• সদ্যপ্রাপ্তলন্ডনে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে ছুরিকাঘাতে এক পুলিশ আহত। পুলিশের গুলিতে হামলাকারী নিহত

একাত্তরের অকুতোভয় সৈনিক কিশোর যোদ্ধা হাছিন-হাবিবুর

Update: 2015-03-26 08:27:59, Published: 2015-03-26 08:27:59
shariat-ff

১৯৭১ সালে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন নানা বয়সী মানুষ। বড়দের সাথে দেশের জন্য লড়েছেন অনেক কিশোরও। এমনই দু'জন শরীয়তপুরের দুই সহোদর কিশোর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাছিন খান ও হাবিবুর রহমান খান। ভারতে গিয়ে প্রশিক্ষণের পর, কুমিল্লার সীমান্ত এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিয়ে গুলিবিদ্ধ হন হাছিন খান। অপর একটি গ্রুপের সঙ্গে শরীয়তপুরে যুদ্ধে অংশ নেন ছোট ভাই হাবিবুর রহমান খান।

৭ই মার্চ, ১৯৭১। উত্তাল জনসমুদ্র তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান। স্বাধীনতার ডাক দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সেই জনসভায় উপস্থিত ছিলেন কিশোর আবুল হাছিন খান। এরপরই যুদ্ধে অংশ নেয়ার মনস্থির করেন তিনি।

ঢাকা থেকে নিজ বাড়ি বর্তমান শরীয়তপুরের মগর গ্রামে ফিরে অভিভাবকদের কাছে অনুমতি চান যুদ্ধে অংশ নেয়ার। অনুমতি না মিললেও গ্রামের আরও ১৭জনকে নিয়ে দলবদ্ধ হন। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মেলাঘরে গিয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন দেশের জন্য। কুমিল্লার সীমান্ত এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিয়ে গুলিবিদ্ধ হন তিনি।

৭১'এ কিশোর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাছিন খান বলেন, 'নৌকা নিয়ে রাতের অন্ধকারে যাওয়ার সময় হঠাৎ পাকিস্তান বাহিনীদের সম্মুখীন হয় আমরা। তখন পাক বাহিনী আমাদের ওপর গুলি করে। সেই সময় প্রায় ৮জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয় এবং ১১ জন আহত হয়।'

পাক বাহিনীর অত্যাচার-নির্যাতন, জ্বালাও-পোড়াও দেখে এবং বড় ভাই হাছিন খানকে অনুসরণ করে যুদ্ধে অংশ নেন ছোট ভাই হাবিবুর রহমান খান।

৭১'এ কিশোর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান খান বলেন, 'রাজাকাররা পাকিস্তান বাহিনীদের আমাদের গোপন আস্তানার খবর দেয়। তখন পাকিস্তান বাহিনী রাতের আধারে অতর্কিতভাবে আমাদের আস্তানায় হামলা চালায়। তখন সেখানেই ৮ থেকে ১০ মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয়।'

দুই সন্তান যুদ্ধের জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলে চিন্তিত হয়ে পড়েছিলেন মা ইয়ারুন নেছা। ছেলেদের পথ চেয়ে বসে থাকতেন তিনি।

মা ইয়ারুন নেছা বলেন, 'দেশ স্বাধীনের সাত-আট দিন আগে এক ছেলে এসে রাইফেল ফেরত দিয়ে যায়। তখন আমি ওই ছেলেকে জিজ্ঞাসা করি, আমার সন্তান কই? তখন সে বলে আছে, আল্লাহ দিলে আসবে। আমি যে কী পাগল ছিলাম সেটা বলে বুঝাতে পারবো না।'

বর্তমানে কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন হাবিবুর রহমান খান ও আবুল হাছিন খান। পাশাপাশি, হাছিন খান নেতৃত্ব দিচ্ছেন নড়িয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের।

Update: 2015-03-26 08:27:59, Published: 2015-03-26 08:27:59

আপনার মন্তব্য লিখুন

পাঠকের মন্তব্য ( )


More News
  


আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত (সাম্প্রতিক)


Contact Address

89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh.
Fax: +8802 9670057, Email: info@somoynews.tv
উপরে en.Somoynews.tv