আপডেট
২০-০১-২০১৫, ১৬:৩৪

গোলান মালভূমিতে ইসরাইলি বিমান হামলার তীব্র নিন্দা

গোলান মালভূমিতে ইসরাইলি বিমান হামলার তীব্র নিন্দা
সিরিয়ার গোলান মালভূমি অঞ্চলে ইসরাইলি বিমান হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সিরিয়া ও ইরান। এদিকে আল-কায়দা সংশ্লিষ্ট সিরিয় দল আল নুসরা ফ্রন্ট দাবি করেছে, শনিবার বিধ্বস্ত হওয়া সিরিয় সামরিক পরিবহন বিমানটিকে তারাই গুলি করে ধ্বংস করেছে। এরই মধ্যে আইএস জঙ্গিদের কাছ থেকে সীমান্ত শহর কোবানির অধিকাংশ এলাকা পুনর্দখলের দাবি করেছে সিরিয় ও ইরাকী কুর্দি বাহিনী।
শনিবার সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে সেনাবাহিনীর এই কার্গো বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে ৩৫ জন নিহত হয়। ওইদিন সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে একে দুর্ঘটনা বলে ব্যাখ্যা দিলেও সোমবার আল-কায়দার শাখা আল নুসরা জঙ্গিরা দাবি করে তারাই গুলি করে ধ্বংস করেছে বিমানটি। এই ঘটনার একটি ভিডিও চিত্রও প্রকাশ করে তারা।

এদিকে গতকাল সিরিয়ার গোলান মালভূমিতে ইসরাইলি বিমান হামলায় ৬ হিজবুল্লাহ সদস্য ও এক ইরানি জেনারেলের নিহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রতিশোধের ইঙ্গিত দিয়েছেন সিরিয়া ও ইরানের কর্মকর্তারা।

সিরিয়ার পুনরেকত্রিকরণ মন্ত্রী আলী হায়দার বলেন, এ ধরণের বিদেশি দখলদারিত্ব থেকে নিজেদের ভূমি ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার সম্পূর্ণ অধিকার সিরিয়দের আছে। এই হামলার জন্য ইসরাইল কঠিন শাস্তি পাবে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ বলেন, আমরা ইহুদিদের এই ধরণের সহিংসতায় ক্ষুব্ধ। মুসলমানদের এলাকায় এসে তারা আমাদের লোকজনকে হত্যা করবে আর আমরা মুখ বুঝে সহ্য করে যাবো এটা কোনভাবেই সম্ভব নয়।

গোলান মালভূমি অঞ্চলে মোতায়েন জাতিসংঘ বাহিনীর পক্ষ থেকেও ইসরাইলীদের সিরিয় আকাশসীমা লঙ্ঘনের প্রমাণ পাওয়ার কথা বলা হয়েছে। সোমবার ইসরাইল অধিকৃত আলফা অঞ্চল থেকে একটি ড্রোনকে জাতিসংঘ এলাকায় প্রবেশ করতে দেখেছেন সংস্থার পর্যবেক্ষকরা। এর মধ্য দিয়ে ইসরাইল ১৯৭৪ সালের শান্তিচুক্তি ভঙ্গ করেছে বলে বলেও অভিযোগ তাদের।


এরই মধ্যে সিরিয়ার তুর্কি সীমান্ত সংলগ্ন কোবানি শহরের অধিকাংশ এলাকা থেকে আইএস জঙ্গিদের হটিয়ে দেয়ার দাবি করেছে সিরিয় ও ইরাকী কুর্দি বাহিনী।

পেশমারগা কমান্ডার কর্নেল বোরহান আহমেদ বলেন, কোবানির মাত্র তিনটি অঞ্চল এখন আইএসের দখলে। বাকি ১০টির নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেয়েছি আমরা। রাকা থেকে ওদের খাদ্য সরবরাহের পথটিও আমরা বন্ধ করে দিয়েছি। আমরা পুরো বিশ্বকে আইএস মুক্ত করতে লড়াই করছি।

সিরিয় কুর্দি সেনা আরমান্দ জে কোবানি বলেন, ওরা অন্ধের মতো যুদ্ধ করে। আগে আইএস যুবক ও বৃদ্ধদের যুদ্ধে নামাতো। আমরা তাদের সেই বাহিনী ধ্বংস করে দিয়েছি। এখন ওরা নারী ও শিশুদের যুদ্ধে নামাচ্ছে।

এদিকে ইরাকে প্রথমবারের মত আইএসের সাথে মুখোমুখি যুদ্ধ করেছে কানাডার সেনাবাহিনী। এই ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত না করলেও, কেবল আত্মরক্ষার জন্যই তাদের এই যুদ্ধ করতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন কানাডার বিশেষ বাহিনীর কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মিশেল রুলো।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে