৎপাদন কমেছে’ মেয়র আইভী অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি শিয়া নেতার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ ইসি ভবনের সমানে থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বাসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৫৫ টিকেটে 'বাংলাদেশ' বানান ভুল, বিসিবির দুঃখ প্রকাশ ভিডিও ফুটেজ দেখে অস্ত্র প্রদর্শনকারীদের ধরা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাসের ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে ব্রাজিলে বিক্ষোভ সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনীর কার্যক্রম আরও জোরদারের ঘোষণা ‘দক্ষিণ এশিয়া অশান্ত করতে ষড়যন্ত্র করছে যুক্তরাষ্ট্র’ দায়িত্বে অবহেলার জন্য সহকর্মীর মৃত্যু, মার্কিন নৌ কমান্ডার অভিযুক্ত সরকারবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল পাকিস্তান লিবীয়া উপকূল থেকে দুই শতাধিক আফ্রিকান নাগরিক আটক উপনির্বাচন নিয়ে বিএনপি বিভ্রান্তমূলক তথ্য ছড়াচ্ছে: তোফায়েল ইইউ'র যেকোনো সমস্যা সমাধানে কাজ করার প্রত্যয় জার্মানি ও অস্ট্রিয়ার ‘উত্তর কোরিয়ার উপর আন্তর্জাতিক চাপের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে’ ব্রেক্সিটের সিদ্ধান্ত বাতিল করবে যুক্তরাজ্য, প্রত্যাশা ইউরোপিয়ান কমিশন প্রধানের শীতকালীন অলিম্পিকের অংশ নিবে ২ কোরিয়া কাতালোনিয়ার পার্লামেন্টে ফের স্বাধীনতাপন্থীরা, অস্বস্তিতে মাদ্রিদ অসৎ সাংবাদিকদের পুরস্কৃত করবেন ট্রাম্প! কাশ্মীর সীমান্তে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৪ কোন কোন প্রোটিন ওজন কমাতে অধিক কার্যকরী ইরানের সঙ্গে ছয় জাতির চুক্তি পরিবর্তন ছাড়াই বাস্তবায়ন করত হবে: জাতিসংঘ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালাল ভারত সৌদি আরব মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে: ইরান ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় আ.লীগ হতাশ: সেতুমন্ত্রী তর্ক-বিতর্কের নির্বাচন ডিএনসিসি নির্বাচন 'দুর্ভিক্ষে কষ্ট ঠেকাতে উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে কাজ করছে সরকার' নির্বাচন কমিশন ভবন সংলগ্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবরোধ তুলবে না শিক্ষার্থীরা গোয়েন্দা পুলিশের ফাঁদে তিন ছিনতাইকারী ২৯ ম্যাচ পর পরাজয়ের স্বাদ পেলো বার্সা বেঁচে থাকার সুযোগ পেলো শতবর্ষী গাছগুলো দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৮ ওয়ার্ডের নির্বাচন স্থগিত শততম ম্যাচ কাভারের মাইলফলক ছুঁলেন কয়েকজন সাংবাদিক পায়রা সেতু নির্মাণে ৬ কোটি ডলার ঋণ পাচ্ছে সরকার আজ শীর্ষ ষোলোর প্রথম লেগে মাঠে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ দ্বিতীয় টেস্টে ভারতকে ১৩৫ রানে হারিয়েছে দ.আফ্রিকা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সানজামুলের জায়গায় মিরাজ! যুক্তিতর্ক উপস্থাপনে আদালতে বেগম জিয়া 'তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস সরানোর পরিকল্পনা নেই' মুন সিনেমা হলের মালিক পাচ্ছেন ৯৯ কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আল হার্বিশের সৌজন্য সাক্ষাৎ স্কুলছাত্র আদনান নিহতের ঘটনায় ৫ কিশোর আটক, রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার ক্ষুধামুক্ত রংপুর গড়তে বদ্ধপরিকর সরকার: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশি মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের জন্য শিক্ষাবৃত্তি দিচ্ছে ভারত, থাকছে আবেদনের নিয়মাবলী ট্রাম্পের কতজন গার্লফ্রেন্ড ছিলেন জানেন.. তৃণমূল পর্যায়ে পিপিপি'র কর্মকাণ্ড বাড়ানোর আহ্বান সরকারি দপ্তরে সেবা পেতে দেরি হওয়াও বিনিয়োগ না আসার একটি কারণ ঢাবি ক্যাম্পাসে প্রেমিকার ছুরিকাঘাতে প্রেমিক আহত শপথ গ্রহণ করলেন নবনির্বাচিত মেয়র মোস্তাফিজার রহমান কমেছে শীতের তাণ্ডব পরাজয়ের মুখ দেখলো বাংলাদেশের যুবারা নাইজেরিয়ায় বোকা হারামের হামলায় নিহত ১২ বাপ্পীকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন আঁখি! বিসিবি বেমালুম ভুলে গেলো? ঘনিয়ে আসছে রাসিক নির্বাচন, প্রচারণায় ব্যস্ত সম্ভাব্য প্রার্থীরা শেখ পরিবারের নতুন সদস্যের যে ভাষণে মুগ্ধ দেশবাসী (ভিডিও) বহির্বিশ্ব জানে বাংলাদেশ নিরাপদ দেশ: শহীদুল হক জাবিতে ভিনদেশী পাখিতে মুখরিত ক্যাম্পাসের লেক বিয়ে খেয়ে আর বাড়ি ফেরা হলো না দুই বন্ধুর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিদ্যালয়ে ডিজিটাল ল্যাবের উদ্বোধন সাভারে ৩ শতাধিক অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন নাটোরে চার নারীসহ জামায়াতের সাত কর্মী আটক



Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে