তিন সংস্কৃতির শহর 'টলেডো'

Update: 2015-10-28 08:46:27, Published: 2015-10-28 08:46:28
toledo-city


মধ্য স্পেনের শহর টলেডো। ইউনেস্কো ১৯৮৬ সালে এটিকে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করে। বিভিন্ন সময়ে মুসলিম, খ্রিস্টান ও ইহুদিদের আধিপত্য থাকায় একে তিন সংস্কৃতির শহরও বলা হয়ে থাকে। পুরো শহর জুড়েই দেখার মতো রয়েছে অনেক কিছু। এর মধ্যে সেন্ট মেরীস ক্যাথেড্রাল, এল গ্রেকো টেইল, সেন্ডা ইকোলজিকা, সান্তা ক্রুজ মিউজিয়াম উল্লেখযোগ্য।

স্বচ্ছ পানির লেকের ধারে পাখির কিচির মিচির শব্দ যে কাউকেই বিমোহিত করবে। অনাবিল এই সৌন্দর্য দেখতে পুরো বিশ্ব থেকে পর্যটকরা ভিড় জমায় এখানে।

এক দর্শনার্থী বলেন, 'ঘুরে বেড়ানোর জন্য টলেডো খুবই সুন্দর জায়গা। আমি অনেক ছবি তুলেছি। এখানকার আবহাওয়াও খুব ভালো।'

ব্রোঞ্জ সভ্যতার সময় এখানে বসতি গড়ে ওঠে। ১৫৬৩ সালের আগ পর্যন্ত স্পেনের রাজধানী ছিল এটি। পুরানো ভবন ও দেয়ালে ঘেরা এই শহরের আঁকাবাঁকা রাস্তায় হাঁটলে মনে হবে যেন মধ্যযুগীয় কোনো সভ্যতায় দাঁড়িয়ে আছেন। আর সুদৃশ্য সেতুও পর্যটকদের আকৃষ্ট করে।

এক দর্শনার্থী বলেন, 'টলেডো দারুণ জায়গা। এ শহরের উঁচু উঁচু পাহাড়, সেতু, দোকান- সব কিছুই দেখার মত। আমি এখানকার অপরূপ দৃশ্য দারুণ উপভোগ করছি।'

শহরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা দোকানগুলোতে সাজানো আছে মধ্যযুগীয় সভ্যতার দৃষ্টিনন্দন সামগ্রী।

ছোট ছোট ট্রেনে ৪৫ মিনিটে অনায়াসেই এক নজরে দেখে নিতে পারেন নয়নাভিরাম শহরটিকে। আর এতে খরচ পড়বে মাত্র সাড়ে চার ইউরো।

স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদ থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত টলেডো শহর। এক সময় এখানে মুসলমানদের আধিপত্য থাকলেও তা চলে গেছে খ্রিস্টান ও ইহুদির দখলে, তবে হারায়নি এখানকার সুন্দর জৌলুস। আর এই সৌন্দর্য দেখার জন্য প্রতিদিন ভিড় জমায় পুরো বিশ্ব থেকে আসা হাজার হাজার দর্শনার্থী। তারা এখনও মুগ্ধ এখানকার সৌন্দর্য দেখে।

Update: 2015-10-28 08:46:27, Published: 2015-10-28 08:46:28

আপনার মন্তব্য লিখুন

পাঠকের মন্তব্য ( )


More News
  


আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ



সরাসরি যোগাযোগ

৮৯, বীর উত্তম সি. আর. দত্ত রোড, ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
ফ্যাক্স: +৮৮০২ ৯৬৭০০৫৭, ইমেইল: info@somoynews.tv
উপরে en.Somoynews.tv