আপডেট
১১-০১-২০১৭, ১২:৩৬

ওবামার বিদায়ী ভাষণ

obama-last
নিজের শাসনামলে বহু আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী হামলা থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে রক্ষা করার দাবি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তিনি বলেছেন, তার গোয়েন্দাদের কঠোর নজরদারীর কারণে আন্তর্জাতিক কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হামলা পরিকল্পনায় সফল হয়নি। শিকাগো অঙ্গরাজ্যের ইলিনয়ে বাংলাদেশ সময় সকাল আটটায় বিদায়ী ভাষণে ওবামা এ কথা বলেন। যুক্তরাষ্ট্র আগের চেয়ে শক্তিশালী অবস্থানে আছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
শিকাগোর ইলিনয়ের ম্যাককর্মিক প্লেস কনভেনশন সেন্টার কানায় কানায় পরিপূর্ণ, ধীর পায়ে মঞ্চে এলেন মার্কিন ইতিহাসের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট ৫৫ বছর বয়সী বারাক ওবামা। আট বছর আগে বিজয়ী হবার পর এখানেই প্রথম ভাষণ দিয়েছিলেন তিনি। মঞ্চের সামনে অন্যান্যদের সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী, কন্যা, ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গত আট বছরে অনেকবারই বক্তব্য দিয়েছেন তিনি। তবে এবারের ভাষণ একেবারেই ভিন্ন। কেননা প্রেসিডেন্ট হিসেবে শেষবারের মত নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন তিনি। এসময় তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে আগের চেয়ে ভালো ও শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে আসতে পেরেছেন বলে মন্তব্য করেন।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র হুমকির মুখে আছে বলে উল্লেখ করে মার্কিনদের গণতন্ত্র রক্ষায় কাজ করার আহ্বান জানান। এছাড়াও তিনি বলেন গণতন্ত্র রক্ষা করা খুব কঠিন এবং এটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। এছাড়া অর্থনৈতিক বৈষম্য এবং সমাজের বিভিন্ন স্তরের বিভক্তিকেও মার্কিন গণতন্ত্রের জন্য হুমকি বলে উল্লেখ করেন।

ওবামা বলেন, 'আমরা আপনাদের সঙ্গে নিয়ে বিশ্বকে দেখিয়েছি পরিবর্তন কিভাবে আনতে হয়। আপনাদের জন্যই যুক্তরাষ্ট্র এখন আগের চেয়ে অনেক শক্তিশালী অবস্থানে আছে। দেশে যদি গণতন্ত্র কাজ করে শুধুমাত্র তখনই ভবিষ্যৎ সুন্দর হবে। দল-মতের ভেদাভেদ ভুলে জাতীয় স্বার্থে কাজ করতে হবে, যা এই মুহূর্তে খুব প্রয়োজন। আর মাত্র ১০ দিন পরই বিশ্ব আমাদের গণতন্ত্রের ধারার প্রত্যক্ষদর্শী হবেন, শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করবো আমরা, যেমনটা করেছিলেন প্রেসিডেন্ট বুশ। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ, ধন্যবাদ আমার প্রশাসনের কর্মকর্তাদের। ধন্যবাদ মিশেলকে এই পথ চলায় আমার বন্ধু হয়ে থাকার জন্য।'

একইসঙ্গে ওবামা তার বক্তব্যে বলেন কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি বৈষম্য এখনও দূর হয়নি। এ বৈষম্য দূর করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে বলেও মন্তব্য করেন।

কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি বৈষম্য আইন দিয়ে দূর করা যাবে না, সেজন্য মানুষকে মানসিকতা বদলাতে হবে। এ বৈষম্য দূর করতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। কৃষ্ণাঙ্গদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চিন্তা করতে পারবে না কেউ। গণতন্ত্র রক্ষা করতে চাইলে কৃষ্ণাঙ্গদের অধিকার রক্ষা করতে হবে।


একইসঙ্গে তিনি তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিগুলোর কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, বেকারত্বের হার কমিয়ে আনা, কিউবানদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন, ইরানের পারমানবিক কার্যক্রম বন্ধ করা, নাইন ইলেভেনের হামলার পরিকল্পনাকারীদের ধরা কিংবা স্বাস্থ্যখাতে পরিবর্তনের অঙ্গীকার করেছিলেন তিনি, যা বাস্তবে করে দেখিয়েছেন। তবে জনগণের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, পরিবর্তন চাইলে নিজের ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে।

নিজের শাসনামলে আন্তর্জাতিক কোন গোষ্ঠী তাদের সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনায় সফল হতে পারেনি বলে বিদায়ী ভাষণে বলেন ওবামা।

'আমার শাসনামলে কোন আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনায় সফল হতে পারেনি। আমাদের গোয়েন্দা বিভাগ, নিরাপত্তা বাহিনী এবং হোমল্যান্ড সিকিউরিটি দারুণভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ কয়বছরে আমরা লাদেনসহ বহু জঙ্গি হোতাকে পরাভূত করেছি।' বলছিলেন ওবামা।

সবশেষে তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান একই সঙ্গে স্ত্রী মিশেল ওবামা এবং সন্তানদের ধন্যবাদ জানান তার কঠিন সময়ে সাথে থাকার জন্য। এ সময় আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ওবামা ও তার পরিবারের সদস্যরা। সবশেষে তিনি তার নির্বাচনী শ্লোগান 'ইয়েস উই ক্যান' দিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ, ধন্যবাদ আমার প্রশাসনের কর্মকর্তাদের, ধন্যবাদ মিশেলকে এ পথচলায় আমার বন্ধু হয়ে থাকার জন্য।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TV DMCA.com Protection Status
উপরে